হোম কোয়ারেন্টিন নির্দেশনা অমান্য: ৩১ জনকে তিন লাখ টাকা জরিমানা

ভোলায় শিক্ষার্থীদের রাস্তায় দেখা গেলে অভিভাবককে জরিমানা * ফতুল্লায় দুই কমিউনিটি সেন্টারকে ৫৩ হাজার টাকা দণ্ড

  যুগান্তর ডেস্ক ২১ মার্চ ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে বিদেশফেরত ও তাদের সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশনা দিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। কিন্তু কেউ কেউ সেই নির্দেশ উপেক্ষা করে বাইরে ঘোরাফেরা করছেন।

অনেকে এ সময় বিয়ের পিঁড়িতেও বসছেন। শুক্রবার দেশের বিভিন্ন স্থানে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে নির্দেশনা অমান্যকারী ৩১ জনকে অন্তত তিন লাখ টাকা জরিমানা করেছেন। এছাড়া নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বিয়ের অনুষ্ঠান করায় দুটি কমিউনিটি সেন্টারকে ৫৩ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। ভোলায় শিক্ষার্থীদের রাস্তায় দেখা গেলে অভিভাবকদের জরিমানা করার ঘোষণা দিয়েছেন জেলা প্রশাসক।

বিভিন্ন জেলা-উপজেলায় আরও কয়েকশ’ লোককে হোম কোয়ারেন্টিনে নেয়া হয়েছে। এদিকে নতুন করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সচেতনতামূলক আলোচনা সভা, লিফলেট বিতরণ ও জুমার নামাজে বিশেষ দোয়াসহ নানা কর্মসূচি পালিত হয়েছে বিভিন্ন এলাকায়। যুগান্তর রিপোর্ট, ব্যুরো ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

ঝালকাঠি ও রাজাপুর : রাজাপুরে হোম কোয়ারেন্টিনে না থাকায় ৩ প্রবাসীকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। জেলায় ৮৫ জন হোম কোয়ারেন্টিনে।

ভোলা ও চরফ্যাশন : শিক্ষার্থীদের রাস্তায় দেখা গেলে অভিভাবকদের জরিমানা করা হবে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাসুদ আলম ছিদ্দিক। চরফ্যাশনে দুই কুয়েত ও সৌদি প্রবাসীকে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

বরিশাল ও আগৈলঝাড়া : নগরীর মুন্সি গ্যারেজ এলাকায় এক ফ্রান্স প্রবাসীকে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। ২৪ ঘণ্টায় বরিশাল বিভাগে কোয়ারেন্টিনে নেয়া হয়েছে ৩৭২ জনকে। আগৈলঝাড়ায় ৪৩০ জন বিদেশ ফেরতের মধ্যে হোম কোয়ারেন্টিনে মাত্র ৮ জন।

যশোর ও অভয়নগর : মালয়েশিয়া ও মালদ্বীপ থেকে আসা দুজনকে ১৫শ’ টাকা জরিমানা ও সতর্ক করা হয়েছে। তিনি কোয়ারেন্টিন নির্দেশনা না মেনে বাইরে ঘোরাফেরা করছিলেন। অভয়নগরে বিদেশফেরত ৩২ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে নেয়া হয়েছে।

মৌলভীবাজার ও শ্রীমঙ্গল : বৃহস্পতিবার রাতে বাহরাইনফেরত দুই ব্যক্তিকে ৭ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। শুক্রবার পর্যন্ত জেলায় হোম কোয়ারেন্টিনে ৩১৭ জন।

ফরিদপুর, বোয়ালমারী, নগরকান্দা, চরভদ্রাসন ও ভাঙ্গা : নগরকান্দায় বিদেশেফেরত ৪ জনকে ৩৫ হাজার টাকা, চরভদ্রাসনে দুজনকে ১১ হাজার টাকা ও বোয়ালমারীতে মালয়েশিয়াফেরত একজনকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। জেলায় ৪৬৩ জন হোম কোয়ারেন্টিনে।

সিংড়া (নাটোর) : হোম কোয়ারেন্টিন নির্দেশনা অমান্যকারী ব্যক্তিদের বাড়ি বাড়ি ঝটিকা অভিযান চালান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাসরিন বানু। এ সময় কলম সূর্যপুর গ্রামে বিদেশফেরত একজনকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

কালিগঞ্জ (সাতক্ষীরা) : মালয়েশিয়াফেরত এক যুবককে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়া সরকারি নির্দেশ অমান্য করে কোচিং করানোয় কালিগঞ্জ পাইলট মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক খান আবুল বাশারকে ১ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

সোনারগাঁ ও রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) : শুক্রবার সোনারগাঁয়ে ইতালি ফেরত ৩ জনকে ৭০ হাজার টাকা এবং রূপগঞ্জ উপজেলার রূপসী এলাকায় আরেক ইতালি প্রবাসীকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

নেত্রকোনা ও কেন্দুয়া : কোয়ারেন্টিনে না থেকে এলাকার হাট-বাজারে অবাধে ঘোরাফেরা এক প্রবাসীকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। জেলায় বিদেশফেরত ৯১৫ জনের মধ্যে হোম কোয়ারেন্টিনে মাত্র ৫৯ জন।

শ্রীনগর (মুন্সীগঞ্জ) : শ্রীনগরে ইতালি ও লন্ডন প্রবাসী ২ ছেলেকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখতে অসম্মতি জানানোয় বাবাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

রায়পুর (লক্ষ্মীপুর) : সোনাপুর ইউনিয়নের চরবগা গ্রামে এক ওমান প্রবাসীকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

আরও যেসব স্থানে জরিমানা : ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে একজনকে ১০ হাজার টাকা, মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ীতে একজনকে ৫ হাজার টাকা, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় একজনকে ১৫ হাজার টাকা, শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জে দুজনকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়া নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় বিয়ের অনুষ্ঠান চলায় দুই কমিউনিটি সেন্টারকে ৫৩ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

সিলেট : বিভাগের চার জেলায় বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে শুক্রবার সকাল ৮টা পর্যন্ত নতুন করে ৩৩২ জন হোম কোয়ারেন্টিনে গেছেন। এর মধ্যে সিলেটে ১৫৪, মৌলভীবাজারে ১০১, হবিগঞ্জে ৭৯ ও সুনামগঞ্জে ৪৮ জন। সিলেটে হোম কোয়ারেন্টিন ও বাজার মনিটরিংয়ে ২০ টিম কাজ করছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া : ২৫৫ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। জেলায় ৩৭ আইসোলেশন বেড ও কোয়ারেন্টিনের জন্য ১শ’ বেড প্রস্তুত রাখা হয়েছে। বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের পক্ষ থেকে করোনা প্রতিরোধে সচেতনতামূলক লিফলেট বিলি করা হচ্ছে।

শেরপুর : জুমার নামাজের পর জেলার প্রতিটি মসজিদের সামনে মুসল্লিদের মধ্যে লিফলেট বিতরণ করেছে জেলা পুলিশ। জেলায় হোম কোয়ারেন্টিনে ৩১ জন।

মেহেরপুর : নতুন ৩৬ প্রবাসীসহ ৮৬ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। শুক্রবার বিকালে সিভিল সার্জন ডা. নাসির উদ্দীন এ তথ্য জানান।

চট্টগ্রাম : বিদেশফেরত আরও ৫১৮ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়েছে। শুক্রবার সকাল ৮টা পর্যন্ত পূর্ববর্তী ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আসা এসব যাত্রীকে কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়। করোনা প্রতিরোধে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ নানা সচেতনতামূলক কর্মসূচি পালন করেছে।

মানিকগঞ্জ : জেলায় ৪৪০ প্রবাসীকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। বৃহস্পতিবার এ সংখ্যা ছিল ৪০৪ জন।

কুড়িগ্রাম : গেল ২৪ ঘণ্টায় হোম কোয়ারেন্টিনে গেছেন ৬৭ জন। এ নিয়ে মোট হোম কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন ৯৭ জন বিদেশফেরত।

হবিগঞ্জ : জেলায় বিভিন্ন দেশ থেকে ফিরেছেন ২ হাজার ৫৯৫ জন। কিন্তু তাদের অনেকেই নির্দেশনা মানছেন না। এদের মধ্যে হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন মাত্র ১২৭ জন।

জয়পুরহাট : জেলায় শুক্রবার পর্যন্ত ৫৫ জন প্রবাসী হোম কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন। অপরদিকে কোয়ারেন্টিনমুক্ত ঘোষণা করা হয়েছে ৯ প্রবাসীকে।

নড়াইল : জেলায় ১০৯ জন হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন। শুক্রবার বেলা ১১টায় করোনা প্রতিরোধে সচেতনতামূলক আলোচনা সভায় এ তথ্য জানান জেলা প্রশাসক আনজুমান আরা।

হাজীগঞ্জ (চাঁদপুর) : শুক্রবার জুমার নামাজের পর বিভিন্ন মসজিদে করোনা প্রতিরোধে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়াও উপজেলার সবকটি মসজিদে বিশেষ দোয়া করা হয়।

রাজবাড়ী : গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় ১০৫ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে নেয়া হয়েছে। পাঁচ উপজেলায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোতে ৫টি করে আইসোলেশন ইউনিট প্রস্তুত করা হয়েছে।

খুলনা : শুক্রবার পর্যন্ত হোম কোয়ারেন্টিনে গেছেন ১৯৮ জন। এরা সিঙ্গাপুর, কোরিয়া, ওমান, মরিসাস, ইতালি, ভারত, মালয়েশিয়া ও জাপান থেকে সম্প্রতি দেশে ফিরেছেন।

পিরোজপুর ও স্বরূপকাঠি : জেলা হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত সন্দেহে একজনকে আইসোলেসন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত ৩টার দিকে তাকে ভর্তি করা হয় বলে জানান হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. নিজাম উদ্দিন।

কুমিল্লা : শুক্রবার জেলার সব মসজিদে বিশেষ দোয়া ও সচেতনতামূলক আলোচনা করা হয়। জেলার ৬১০ প্রবাসীকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে।

শরীয়তপুর : বিদেশফেরত ২ হাজার ৮৩৮ জন, এর মধ্যে ২৮২ জন হোম কোয়ারেন্টিনে। বাকিদের খোঁজে মাঠে নেমেছে জেলা পুলিশ।

গাইবান্ধা : শুক্রবার সকাল পর্যন্ত জেলার বিভিন্ন স্থানে বিদেশফেরত ৯৩ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। এ সময়ের মধ্যে নতুন করে নেয়া হয়েছে ২০ জনকে। আর ১৪ দিন অতিক্রম হওয়ায় ১১ জনকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ : শুক্রবার পর্যন্ত ৩৭১ জন বিদেশফেরতকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত জেলায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তের কোনো খবর পাওয়া যায়নি।

বগুড়া : শুক্রবার বিকাল পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় ৮০ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। এ নিয়ে গত কয়েকদিনে মোট ৩০৮ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হল।

টাঙ্গাইল : টাঙ্গাইলের যৌনপল্লী ৩১ মার্চ পর্যন্ত শাটডাউনের নির্দেশ দিয়েছে জেলা প্রশাসন।

আরও যেসব স্থানে হোম কোয়ারেন্টিন : ময়মনসিংহের ধোবাউড়ায় ৬ জন, বরগুনায় ১৪৬ জন, দিনাজপুরে ৫১ জন, পাবনার সাঁথিয়ায় ১০০ জন, সিলেটের বিশ্বনাথে ৬৮ জন, বরগুনার আমতলিতে ১০০ জন, হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে ২২ জন, পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে ১২ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে নেয়া হয়েছে। এদিকে সিলেটে ৩১ মার্চ পর্যন্ত বিয়েসহ সামাজিক অনুষ্ঠান বন্ধ করা হয়েছে।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত