‘সাময়িক সমস্যা’ সবাইকে মেনে নেয়ার আহ্বান জানাচ্ছি
jugantor
বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধি প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের
‘সাময়িক সমস্যা’ সবাইকে মেনে নেয়ার আহ্বান জানাচ্ছি
বন্ধু ভারতকে বাদ দিয়ে মুজিববর্ষ উদযাপন করতে পারি না

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ওবায়দুল কাদের

বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধিকে ‘সাময়িক সমস্যা’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, দীর্ঘমেয়াদি সমস্যা সমাধানের জন্য বিদ্যুতের সামান্য দাম বাড়ানো হয়েছে। এই সমস্যা বেশি দিন থাকবে না। এই সাময়িক সমস্যা সবাইকে মেনে নেয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।

শুক্রবার বিকালে রাজধানীর হাতিরপুলে ফিকামলি সেন্টারে শহীদ সেলিম-দেলোয়ার দিবসের আলোচনা সভায় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, মুজিববর্ষে আমরা শতভাগ ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেব। বিদ্যুৎ উৎপাদনের খরচের সঙ্গে সমন্বয় করার জন্য সামান্য দাম বাড়ানো হয়েছে। বিদ্যুৎ প্রাপ্তি সহজলভ্য করার জন্যই এই সাময়িক দাম বাড়ানো। এতে হয়তো সাময়িক কষ্ট হতে পারে। এই দাম বাড়ানোর পরও সরকারকে বিশাল অংকের টাকা ভর্তুকি দিতে হবে।

তিনি বলেন, বিএনপির আমলে ঘণ্টার পর ঘণ্টা বিদ্যুৎ থাকত না। সেই দুর্ভোগ এখন আর নেই। ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ সহজলভ্য করার জন্যই এই সামান্য দাম বাড়ানো হয়েছে। দীর্ঘমেয়াদি সংকট সমাধানের এই সাময়িক সমস্যাটা আশা করি সবাই মেনে নেবেন।

ডেঙ্গু মোকাবেলায় এবার আগেভাগেই দুই মেয়রকে প্রস্তুতি নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। সেই প্রসঙ্গ তুলে ধরে সেতুমন্ত্রী বলেন, গত বছর ডেঙ্গুর প্রকোপ দেখা দিয়েছিল। আবারও এ ধরনের সমস্যা যাতে না হয়, এজন্য ঢাকার নবনির্বাচিত দুই মেয়ের শপথের সময় প্রস্তুতি নেয়ার কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এজন্য প্রধানমন্ত্রী বলেছেন ভোট যেন মশায় না খায়। আশা করি মেয়ররা প্রস্তুতি নেবেন। জনগণকে প্রস্তুতি নেয়াবেন।

এছাড়া মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে গড়ে ওঠা বন্ধু রাষ্ট্র ভারতকে বাদ দিয়ে আমরা মুজিববর্ষ উদযাপন করতে পারি না- এমন মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, প্রতিবেশী দেশ ভারতের দিল্লি শহরে অভ্যন্তরীণ সমস্যা চলছে। ভারতের অভ্যন্তরীণ সমস্যা হলেও প্রতিবেশীর বাড়িতে আগুন লাগলে পাশের ঘরে আঁচ লাগে। ভারতের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক খুবই ভালো। আমরা আহ্বান জানাই আলাপ-আলোচনা করে এই অভ্যন্তরীণ সমস্যা সমাধান করার।

এ প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সময় রক্তের অক্ষরে যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক তৈরি হয়েছে, সেটা আমরা বিসর্জন দিতে পারি না। এ বছর আমরা মুজিববর্ষ উদযাপন করব। মুজিববর্ষে ভারতকে যদি বাদ দেই, সেটা অকৃতজ্ঞতা দেখানো হবে। মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে গড়ে ওঠা বন্ধু ভারতকে বাদ দিয়ে আমরা মুজিববর্ষ পালন করতে পারি না। আমরা আহ্বান জানাই তারা আলোচনা করে দ্রুত এই চলমান সমস্যা সমাধান করবে। সভায় ওবায়দুল কাদের অপকর্মের বিরুদ্ধে চলমান শুদ্ধি অভিযানে সবাইকে সহযোগিতা করার অনুরোধ জানান। তিনি বলেন, শেখ হাসিনা অপকর্মের সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে শুদ্ধি অভিযান শুরু করেছেন। তিনি দলের লোককে ছাড় দিচ্ছেন না। এই শুদ্ধি অভিযানে সহযোগিতা করার জন্য আমি সবাইকে অনুরোধ করছি। শহীদ সেলিম-দেলোয়ারের রাজনৈতিক সহযোদ্ধা ড. মো. আবদুল ওয়াদুদের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক, মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সভাপতি রুহুল আমিন, আইনজীবী নেতা মমতাজ উদ্দিন মেহেদী প্রমুখ।

বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধি প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের

‘সাময়িক সমস্যা’ সবাইকে মেনে নেয়ার আহ্বান জানাচ্ছি

বন্ধু ভারতকে বাদ দিয়ে মুজিববর্ষ উদযাপন করতে পারি না
 যুগান্তর রিপোর্ট 
২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
ওবায়দুল কাদের
ওবায়দুল কাদের।ফাইল ছবি

বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধিকে ‘সাময়িক সমস্যা’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, দীর্ঘমেয়াদি সমস্যা সমাধানের জন্য বিদ্যুতের সামান্য দাম বাড়ানো হয়েছে। এই সমস্যা বেশি দিন থাকবে না। এই সাময়িক সমস্যা সবাইকে মেনে নেয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।

শুক্রবার বিকালে রাজধানীর হাতিরপুলে ফিকামলি সেন্টারে শহীদ সেলিম-দেলোয়ার দিবসের আলোচনা সভায় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, মুজিববর্ষে আমরা শতভাগ ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেব। বিদ্যুৎ উৎপাদনের খরচের সঙ্গে সমন্বয় করার জন্য সামান্য দাম বাড়ানো হয়েছে। বিদ্যুৎ প্রাপ্তি সহজলভ্য করার জন্যই এই সাময়িক দাম বাড়ানো। এতে হয়তো সাময়িক কষ্ট হতে পারে। এই দাম বাড়ানোর পরও সরকারকে বিশাল অংকের টাকা ভর্তুকি দিতে হবে।

তিনি বলেন, বিএনপির আমলে ঘণ্টার পর ঘণ্টা বিদ্যুৎ থাকত না। সেই দুর্ভোগ এখন আর নেই। ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ সহজলভ্য করার জন্যই এই সামান্য দাম বাড়ানো হয়েছে। দীর্ঘমেয়াদি সংকট সমাধানের এই সাময়িক সমস্যাটা আশা করি সবাই মেনে নেবেন।

ডেঙ্গু মোকাবেলায় এবার আগেভাগেই দুই মেয়রকে প্রস্তুতি নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। সেই প্রসঙ্গ তুলে ধরে সেতুমন্ত্রী বলেন, গত বছর ডেঙ্গুর প্রকোপ দেখা দিয়েছিল। আবারও এ ধরনের সমস্যা যাতে না হয়, এজন্য ঢাকার নবনির্বাচিত দুই মেয়ের শপথের সময় প্রস্তুতি নেয়ার কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এজন্য প্রধানমন্ত্রী বলেছেন ভোট যেন মশায় না খায়। আশা করি মেয়ররা প্রস্তুতি নেবেন। জনগণকে প্রস্তুতি নেয়াবেন।

এছাড়া মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে গড়ে ওঠা বন্ধু রাষ্ট্র ভারতকে বাদ দিয়ে আমরা মুজিববর্ষ উদযাপন করতে পারি না- এমন মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, প্রতিবেশী দেশ ভারতের দিল্লি শহরে অভ্যন্তরীণ সমস্যা চলছে। ভারতের অভ্যন্তরীণ সমস্যা হলেও প্রতিবেশীর বাড়িতে আগুন লাগলে পাশের ঘরে আঁচ লাগে। ভারতের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক খুবই ভালো। আমরা আহ্বান জানাই আলাপ-আলোচনা করে এই অভ্যন্তরীণ সমস্যা সমাধান করার।

এ প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সময় রক্তের অক্ষরে যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক তৈরি হয়েছে, সেটা আমরা বিসর্জন দিতে পারি না। এ বছর আমরা মুজিববর্ষ উদযাপন করব। মুজিববর্ষে ভারতকে যদি বাদ দেই, সেটা অকৃতজ্ঞতা দেখানো হবে। মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে গড়ে ওঠা বন্ধু ভারতকে বাদ দিয়ে আমরা মুজিববর্ষ পালন করতে পারি না। আমরা আহ্বান জানাই তারা আলোচনা করে দ্রুত এই চলমান সমস্যা সমাধান করবে। সভায় ওবায়দুল কাদের অপকর্মের বিরুদ্ধে চলমান শুদ্ধি অভিযানে সবাইকে সহযোগিতা করার অনুরোধ জানান। তিনি বলেন, শেখ হাসিনা অপকর্মের সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে শুদ্ধি অভিযান শুরু করেছেন। তিনি দলের লোককে ছাড় দিচ্ছেন না। এই শুদ্ধি অভিযানে সহযোগিতা করার জন্য আমি সবাইকে অনুরোধ করছি। শহীদ সেলিম-দেলোয়ারের রাজনৈতিক সহযোদ্ধা ড. মো. আবদুল ওয়াদুদের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক, মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের সভাপতি রুহুল আমিন, আইনজীবী নেতা মমতাজ উদ্দিন মেহেদী প্রমুখ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন