মামলায় জড়ানোর একদিন পর নিখোঁজ সাংবাদিক কাজল
jugantor
মামলায় জড়ানোর একদিন পর নিখোঁজ সাংবাদিক কাজল

  যুগান্তর রিপোর্ট  

১৩ মার্চ ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নিখোঁজ সাংবাদিক কাজল

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলায় জড়ানোর একদিন পর নিখোঁজ হয়েছেন দৈনিক পক্ষকাল পত্রিকার সম্পাদক শফিকুল ইসলাম কাজল। মামলার ৩২ আসামির মধ্যে তিনি একজন। এ ঘটনায় বুধবার চকবাজার থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন শফিকুল ইসলামের স্ত্রী জুলিয়া ফেরদৌসী নয়ন।

ডায়েরিতে ফেরদৌসী নয়ন বলেন, প্রতিদিনের ন্যায় ১০ মার্চ দুপুর আড়াইটার দিকে শফিকুল ইসলাম লালবাগের বাসা থেকে মোটরসাইকেল নিয়ে বের হন। এরপর থেকে তার আর খোঁজ নেই।

নিখোঁজ সাংবাদিকের ছেলে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মনোরম পলক যুগান্তরকে বলেন, প্রতিদিনের ন্যায় বাবা বাসা থেকে বের হন। এরপর থেকে তার সঙ্গে আমাদের কোনো ধরনের যোগাযোগ নেই। তার নম্বরও বন্ধ রয়েছে।

তার বাবার নামে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি মামলা হয়েছিল। জিডির তদন্ত কর্মকর্তা চকবাজার থানার উপ-পরিদর্শক মুন্সী আবদুল লোকমান যুগান্তরকে বলেন, নিখোঁজের ঘটনায় সাধারণ ডায়েরি হয়েছে। আমরা তাকে খুঁজে বের করার জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি। ডিবিও আমাদের সহযোগিতা করছে।

এর আগে সোমবার রাতে যুব মহিলা লীগের বহিষ্কৃত নেত্রী শামীমা নূর পাপিয়াকে নিয়ে সংবাদ প্রকাশের জেরে মানহানি হয়েছে- এমন অভিযোগে শেরে বাংলা নগর থানায় মামলা করেন সংসদ সদস্য সাইফুজ্জামান শিখর। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দায়ের করা ওই মামলায় মানবজমিনের সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী, প্রতিবেদক আল আমীনসহ ৩২ জনকে আসামি করা হয়।

মামলাটিতে তিন নম্বর আসামি ছিলেন শফিকুল ইসলাম কাজল। এ বিষয়ে চকবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মওদুদ হাওলাদার যুগান্তরকে বলেন, শফিকুলের ব্যবহৃত দুটি ফোনই বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে। তাকে খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে।

মামলায় জড়ানোর একদিন পর নিখোঁজ সাংবাদিক কাজল

 যুগান্তর রিপোর্ট 
১৩ মার্চ ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
নিখোঁজ সাংবাদিক কাজল
ছবি: সংগৃহীত

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলায় জড়ানোর একদিন পর নিখোঁজ হয়েছেন দৈনিক পক্ষকাল পত্রিকার সম্পাদক শফিকুল ইসলাম কাজল। মামলার ৩২ আসামির মধ্যে তিনি একজন। এ ঘটনায় বুধবার চকবাজার থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন শফিকুল ইসলামের স্ত্রী জুলিয়া ফেরদৌসী নয়ন।

ডায়েরিতে ফেরদৌসী নয়ন বলেন, প্রতিদিনের ন্যায় ১০ মার্চ দুপুর আড়াইটার দিকে শফিকুল ইসলাম লালবাগের বাসা থেকে মোটরসাইকেল নিয়ে বের হন। এরপর থেকে তার আর খোঁজ নেই।

নিখোঁজ সাংবাদিকের ছেলে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মনোরম পলক যুগান্তরকে বলেন, প্রতিদিনের ন্যায় বাবা বাসা থেকে বের হন। এরপর থেকে তার সঙ্গে আমাদের কোনো ধরনের যোগাযোগ নেই। তার নম্বরও বন্ধ রয়েছে।

তার বাবার নামে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি মামলা হয়েছিল। জিডির তদন্ত কর্মকর্তা চকবাজার থানার উপ-পরিদর্শক মুন্সী আবদুল লোকমান যুগান্তরকে বলেন, নিখোঁজের ঘটনায় সাধারণ ডায়েরি হয়েছে। আমরা তাকে খুঁজে বের করার জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি। ডিবিও আমাদের সহযোগিতা করছে।

এর আগে সোমবার রাতে যুব মহিলা লীগের বহিষ্কৃত নেত্রী শামীমা নূর পাপিয়াকে নিয়ে সংবাদ প্রকাশের জেরে মানহানি হয়েছে- এমন অভিযোগে শেরে বাংলা নগর থানায় মামলা করেন সংসদ সদস্য সাইফুজ্জামান শিখর। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দায়ের করা ওই মামলায় মানবজমিনের সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী, প্রতিবেদক আল আমীনসহ ৩২ জনকে আসামি করা হয়।

মামলাটিতে তিন নম্বর আসামি ছিলেন শফিকুল ইসলাম কাজল। এ বিষয়ে চকবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মওদুদ হাওলাদার যুগান্তরকে বলেন, শফিকুলের ব্যবহৃত দুটি ফোনই বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে। তাকে খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন