চসিক নির্বাচন: বিভিন্ন ওয়ার্ডে বিএনপির একাধিক মনোনয়ন প্রত্যাশী

  মজুমদার নাজিম উদ্দিন, চট্টগ্রাম ব্যুরো ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

চসিক

আসন্ন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন (চসিক) নির্বাচন সুষ্ঠু হবে কিনা এ নিয়ে বিএনপি সংশয়ে থাকলেও ভেতরে ভেতরে প্রস্তুতি নিচ্ছে দলটি। ইতিমধ্যে মেয়র এবং কাউন্সিলর পদে দলীয় মনোনয়ন পেতে অনেকেই দৌড়ঝাঁপ শুরু করে দিয়েছেন। মেয়র পদে খুব বেশি মনোনয়ন প্রত্যাশী নেই।

তবে কাউন্সিলর পদে প্রায় প্রতিটি ওয়ার্ডেই আছে একাধিক প্রার্থী। তারা দলীয় টিকিট পেতে সিনিয়র নেতাদের কাছে ধরনা দিচ্ছেন। মনোনয়ন নিয়ে শেষ পর্যন্ত দলে কোন্দল চাঙ্গা হয়ে উঠতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। অনেকেই বলছেন, কয়েকটি ওয়ার্ডে সমঝোতার ভিত্তিতে একক প্রার্থী নির্বাচন সম্ভব নাও হতে পারে। সে ক্ষেত্রে ওইসব ওয়ার্ডে বিদ্রোহী প্রার্থী থাকতে পারে।

মার্চের যে কোনো সময় চসিক নির্বাচন হতে পারে বলে শোনা যাচ্ছে। কাল রোববার নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করবে নির্বাচন কমিশন। তার আগেই দলীয় মনোনয়নপত্র বিতরণ শুরু করেছে আওয়ামী লীগ। এক্ষেত্রে পিছিয়ে বিএনপি। তারা এখনও মনোনয়নপত্র বিতরণ শুরু করেনি। তবে শিগগিরই দলীয় মনোনয়নপত্র দেয়া হতে পারে বলে দলটির একাধিক সূত্র জানিয়েছে। সম্প্রতি অনুষ্ঠিত চট্টগ্রাম-১০ আসনের উপ-নির্বাচন এবং ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ইভিএমে ভোট কারচুপির অভিযোগ তোলে বিএনপি।

তিনটি নির্বাচনেই তাদের প্রার্থীরা পরাজিত হন। এই পরিপ্রেক্ষিতে গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়েছিল, চসিক নির্বাচন হয়তো বর্জন করতে পারে বিএনপি। তবে মঙ্গলবার চট্টগ্রামে বিএনপির এক সাংগঠনিক সভায় মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর চসিক নির্বাচনে অংশ নেয়ার ইঙ্গিত দেন। এরপর থেকেই প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছেন দলটির স্থানীয় নেতারা। চট্টগ্রাম নগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন যুগান্তরকে বলেন, ‘চসিক নির্বাচনে অংশ নিতে আমাদের সব রকমের প্রস্তুতি রয়েছে। তবে আমরা চিন্তিত সুষ্ঠু নির্বাচন হবে কিনা তা নিয়ে।

চট্টগ্রাম-৮ আসনের উপনির্বাচন এবং ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনে ইভিএম মেশিনের সাহায্যে ভোটে ডিজিটাল কারচুপি হয়েছে। চসিক নির্বাচন নিয়েও এ ধরনের নীলনকশা হচ্ছে। চসিকের গত নির্বাচনে আমরা অংশ নিয়েছিলাম। ওই নির্বাচনও নিরপেক্ষ হয়নি। এরপরও গণতান্ত্রিক আন্দোলনের অংশ হিসেবে আমরা নির্বাচনে যাচ্ছি। সুষ্ঠু নির্বাচন হলে মেয়র ও কাউন্সিলর পদে বিএনপি প্রার্থীদের জয় ঠেকানোর সাধ্য কারও নেই।’

এই মুহূর্তে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপিতে দৃশ্যমান অন্তর্কোন্দল নেই। তবে চসিক নির্বাচন ঘিরে পুরনো কোন্দল আবার চাঙ্গা হয়ে উঠতে পারে। বিভিন্ন ওয়ার্ডে সিনিয়র নেতাদের পছন্দের প্রার্থী রয়েছেন। তারা নিজ অনুগত নেতাকর্মীদের মনোনয়ন পাইয়ে দিতে এরই মধ্যে শুরু করে দিয়েছেন নানামুখী তৎপরতা। দলীয় সূত্র জানায়, বিএনপির সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থী হিসেবে আলোচনায় আছেন নগর বিএনপি সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন।

তিনি গতবারও প্রার্থী হতে চেয়েছিলেন। তখন মেয়র পদে মনোনয়ন দেয়া হয় এম মনজুর আলমকে। তবে গত জাতীয় নির্বাচনে নগরীর বাকলিয়া-কোতোয়ালি আসন থেকে দলীয় মনোনয়ন পান শাহাদাত। কারান্তরীণ থাকা অবস্থায় তিনি ওই নির্বাচনে অংশ নিয়ে পরাজিত হন। কৌশলগত কারণে শাহাদাত ছাড়াও মেয়র পদে বিএনপি আরও দু’একজনের জন্য মনোনয়নপত্র নিয়ে রাখতে পারে বলে দলের একটি সূত্র জানিয়েছে।

দলীয় মনোনয়ন প্রসঙ্গে নগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আবু সুফিয়ান বলেন, ‘এলাকায় জনপ্রিয়তা রয়েছে এবং দলের জন্য অতীতে যাদের ত্যাগ আছে তারা কাউন্সিলর পদে মনোনয়নে অগ্রাধিকার পাবেন। প্রায় প্রতিটি ওয়ার্ডেই একাধিক সম্ভাব্য প্রার্থী রয়েছে। কোনো কোনো ওয়ার্ডে ৫-৬ জনও মনোনয়ন চাইছেন। এক্ষেত্রে সমঝোতা করে একক প্রার্থী নির্ধারণের চেষ্টা করা হবে।’

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের অধীন ৪১টি ওয়ার্ড রয়েছে। সংরক্ষিত মহিলা ওয়ার্ড রয়েছে ১৪টি।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

 
×