নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে র‌্যাগিং: ৫ জনের বহিষ্কার প্রত্যাহার দাবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

প্রশাসনিক ভবনে তালা

  ত্রিশাল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম বর্ষের দুই শিক্ষার্থীকে র‌্যাগিংয়ের দায়ে ৫ শিক্ষার্থীর বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার দাবিতে বিক্ষোভ করেছে শিক্ষার্থীরা।
ফাইল ছবি

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম বর্ষের দুই শিক্ষার্থীকে র‌্যাগিংয়ের দায়ে ৫ শিক্ষার্থীর বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার দাবিতে বিক্ষোভ করেছে শিক্ষার্থীরা।

তারা রোববার প্রশাসনিক ভবনে তালা দিয়ে ছাত্র উপদেষ্টা ও তদন্ত কমিটির প্রধান শেখ সুজন আলী, প্রক্টর উজ্জ্বল কুমার প্রধানসহ প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যদের অবরুদ্ধ করে।

১৩ ফেব্র“য়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬৭তম সিন্ডিকেট সভায় অভিযুক্ত শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে বহিষ্কারাদেশের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এতে এক ছাত্রকে তিন বছর ও দুই ছাত্রকে দুই বছর এবং দুই ছাত্রীকে এক বছরের জন্য বহিষ্কার করা হয়।

ক্যাম্পাস সূত্র জানায়, রোববার সকাল সাড়ে ১০টা থেকে বেলা ২টা পর্যন্ত প্রশাসনিক ভবনের গেটে তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভ করে শিক্ষার্থীরা। পরে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের আশ্বাসে তালা খুলে বিক্ষোভ কর্মসূচি স্থগিত করে তারা।

সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ১ম বর্ষের শিক্ষার্থী আল ইমরানকে র‌্যাগিং করার অভিযোগ ওঠে।

অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় স্থানীয় সরকার ও নগর উন্নয়ন বিভাগের ২য় বর্ষের ছাত্র জাকির হোসেনকে তিন বছর, একই বিভাগের তানভীরুল ইসলামকে দুই বছর ও ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ৩য় বর্ষের ছাত্র মেহেদী হাসানকে দুই বছরের জন্য বহিষ্কার করা হয়।

এছাড়া থিয়েটার অ্যান্ড পারফরমেন্স স্টাডিজ বিভাগের ১ম বর্ষের ছাত্রী ফারহানা রহমান লিয়োনাকে র‌্যাগিং করার অভিযোগে সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ২য় বর্ষের ছাত্রী তোয়াবা নুসরাত মীম এবং একই বিভাগের ছাত্রী শায়রা তাসনিম আনিকাকে এক বছরের জন্য বহিষ্কার করা হয়। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক আলোচানা-সমালোচনা চলে। অনেকেই এই বহিষ্কারাদেশ অত্যন্ত কঠোর বলে ক্ষোভ প্রকাশ করে।

বহিষ্কৃত শিক্ষার্থীদের দাবি, তারা কোনো ধরনের র‌্যাগিংয়ের ঘটনা ঘটাননি। তারা কোনো শিক্ষার্থীদের ম্যানার শিখানোর নামে কোনো ধরনের শারীরিক বা মানসিক নির্যাতন চালাননি। সুষ্ঠুভাবে তদন্ত বা যাচাই না করে তাদের অন্যায়ভাবে শাস্তি দেয়া হয়েছে।

বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের দাবি জানান তারা। অভিযুক্ত শিক্ষার্থী মেহেদী হাসান চ্যালেঞ্জ করে বলেন, এই র‌্যাগিংয়ের সঙ্গে তার কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই। তাকে অন্যায়ভাবে এত বড় শাস্তি দেয়া হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. এএইচএম মোস্তাফিজুর রহমান জানান, পাঁচ শিক্ষার্থী তাদের বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার চেয়ে রোববার ক্ষমা চেয়েছে এবং স্মারকলিপি দিয়েছে। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে সিন্ডিকেট সভা ডাকা হবে। সিন্ডিকেটে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক ও ছাত্রবিষয়ক উপদেষ্টা ড. শেখ সুজন আলী জানান, ‘ওরা আপস করার আগেই আমরা তদন্ত রিপোর্ট জমা দিয়েছি। আমরা সুষ্ঠু তদন্ত করেছি। প্রক্টর ড. উজ্জ্বল কুমার প্রধান শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

'কোভিড-১৯' সর্বশেষ আপডেট

# আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ ৫৬ ২৬
বিশ্ব ৯,৩৬,২০৪ ১,৯৪,৫৭৮ ৪৭,২৪৯
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

 
×