একুশে গ্রন্থমেলা: কিশোর-তরুণদের পছন্দ বিজ্ঞান-সায়েন্স ফিকশন
jugantor
একুশে গ্রন্থমেলা: কিশোর-তরুণদের পছন্দ বিজ্ঞান-সায়েন্স ফিকশন

  হক ফারুক আহমেদ  

২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বইমেলা

বিজ্ঞান ও সায়েন্স ফিকশনের বই কিশোর-তরুণদের সবচেয়ে পছন্দের। তাই গ্রন্থমেলায় প্রায় সব স্টল ও প্যাভিলিয়নেই বিজ্ঞান ও সায়েন্স ফিকশনের বই আছে। স্কুলের ছেলে-মেয়েরা তো বটেই, কলেজ এমনকি বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক শিক্ষার্থীও বিজ্ঞান ও সায়েন্স ফিকশনের বই পড়ে।

আর গ্রন্থমেলায় এ ধরনের বইয়ের কাটতিও বেশ। এই ধরনের বই থেকে যেমন বিজ্ঞানবিষয়ক অনেক কিছু জানা যায়, একইভাবে জানা যায় এসব নানা আবিষ্কার ও বিজ্ঞানীকে নিয়ে।

আর সায়েন্স ফিকশন তো এখন সারা বিশ্বেই অন্যতম এক সাহিত্য। বিশ্বের খ্যাতিমান সব লেখকের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে আমাদের লেখকরাও এ ধারার লেখালেখিতে এগিয়ে গেছেন।

সময় প্রকাশন থেকে মুহম্মদ জাফর ইকবালের সায়েন্স ফিকশন ‘গ্লিনা’ কিনেছেন কলেজপড়ুয়া শুভ্র। এ ধরনের বইয়ে কী পান, তা জিজ্ঞেস করতেই বললেন, সায়েন্স ফিকশন ও বিজ্ঞানের বই এক আলাদা জগৎ। আমাদের চিন্তার জগৎকে যেমন প্রসারিত করে ঠিক একইভাবে নতুন নতুন অনেক কিছু জানতে পারি।

সবচেয়ে বড় কথা- এ ধরনের বই মানুষকে তার জগৎ ও আশপাশ সম্পর্কে নতুন করে ভাবতে শেখায়। এবারের গ্রন্থমেলায় বেশকিছু উল্লেখযোগ্য বিজ্ঞান ও সায়েন্স ফিকশনবিষয়ক বই প্রকাশ হয়েছে।

এর মধ্যে তাম্রলিপি থেকে এসেছে মুহম্মদ জাফর ইকবালের সায়েন্স ফিকশন ‘আকাশলীন’, কথা প্রকাশ এনেছে মুহম্মদ মনিরুল হুদার সায়েন্স ফিকশন ‘ছোটন’, অনুপম এনেছে ভবেশ রায়ের ‘বিস্ময়কর রোবটিকনোলজির হাজার তথ্য’, বাংলা একাডেমি থেকে প্রকাশিত উত্তম কুমার সরকারের অর্থনৈতিক প্রাণিবিজ্ঞান, বিবেকানন্দ বিশ্বাসের আর্থোপ্রাডো, তপন চৌধুরীর জীবকোষ, অপরেশ বন্দ্যোপাধ্যায়ের অ্যাডভান্স বায়োলজি, মো. শহীদুর রশীদ ভূঁইয়ার জেনেটিক্যালি মডিফাইড ফসল বর্তমান ও ভবিষ্যৎ, সুব্রত কুমার সাহার পরিবেশবিজ্ঞান, মো. মকবুল হোসেনের মৃত্তিকা ভূগোল, জালালুর রহমানের অর্ধপরিবাহী বিজ্ঞান, এএম হারুন-অর-রশিদের আধুনিক নিউক্লিয়ার পদার্থবিজ্ঞান।

বিজ্ঞান একাডেমি এনেছে মনোয়ারুল আহমেদ বিন সালেহ ও শাহরিয়াজ সরকারের মেধা বিকাশে জ্ঞানবিজ্ঞান, শাহরিয়াজ সরকারের সম্পাদনায় দৈনন্দিন বিজ্ঞান, হাতেখড়ি এনেছে ডা. মো. মোজাম্মেল হোসাইনের ডিজিজ ডায়াগনোসিস অ্যান্ড ট্রিটমেন্ট, অনুপম প্রকাশনী থেকে সৌমিত্র চক্রবর্তীর পৃথিবী, মহাকাশ, প্রাণিজগৎ, বিজ্ঞান ও সংখ্যা, সৌমেন সাহার রেবোটিক ও ন্যানো ফিজিও, শরীফ মাহমুদ ছিদ্দিকীর চিকিৎসায় বিজ্ঞান ও রহস্যে ভরা ব্ল্যাকহোল।

কথাপ্রকাশ থেকে এসেছে ডা. এমএ হালিম খানের ছন্দে ছন্দে পুষ্টিবিজ্ঞান, ডা. মিজানুর রহমানের দুই শতাধিক রোগের কথা, ডা. সজল আশফাকের খাওয়ার জন্য বাঁচি, না-বাঁচার জন্য খাই, ডা. কামরুল হাসানের খাবার যখন খেতে বারণ, অক্ষর প্রকাশনী থেকে সৌমেন সাহার মানব মস্তিষ্কের ও ভয় কী, মহাবিশ্বের রহস্য, রসায়নের রহস্য, এসো বিজ্ঞান শিখি, তরুণ বিজ্ঞানীদের প্রজেক্ট এবং হাতেনাতে বিজ্ঞানের পরীক্ষা, অপরেশ বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিজ্ঞান জিজ্ঞাসা ও ছোটদের সচিত্র বিজ্ঞান কোষ।

এছাড়া এ এ এম জাকারিয়া মিলনের গল্পগ্রন্থ ‘চোখ থাকিতে অন্ধ’ প্রকাশ করেছে অন্বেষা প্রকাশনী, ইছামতি প্রকাশনী থেকে বেরিয়েছে রাশেদুল ইসলামের গল্পগ্রন্থ ‘সাকুরা মৌসুমে’।

মূলমঞ্চের আয়োজন : বিকাল ৪টায় অনুষ্ঠিত হয় সাইমন জাকারিয়া রচিত সাধক কবিদের রচনায় বঙ্গবন্ধুর জীবন ও রাজনীতি গ্রন্থের আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ পাঠ করেন সুমনকুমার দাশ। আলোচনায় অংশ নেন নাসির আহমেদ এবং স্বকৃত নোমান।

সভাপতিত্ব করেন কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা। আলোচকরা বলেন, লোকায়ত বাংলার লোককবি ও সাধকদের সৃষ্টিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সরব উপস্থিতির অত্যন্ত তথ্যমূলক ও বিশ্লেষণধর্মী পাঠ এ গ্রন্থ। বঙ্গবন্ধু বাংলার সংস্কৃতি, প্রকৃতির সঙ্গে নিবিড়ভাবে মিশে আছেন।

বাংলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের বাউল, সাধক ও কবি বাংলার সংস্কৃতিকে যেমন অন্তরে ধারণ এবং চর্চা করেন, তেমনি বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকেও তারা মহিমান্বিত করেছেন তাদের পুথি, সঙ্গীত ও লোককর্মের মাধ্যমে।

কবিকণ্ঠে কবিতা পাঠ করেন কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা, মাহমুদ আল জামান, ইকবাল হাসান, আশরাফ আহমেদ, জাফর আহমদ রাশেদ, ফারুক আহমেদ এবং রাসেল রায়হান। সন্ধ্যায় ছিল শাহাবুদ্দিন আহমেদ দোলনের পরিচালনায় সাংস্কৃতিক সংগঠন ‘সুর সুধা সংগীতায়ন’ এবং শাহ্ সাদিয়া আফরিন মল্লিকের পরিচালনায় হামিবা সাংস্কৃতি একাডেমির পরিবেশনা। সঙ্গীত পরিবেশন করেন লুভা নাহিদ চৌধুরী, সালাউদ্দিন আহমেদ, সাজেদ আকবর, সালমা আকবর, প্রমোদ দত্ত এবং আবিদা রহমান সেতু।

লেখক বলছি : সোমবার লেখক বলছি অনুষ্ঠানে নিজেদের নতুন বই নিয়ে আলোচনা করেন ইকবাল হাসান, ফেরদৌস নাহার, আশরাফ আহমেদ ও জাকির জাফরান।

ভারতীয় হাইকমিশনারের গ্রন্থমেলা পরিদর্শন : বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার রীভা গাঙ্গুলি দাশ বিকালে অমর একুশে গ্রন্থমেলা পরিদর্শন করেন। বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজী তাকে গ্রন্থমেলায় স্বাগত জানান এবং বাংলা একাডেমি প্রকাশিত বঙ্গবন্ধুর তিনটি গ্রন্থ উপহার দেন।

নতুন বই : বাংলা একাডেমির জনসংযোগ উপবিভাগের তথ্য অনুযায়ী, সোমবার গ্রন্থমেলায় নতুন বই এসেছে ২০৭টি। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য বইয়ের মধ্যে বাংলা একাডেমি প্রকাশ করেছে বঙ্গবন্ধুবিষয়ক সাইমন জাকারিয়ার লেখা বই ‘সাধক কবিদের রচনায় বঙ্গবন্ধুর জীবন ও রাজনীতি’, বেঙ্গল পাবলিকেশন্স এনেছে আনোয়ারা সৈয়দ হকের ‘খাদ’, অন্যপ্রকাশ এনেছে হাসনাত আবদুল হাইয়ের ‘কলকাতা রানাঘাট’, কাকলী এনেছে মুহম্মদ জাফর ইকবালের ‘রহস্যময় ব্ল্যাকহোল’, পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স এনেছে হক ফারুক আহমেদের গল্পগ্রন্থ ‘শহরে দেবশিশু’ রাত্রি প্রকাশনী এনেছে আহসান হাবীবের জোকসের বই ‘জাস্ট জোকস’, অনন্যা এনেছে ইমদাদুল হক মিলনের উপন্যাস ‘প্রিয়দর্শিনী’, একই প্রকাশনী থেকে এসেছে ফকির আলমগীরের ‘স্মৃতি আলাপনে মুক্তিযুদ্ধ’, দ্য রয়েল পাবলিশার্স থেকে প্রকাশ হয়েছে আলী ইমামের কিশোর গল্পের বই ‘রুপালি আলো’, অনন্যা প্রকাশ করেছে হাবিবুল্লাহ সিরাজীর কবিতার বই ‘কবিতা সমগ্র-২’, পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স প্রকাশ করেছে কবীর চৌধুরীর ‘পুশকিন ও অন্যান্য’, শিকড় প্রকাশ করেছে রকিব হাসানের কিশোরগল্প ‘ভূত সমগ্র-২’, ডেইলি স্টার বুকস প্রকাশ করেছে সিরাজুল ইসলাম চৌধুরীর সাক্ষাৎকার গ্রন্থ ‘আজ ও আগামীকাল’।

একুশে গ্রন্থমেলা: কিশোর-তরুণদের পছন্দ বিজ্ঞান-সায়েন্স ফিকশন

 হক ফারুক আহমেদ 
২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
বইমেলা
বইমেলা। ছবি: যুগান্তর

বিজ্ঞান ও সায়েন্স ফিকশনের বই কিশোর-তরুণদের সবচেয়ে পছন্দের। তাই গ্রন্থমেলায় প্রায় সব স্টল ও প্যাভিলিয়নেই বিজ্ঞান ও সায়েন্স ফিকশনের বই আছে। স্কুলের ছেলে-মেয়েরা তো বটেই, কলেজ এমনকি বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক শিক্ষার্থীও বিজ্ঞান ও সায়েন্স ফিকশনের বই পড়ে।

আর গ্রন্থমেলায় এ ধরনের বইয়ের কাটতিও বেশ। এই ধরনের বই থেকে যেমন বিজ্ঞানবিষয়ক অনেক কিছু জানা যায়, একইভাবে জানা যায় এসব নানা আবিষ্কার ও বিজ্ঞানীকে নিয়ে।

আর সায়েন্স ফিকশন তো এখন সারা বিশ্বেই অন্যতম এক সাহিত্য। বিশ্বের খ্যাতিমান সব লেখকের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে আমাদের লেখকরাও এ ধারার লেখালেখিতে এগিয়ে গেছেন।

সময় প্রকাশন থেকে মুহম্মদ জাফর ইকবালের সায়েন্স ফিকশন ‘গ্লিনা’ কিনেছেন কলেজপড়ুয়া শুভ্র। এ ধরনের বইয়ে কী পান, তা জিজ্ঞেস করতেই বললেন, সায়েন্স ফিকশন ও বিজ্ঞানের বই এক আলাদা জগৎ। আমাদের চিন্তার জগৎকে যেমন প্রসারিত করে ঠিক একইভাবে নতুন নতুন অনেক কিছু জানতে পারি।

সবচেয়ে বড় কথা- এ ধরনের বই মানুষকে তার জগৎ ও আশপাশ সম্পর্কে নতুন করে ভাবতে শেখায়। এবারের গ্রন্থমেলায় বেশকিছু উল্লেখযোগ্য বিজ্ঞান ও সায়েন্স ফিকশনবিষয়ক বই প্রকাশ হয়েছে।

এর মধ্যে তাম্রলিপি থেকে এসেছে মুহম্মদ জাফর ইকবালের সায়েন্স ফিকশন ‘আকাশলীন’, কথা প্রকাশ এনেছে মুহম্মদ মনিরুল হুদার সায়েন্স ফিকশন ‘ছোটন’, অনুপম এনেছে ভবেশ রায়ের ‘বিস্ময়কর রোবটিকনোলজির হাজার তথ্য’, বাংলা একাডেমি থেকে প্রকাশিত উত্তম কুমার সরকারের অর্থনৈতিক প্রাণিবিজ্ঞান, বিবেকানন্দ বিশ্বাসের আর্থোপ্রাডো, তপন চৌধুরীর জীবকোষ, অপরেশ বন্দ্যোপাধ্যায়ের অ্যাডভান্স বায়োলজি, মো. শহীদুর রশীদ ভূঁইয়ার জেনেটিক্যালি মডিফাইড ফসল বর্তমান ও ভবিষ্যৎ, সুব্রত কুমার সাহার পরিবেশবিজ্ঞান, মো. মকবুল হোসেনের মৃত্তিকা ভূগোল, জালালুর রহমানের অর্ধপরিবাহী বিজ্ঞান, এএম হারুন-অর-রশিদের আধুনিক নিউক্লিয়ার পদার্থবিজ্ঞান।

বিজ্ঞান একাডেমি এনেছে মনোয়ারুল আহমেদ বিন সালেহ ও শাহরিয়াজ সরকারের মেধা বিকাশে জ্ঞানবিজ্ঞান, শাহরিয়াজ সরকারের সম্পাদনায় দৈনন্দিন বিজ্ঞান, হাতেখড়ি এনেছে ডা. মো. মোজাম্মেল হোসাইনের ডিজিজ ডায়াগনোসিস অ্যান্ড ট্রিটমেন্ট, অনুপম প্রকাশনী থেকে সৌমিত্র চক্রবর্তীর পৃথিবী, মহাকাশ, প্রাণিজগৎ, বিজ্ঞান ও সংখ্যা, সৌমেন সাহার রেবোটিক ও ন্যানো ফিজিও, শরীফ মাহমুদ ছিদ্দিকীর চিকিৎসায় বিজ্ঞান ও রহস্যে ভরা ব্ল্যাকহোল।

কথাপ্রকাশ থেকে এসেছে ডা. এমএ হালিম খানের ছন্দে ছন্দে পুষ্টিবিজ্ঞান, ডা. মিজানুর রহমানের দুই শতাধিক রোগের কথা, ডা. সজল আশফাকের খাওয়ার জন্য বাঁচি, না-বাঁচার জন্য খাই, ডা. কামরুল হাসানের খাবার যখন খেতে বারণ, অক্ষর প্রকাশনী থেকে সৌমেন সাহার মানব মস্তিষ্কের ও ভয় কী, মহাবিশ্বের রহস্য, রসায়নের রহস্য, এসো বিজ্ঞান শিখি, তরুণ বিজ্ঞানীদের প্রজেক্ট এবং হাতেনাতে বিজ্ঞানের পরীক্ষা, অপরেশ বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিজ্ঞান জিজ্ঞাসা ও ছোটদের সচিত্র বিজ্ঞান কোষ।

এছাড়া এ এ এম জাকারিয়া মিলনের গল্পগ্রন্থ ‘চোখ থাকিতে অন্ধ’ প্রকাশ করেছে অন্বেষা প্রকাশনী, ইছামতি প্রকাশনী থেকে বেরিয়েছে রাশেদুল ইসলামের গল্পগ্রন্থ ‘সাকুরা মৌসুমে’।

মূলমঞ্চের আয়োজন : বিকাল ৪টায় অনুষ্ঠিত হয় সাইমন জাকারিয়া রচিত সাধক কবিদের রচনায় বঙ্গবন্ধুর জীবন ও রাজনীতি গ্রন্থের আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ পাঠ করেন সুমনকুমার দাশ। আলোচনায় অংশ নেন নাসির আহমেদ এবং স্বকৃত নোমান।

সভাপতিত্ব করেন কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা। আলোচকরা বলেন, লোকায়ত বাংলার লোককবি ও সাধকদের সৃষ্টিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সরব উপস্থিতির অত্যন্ত তথ্যমূলক ও বিশ্লেষণধর্মী পাঠ এ গ্রন্থ। বঙ্গবন্ধু বাংলার সংস্কৃতি, প্রকৃতির সঙ্গে নিবিড়ভাবে মিশে আছেন।

বাংলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের বাউল, সাধক ও কবি বাংলার সংস্কৃতিকে যেমন অন্তরে ধারণ এবং চর্চা করেন, তেমনি বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকেও তারা মহিমান্বিত করেছেন তাদের পুথি, সঙ্গীত ও লোককর্মের মাধ্যমে।

কবিকণ্ঠে কবিতা পাঠ করেন কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা, মাহমুদ আল জামান, ইকবাল হাসান, আশরাফ আহমেদ, জাফর আহমদ রাশেদ, ফারুক আহমেদ এবং রাসেল রায়হান। সন্ধ্যায় ছিল শাহাবুদ্দিন আহমেদ দোলনের পরিচালনায় সাংস্কৃতিক সংগঠন ‘সুর সুধা সংগীতায়ন’ এবং শাহ্ সাদিয়া আফরিন মল্লিকের পরিচালনায় হামিবা সাংস্কৃতি একাডেমির পরিবেশনা। সঙ্গীত পরিবেশন করেন লুভা নাহিদ চৌধুরী, সালাউদ্দিন আহমেদ, সাজেদ আকবর, সালমা আকবর, প্রমোদ দত্ত এবং আবিদা রহমান সেতু।

লেখক বলছি : সোমবার লেখক বলছি অনুষ্ঠানে নিজেদের নতুন বই নিয়ে আলোচনা করেন ইকবাল হাসান, ফেরদৌস নাহার, আশরাফ আহমেদ ও জাকির জাফরান।

ভারতীয় হাইকমিশনারের গ্রন্থমেলা পরিদর্শন : বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার রীভা গাঙ্গুলি দাশ বিকালে অমর একুশে গ্রন্থমেলা পরিদর্শন করেন। বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজী তাকে গ্রন্থমেলায় স্বাগত জানান এবং বাংলা একাডেমি প্রকাশিত বঙ্গবন্ধুর তিনটি গ্রন্থ উপহার দেন।

নতুন বই : বাংলা একাডেমির জনসংযোগ উপবিভাগের তথ্য অনুযায়ী, সোমবার গ্রন্থমেলায় নতুন বই এসেছে ২০৭টি। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য বইয়ের মধ্যে বাংলা একাডেমি প্রকাশ করেছে বঙ্গবন্ধুবিষয়ক সাইমন জাকারিয়ার লেখা বই ‘সাধক কবিদের রচনায় বঙ্গবন্ধুর জীবন ও রাজনীতি’, বেঙ্গল পাবলিকেশন্স এনেছে আনোয়ারা সৈয়দ হকের ‘খাদ’, অন্যপ্রকাশ এনেছে হাসনাত আবদুল হাইয়ের ‘কলকাতা রানাঘাট’, কাকলী এনেছে মুহম্মদ জাফর ইকবালের ‘রহস্যময় ব্ল্যাকহোল’, পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স এনেছে হক ফারুক আহমেদের গল্পগ্রন্থ ‘শহরে দেবশিশু’ রাত্রি প্রকাশনী এনেছে আহসান হাবীবের জোকসের বই ‘জাস্ট জোকস’, অনন্যা এনেছে ইমদাদুল হক মিলনের উপন্যাস ‘প্রিয়দর্শিনী’, একই প্রকাশনী থেকে এসেছে ফকির আলমগীরের ‘স্মৃতি আলাপনে মুক্তিযুদ্ধ’, দ্য রয়েল পাবলিশার্স থেকে প্রকাশ হয়েছে আলী ইমামের কিশোর গল্পের বই ‘রুপালি আলো’, অনন্যা প্রকাশ করেছে হাবিবুল্লাহ সিরাজীর কবিতার বই ‘কবিতা সমগ্র-২’, পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স প্রকাশ করেছে কবীর চৌধুরীর ‘পুশকিন ও অন্যান্য’, শিকড় প্রকাশ করেছে রকিব হাসানের কিশোরগল্প ‘ভূত সমগ্র-২’, ডেইলি স্টার বুকস প্রকাশ করেছে সিরাজুল ইসলাম চৌধুরীর সাক্ষাৎকার গ্রন্থ ‘আজ ও আগামীকাল’।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : বইমেলা-২০২০