তৃণমূল ঢেলে সাজাতে জেলা সফরে কেন্দ্রীয় নেতারা
jugantor
ছাত্রদল ও যুবদলকে আরও গতিশীল করার উদ্যোগ
তৃণমূল ঢেলে সাজাতে জেলা সফরে কেন্দ্রীয় নেতারা
দশ সাংগঠনিক বিভাগ সফরে ছাত্রদলের ১০ ও যুবদলের ১১টি টিম * প্রতি জেলার সব ইউনিটে মতবিনিময়

  তারিকুল ইসলাম  

১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ছাত্রদল ও যুবদলকে আরও গতিশীল করার উদ্যোগ নিয়েছে বিএনপির হাইকমান্ড। এ লক্ষ্যে সংগঠন দুটির তৃণমূলকে ঢেলে সাজাতে চায় দলটি। ইতিমধ্যে দশ সাংগঠনিক বিভাগে সফরের জন্য ছাত্রদলের ১০ ও যুবদলের ১১টি টিম গঠন করা হয়েছে। বিএনপির ভ্যানগার্ডখ্যাত ছাত্র সংগঠনটির দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা ইতিমধ্যে সারা দেশে সফর শুরু করেছেন। যুব সংগঠনটির দায়িত্বপ্রাপ্তরাও শিগগির সফরে বের হবেন।

যুবদলের নেতারা জানান, ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা, রাজশাহী, রংপুর, সিলেট, ফরিদপুর, ময়মনসিংহ, কুমিল্লা ও বরিশাল- এই দশ সাংগঠনিক বিভাগ সফর করবেন দায়িত্বপ্রাপ্তরা। এসব বিভাগের প্রতিটি সাংগঠনিক জেলার ইউনিয়ন পর্যন্ত সব ইউনিটে তারা মতবিনিময় করবেন। মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি থাকলে স্থানীয় নেতাদের সঙ্গে বসে নতুন করে আহ্বায়ক কমিটি করার নির্দেশনাও রয়েছে। সফর শেষে প্রতিটি জেলার সার্বিক চিত্র তুলে ধরে কেন্দ্রের কাছে সাংগঠনিক প্রতিবেদন তুলে ধরবেন। সে অনুযায়ী কেন্দ্র পরবর্তী পদক্ষেপ নেবে। ছাত্রদলের নেতারা জানান, টিমের দায়িত্বপ্রাপ্তরা ইতিমধ্যে জেলা সফর করছেন। প্রতিটি জেলার অধীন উপজেলা, কলেজ ও পৌর শাখার নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় করছেন। সফর শেষে তারাও কেন্দ্রের কাছে সাংগঠনিক প্রতিবেদন জমা দেবেন। জানতে চাইলে যুবদলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু যুগান্তরকে বলেন, তৃণমূল পর্যায় থেকে যোগ্য ও জনপ্রিয় নেতৃত্ব তুলে আনতে এবং সংগঠনের গতি আরও শক্তিশালী করতে এসব টিম গঠন করা হয়েছে।

ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন বলেন, তৃণমূলে ছাত্রদলকে শক্তিশালী করতে আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি। আমাদের সাংগঠনিক অভিভাবক দেশনায়ক তারেক রহমানের পরামর্শে সংগঠনের কেন্দ্রীয় নেতাদের নেতৃত্বে গঠিত দশটি সাংগঠনিক টিম ইতিমধ্যে মাঠে নেমেছে। তারা প্রতিটি জেলার তৃণমূলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে সরাসরি কথা বলে কেন্দ্রে সার্বিক চিত্র তুলে ধরবেন।

জানা গেছে, গত জানুয়ারি মাসে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় নেতাদের নিয়ে ১০টি সাংগঠনিক টিম গঠন করে বিএনপির হাইকমান্ড। একজন কেন্দ্রীয় সহসভাপতির নেতৃত্বে গঠিত প্রতিটি টিমে চারজন করে সদস্য রয়েছেন। এর মধ্যে আছেন একজন যুগ্ম সম্পাদক, একজন সহ-সাধারণ সম্পাদক ও সংশ্লিষ্ট বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক। ঢাকা বিভাগে দুটি সাংগঠনিক টিম গঠন করা হয়েছে। একটি ঢাকা মহানগরীর ইউনিটসমূহের দায়িত্বপ্রাপ্ত। অন্য টিমটি মহানগরের বাইরে বিভাগের অধীনস্থ জেলাগুলোর দায়িত্বপ্রাপ্ত। কেন্দ্রীয় সহসভাপতি পার্থদেব মণ্ডলকে এই টিমের প্রধান করা হয়েছে। এ ছাড়া সহসভাপতি জাকিরুল ইসলাম জাকিরকে বরিশাল বিভাগের টিম লিডার, সহসভাপতি মিজানুর রহমান সজীবকে খুলনা বিভাগ, সহসভাপতি মুক্তাদির হোসেন তরুকে ফরিদপুর ও কুমিল্লা বিভাগ, সহসভাপতি মুসাব্বির সাফিকে চট্টগ্রাম বিভাগ, সহসভাপতি ওমর ফারুক কাওসারকে সিলেট বিভাগ, সহসভাপতি সাজিদ হাসান বাবুকে রাজশাহী বিভাগ, সহসভাপতি আশরাফুল আলম ফকির লিংকনকে রংপুর বিভাগ এবং সহসভাপতি মাজেদুল ইসলাম রুম্মনকে ময়মনসিংহ বিভাগের টিম লিডার করা হয়।

রাজশাহী বিভাগের টিম লিডার ছাত্রদলের সহসভাপতি সাজিদ হাসান বাবু বলেন, তৃণমূল পর্যায়ে ছাত্রদলকে শক্তিশালী করতে কেন্দ্রের নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা কাজ করছি। মতবিনিময় সভা করছি। কর্মপরিধি বড় হওয়ায় কাজ শেষ করতে একটু সময় লাগছে। আশা করছি কাজ শেষে দ্রুত সময়েই সাংগঠনিক প্রতিবেদন জমা দিতে পারব। রংপুর বিভাগের টিম লিডার আশরাফুল আলম ফকির লিঙ্কন বলেন, তৃণমূলে কমিটি পুনর্গঠনে প্রতিবন্ধকতাসমূহ চিহ্নিত করার চেষ্টা করছি। পাশাপাশি তৃণমূলের নেতাদের কাছে কেন্দ্রের বার্তাও পৌঁছে দিচ্ছি।

এদিকে যুবদল নেতারা জানান, গত মঙ্গলবার নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক বৈঠকে সংগঠনের কেন্দ্রীয় নেতাদের নেতৃত্বে ১১টি টিম গঠন করা হয়। ১১টি টিমের মধ্যে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণকে ঢেলে সাজাতে একটি টিমকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। এ ছাড়া সাংগঠনিক বিভাগ ঢাকা, ফরিদপুর, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম, খুলনা, রাজশাহী, রংপুর, সিলেট, কুমিল্লা ও বরিশাল প্রতিটি বিভাগের জন্যও একটি করে টিম গঠন করা হয়। এসব টিমকে দু’ভাবে কাজ করতে বলা হয়েছে। প্রথমে ২০ ফেব্রুয়ারির মধ্যে সরেজমিন ওয়ার্ড, ইউনিয়ন, থানা ও পৌর কমিটির সাংগঠনিক প্রতিবেদন প্রস্তুত করতে বলা হয়েছে। এই প্রতিবেদন প্রস্তুতির আগে সংশ্লিষ্ট জেলা ও মহানগর নেতাদের সঙ্গেও মতবিনিময় করতে হবে। দ্বিতীয়ত, ২০ ফেব্রুয়ারির পর থেকে তৃণমূল পর্যায়ের কমিটি গঠনে কার্যকর উদ্যোগ নিতে হবে। সে ক্ষেত্রে কোনো ইউনিটের কমিটি মেয়াদোত্তীর্ণ হলে তা ভেঙে সেখানে নতুন করে আহ্বায়ক কমিটি করতে হবে। টিমের একজন সদস্য যুগান্তরকে বলেন, যারা জনপ্রিয়, সাহসী ও স্বতঃস্ফূর্তভাবে রাজপথে থাকবে, এমন নেতাদের দিয়ে কমিটি গঠন করতে বলা হয়েছে। অযোগ্যদের দিয়ে কমিটি সংখ্যায় বড় না করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে প্রতিটি টিমকে। কোথাও সমস্যার সম্মুখীন হলে উপস্থিত বুদ্ধি দিয়ে তা সমাধান করতে বলা হয়েছে।

তবে যুবদলের কেন্দ্রীয় কমিটি পূর্ণাঙ্গ না করে তৃণমূল সফরের জন্য টিম গঠন নিয়ে অনেকে প্রশ্ন তুলেছেন। সংগঠনটির একজন সহ-সাধারণ সম্পাদক ক্ষোভ প্রকাশ করে যুগান্তরকে বলেন, যুবদলের কেন্দ্রীয় কমিটি পূর্ণাঙ্গ করার পর তৃণমূল সফরের জন্য টিম করা উচিত ছিল। কারণ সদ্য ঘোষিত যুবদলের ১১৪ সদস্যের আংশিক কমিটিতে সাবেক ছাত্রদল নেতাদের স্থান দেয়া হয়নি। যা নিয়ে ইতিমধ্যে বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে। সাবেক ছাত্রদলের নেতারা এ নিয়ে প্রকাশ্যে কিছু না বললেও অনেকে রাজনীতি ছেড়ে দেবেন বলে মনস্থির করেছেন। যা কখনও কাঙ্ক্ষিত হতে পারে না। বরং এসব নেতাকে যুবদলে পদ দিয়ে টিমে রেখে কাজ করানো যেত। আশা করছি, কমিটি পূর্ণাঙ্গ

করার সময় সাবেক ছাত্রদল নেতাদের গুরুত্বপূর্ণ পদ দেয়া হবে। পরে তাদেরও টিমে অন্তর্ভুক্ত করা হবে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে যুবদলের সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু বলেন, কেন্দ্রের আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। বাকি পদের অধিকাংশই ছাত্রদলের সাবেক নেতাদের দেয়া হবে।

ছাত্রদল ও যুবদলকে আরও গতিশীল করার উদ্যোগ

তৃণমূল ঢেলে সাজাতে জেলা সফরে কেন্দ্রীয় নেতারা

দশ সাংগঠনিক বিভাগ সফরে ছাত্রদলের ১০ ও যুবদলের ১১টি টিম * প্রতি জেলার সব ইউনিটে মতবিনিময়
 তারিকুল ইসলাম 
১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ছাত্রদল ও যুবদলকে আরও গতিশীল করার উদ্যোগ নিয়েছে বিএনপির হাইকমান্ড। এ লক্ষ্যে সংগঠন দুটির তৃণমূলকে ঢেলে সাজাতে চায় দলটি। ইতিমধ্যে দশ সাংগঠনিক বিভাগে সফরের জন্য ছাত্রদলের ১০ ও যুবদলের ১১টি টিম গঠন করা হয়েছে। বিএনপির ভ্যানগার্ডখ্যাত ছাত্র সংগঠনটির দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা ইতিমধ্যে সারা দেশে সফর শুরু করেছেন। যুব সংগঠনটির দায়িত্বপ্রাপ্তরাও শিগগির সফরে বের হবেন।

যুবদলের নেতারা জানান, ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা, রাজশাহী, রংপুর, সিলেট, ফরিদপুর, ময়মনসিংহ, কুমিল্লা ও বরিশাল- এই দশ সাংগঠনিক বিভাগ সফর করবেন দায়িত্বপ্রাপ্তরা। এসব বিভাগের প্রতিটি সাংগঠনিক জেলার ইউনিয়ন পর্যন্ত সব ইউনিটে তারা মতবিনিময় করবেন। মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি থাকলে স্থানীয় নেতাদের সঙ্গে বসে নতুন করে আহ্বায়ক কমিটি করার নির্দেশনাও রয়েছে। সফর শেষে প্রতিটি জেলার সার্বিক চিত্র তুলে ধরে কেন্দ্রের কাছে সাংগঠনিক প্রতিবেদন তুলে ধরবেন। সে অনুযায়ী কেন্দ্র পরবর্তী পদক্ষেপ নেবে। ছাত্রদলের নেতারা জানান, টিমের দায়িত্বপ্রাপ্তরা ইতিমধ্যে জেলা সফর করছেন। প্রতিটি জেলার অধীন উপজেলা, কলেজ ও পৌর শাখার নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় করছেন। সফর শেষে তারাও কেন্দ্রের কাছে সাংগঠনিক প্রতিবেদন জমা দেবেন। জানতে চাইলে যুবদলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু যুগান্তরকে বলেন, তৃণমূল পর্যায় থেকে যোগ্য ও জনপ্রিয় নেতৃত্ব তুলে আনতে এবং সংগঠনের গতি আরও শক্তিশালী করতে এসব টিম গঠন করা হয়েছে।

ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন বলেন, তৃণমূলে ছাত্রদলকে শক্তিশালী করতে আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি। আমাদের সাংগঠনিক অভিভাবক দেশনায়ক তারেক রহমানের পরামর্শে সংগঠনের কেন্দ্রীয় নেতাদের নেতৃত্বে গঠিত দশটি সাংগঠনিক টিম ইতিমধ্যে মাঠে নেমেছে। তারা প্রতিটি জেলার তৃণমূলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে সরাসরি কথা বলে কেন্দ্রে সার্বিক চিত্র তুলে ধরবেন।

জানা গেছে, গত জানুয়ারি মাসে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় নেতাদের নিয়ে ১০টি সাংগঠনিক টিম গঠন করে বিএনপির হাইকমান্ড। একজন কেন্দ্রীয় সহসভাপতির নেতৃত্বে গঠিত প্রতিটি টিমে চারজন করে সদস্য রয়েছেন। এর মধ্যে আছেন একজন যুগ্ম সম্পাদক, একজন সহ-সাধারণ সম্পাদক ও সংশ্লিষ্ট বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক। ঢাকা বিভাগে দুটি সাংগঠনিক টিম গঠন করা হয়েছে। একটি ঢাকা মহানগরীর ইউনিটসমূহের দায়িত্বপ্রাপ্ত। অন্য টিমটি মহানগরের বাইরে বিভাগের অধীনস্থ জেলাগুলোর দায়িত্বপ্রাপ্ত। কেন্দ্রীয় সহসভাপতি পার্থদেব মণ্ডলকে এই টিমের প্রধান করা হয়েছে। এ ছাড়া সহসভাপতি জাকিরুল ইসলাম জাকিরকে বরিশাল বিভাগের টিম লিডার, সহসভাপতি মিজানুর রহমান সজীবকে খুলনা বিভাগ, সহসভাপতি মুক্তাদির হোসেন তরুকে ফরিদপুর ও কুমিল্লা বিভাগ, সহসভাপতি মুসাব্বির সাফিকে চট্টগ্রাম বিভাগ, সহসভাপতি ওমর ফারুক কাওসারকে সিলেট বিভাগ, সহসভাপতি সাজিদ হাসান বাবুকে রাজশাহী বিভাগ, সহসভাপতি আশরাফুল আলম ফকির লিংকনকে রংপুর বিভাগ এবং সহসভাপতি মাজেদুল ইসলাম রুম্মনকে ময়মনসিংহ বিভাগের টিম লিডার করা হয়।

রাজশাহী বিভাগের টিম লিডার ছাত্রদলের সহসভাপতি সাজিদ হাসান বাবু বলেন, তৃণমূল পর্যায়ে ছাত্রদলকে শক্তিশালী করতে কেন্দ্রের নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা কাজ করছি। মতবিনিময় সভা করছি। কর্মপরিধি বড় হওয়ায় কাজ শেষ করতে একটু সময় লাগছে। আশা করছি কাজ শেষে দ্রুত সময়েই সাংগঠনিক প্রতিবেদন জমা দিতে পারব। রংপুর বিভাগের টিম লিডার আশরাফুল আলম ফকির লিঙ্কন বলেন, তৃণমূলে কমিটি পুনর্গঠনে প্রতিবন্ধকতাসমূহ চিহ্নিত করার চেষ্টা করছি। পাশাপাশি তৃণমূলের নেতাদের কাছে কেন্দ্রের বার্তাও পৌঁছে দিচ্ছি।

এদিকে যুবদল নেতারা জানান, গত মঙ্গলবার নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক বৈঠকে সংগঠনের কেন্দ্রীয় নেতাদের নেতৃত্বে ১১টি টিম গঠন করা হয়। ১১টি টিমের মধ্যে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণকে ঢেলে সাজাতে একটি টিমকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। এ ছাড়া সাংগঠনিক বিভাগ ঢাকা, ফরিদপুর, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম, খুলনা, রাজশাহী, রংপুর, সিলেট, কুমিল্লা ও বরিশাল প্রতিটি বিভাগের জন্যও একটি করে টিম গঠন করা হয়। এসব টিমকে দু’ভাবে কাজ করতে বলা হয়েছে। প্রথমে ২০ ফেব্রুয়ারির মধ্যে সরেজমিন ওয়ার্ড, ইউনিয়ন, থানা ও পৌর কমিটির সাংগঠনিক প্রতিবেদন প্রস্তুত করতে বলা হয়েছে। এই প্রতিবেদন প্রস্তুতির আগে সংশ্লিষ্ট জেলা ও মহানগর নেতাদের সঙ্গেও মতবিনিময় করতে হবে। দ্বিতীয়ত, ২০ ফেব্রুয়ারির পর থেকে তৃণমূল পর্যায়ের কমিটি গঠনে কার্যকর উদ্যোগ নিতে হবে। সে ক্ষেত্রে কোনো ইউনিটের কমিটি মেয়াদোত্তীর্ণ হলে তা ভেঙে সেখানে নতুন করে আহ্বায়ক কমিটি করতে হবে। টিমের একজন সদস্য যুগান্তরকে বলেন, যারা জনপ্রিয়, সাহসী ও স্বতঃস্ফূর্তভাবে রাজপথে থাকবে, এমন নেতাদের দিয়ে কমিটি গঠন করতে বলা হয়েছে। অযোগ্যদের দিয়ে কমিটি সংখ্যায় বড় না করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে প্রতিটি টিমকে। কোথাও সমস্যার সম্মুখীন হলে উপস্থিত বুদ্ধি দিয়ে তা সমাধান করতে বলা হয়েছে।

তবে যুবদলের কেন্দ্রীয় কমিটি পূর্ণাঙ্গ না করে তৃণমূল সফরের জন্য টিম গঠন নিয়ে অনেকে প্রশ্ন তুলেছেন। সংগঠনটির একজন সহ-সাধারণ সম্পাদক ক্ষোভ প্রকাশ করে যুগান্তরকে বলেন, যুবদলের কেন্দ্রীয় কমিটি পূর্ণাঙ্গ করার পর তৃণমূল সফরের জন্য টিম করা উচিত ছিল। কারণ সদ্য ঘোষিত যুবদলের ১১৪ সদস্যের আংশিক কমিটিতে সাবেক ছাত্রদল নেতাদের স্থান দেয়া হয়নি। যা নিয়ে ইতিমধ্যে বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে। সাবেক ছাত্রদলের নেতারা এ নিয়ে প্রকাশ্যে কিছু না বললেও অনেকে রাজনীতি ছেড়ে দেবেন বলে মনস্থির করেছেন। যা কখনও কাঙ্ক্ষিত হতে পারে না। বরং এসব নেতাকে যুবদলে পদ দিয়ে টিমে রেখে কাজ করানো যেত। আশা করছি, কমিটি পূর্ণাঙ্গ

করার সময় সাবেক ছাত্রদল নেতাদের গুরুত্বপূর্ণ পদ দেয়া হবে। পরে তাদেরও টিমে অন্তর্ভুক্ত করা হবে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে যুবদলের সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু বলেন, কেন্দ্রের আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। বাকি পদের অধিকাংশই ছাত্রদলের সাবেক নেতাদের দেয়া হবে।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন