ছাঁটাইয়ের প্রতিবাদ ও বকেয়া বেতন দাবি

ঢাকা বগুড়াসহ পাঁচ স্থানে শ্রমিক বিক্ষোভ সংঘর্ষ

আশুলিয়ায় কারখানা ভাংচুর * শেরপুরে পুলিশসহ আহত ৩৫

  যুগান্তর ডেস্ক ১৫ মে ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

চাকুরিচ্যুত করার প্রতিবাদ এবং বকেয়া বেতনের দাবিতে ঢাকা, বগুড়া, গাজীপুর, কুমিল্লা ও মোংলায় বৃহস্পতিবার শ্রমিক বিক্ষোভ ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এসব ঘটনায় পুলিশসহ ৩৫ জন আহত হয়েছে। বন্ধ কারখানা খুলে দেয়া ও বকেয়া বেতনের দাবিতে ঢাকার আশুলিয়ায় পোশাক কারখানা ভাংচুর করেছেন শ্রমিকরা। এ সময় টিয়ারশেল নিক্ষেপ ও জলকামান ব্যবহার করে পুলিশ। এছাড়া কর্মী ছাঁটাইয়ের প্রতিবাদে বগুড়ার শেরপুরে স্পিনিং শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষে চার পুলিশসহ ৩৫ জন আহত হয়েছে এবং মোংলা ইপিজেড গেটে শ্রমিকরা বিক্ষোভ করেছেন। বকেয়া বেতনের দাবিতে কুমিল্লার চান্দিনা জুটমিল শ্রমিক এবং গাজীপুরের টঙ্গীতে পোশাক শ্রমিকরা বিক্ষোভ করেছেন। এ সম্পর্কে প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :

সাভার (ঢাকা) : আশুলিয়ার নরসিংহপুর এলাকার মেডলার অ্যাপারেলস কারাখানার শ্রমিকরা কাজে যোগ দেয়ার কিছু সময় পর বেতন, ছুটির টাকা ও শতভাগ বেতনের দাবিতে কাজ বন্ধ করে বিক্ষোভ শুরু করেন। এক পর্যায়ে উত্তেজিত হয়ে তারা কারখানার ভেতরে ব্যাপক ভাংচুর চালায়। খবর পেয়ে পুলিশ জলকামান ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। অন্যদিকে আদিয়াত অ্যাপারেলস লিমিটেডের তিন শতাধিক শ্রমিক বন্ধ কারখানা খুলে দেয়া ও বকেয়া বেতনের দাবিতে মূল ফটকের সামনে বিক্ষোভ করেন।

শেরপুর (বগুড়া) : উপজেলার ভবানীপুর ইউনিয়নের সোলাকুড়ি ফকিরতলার রনক স্পিনিং মিলের কর্মী ছাঁটাই করাকে কেন্দ্র করে শ্রমিক ও পুলিশের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এ সময় পুলিশ কনস্টেবল মহসিন আলী, ইসরাফিল, আবু তালেব ও আনজাম এবং ৩১ জন শ্রমিক আহত হয়। আহত শ্রমিকদের বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এবং পুলিশ সদস্যদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। রনক স্পিনিং মিল বন্ধ হওয়ার কথা শুনে বুধবার রাতে মালিক জিএম মঞ্জুরুল মোর্শেদের সঙ্গে দেখা করে বেতন চান দুই শ্রমিক প্রতিনিধি। বেতন না দিয়ে তাদের চাকুরিচ্যুত করেন তিনি। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে শ্রমিকরা বৃহস্পতিবার ভোরে মিলের সামনে জড়ো হয়। খবর পেয়ে শ্রমিকদের সরাতে পুলিশ লাঠিচার্জ করলে সংঘর্ষ হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ৬ রাউন্ড রাবার বুলেট ছোড়ে। এ সময় ৩৫ জন আহত হয়। এসআই পুতুল মোহন্ত বলেন, পুলিশ গুলি ছোড়েনি। ভুল বুঝতে পেরে মালিক ও শ্রমিকের মধ্যে আপোস হয়েছে। রনক স্পিনিং মিলের গ্রুপ জিএম আবুল কাশেম বলেন, মালিক-শ্রমিকদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি নিয়ে উত্তপ্ত পরিবেশের সৃষ্টি হয়। তবে সব ঠিক হয়ে গেছে।

মোংলা (বাগেরহাট) : মোংলা ইপিজেডে বিদেশি প্রতিষ্ঠানের ১৫৪ শ্রমিককে চাকরিচ্যুত করার প্রতিবাদে দুপুরে ইপিজেড গেটে বিক্ষোভ করেছেন শ্রমিকরা। শ্রমিকদের অভিযোগ, গত বছর নভেম্বরে গোনাজুহাও ফাং সাইন্স অ্যান্ড টেকনোলজি বিডি কোম্পানি লিমিটেড সুতা উৎপাদন শুরু করে। তখন কম বেতনে তিন শতাধিক শ্রমিক নিয়োগ করা হয়। করোনার আগে প্রতিষ্ঠানটি কয়েক দফায় দেড় শতাধিক শ্রমিককে নানা অজুহাতে ছাঁটাই করে।

চান্দিনা (কুমিল্লা) : বকেয়া বেতনের দাবিতে চান্দিনা উপজেলার নূরীতলার আশা জুট মিলের শ্রমিকরা ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন। রাস্তায় গাছের গুঁড়ি ফেলে, পুরানো টায়ারে আগুন জ্বেলে এবং ফোর লেন মহাসড়কে টিনের বেড়া দিয়ে যান চলাচল বন্ধ করে দেয়। এতে মহাসড়কের উভয় পাশে অন্তত ছয় কিলোমিটারজুড়ে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। তবে কর্তৃপক্ষ আগামী সপ্তাহে বকেয়া বেতন পরিশোধের প্রতিশ্রুতি দিলে বেলা ১১টার দিকে শ্রমিকরা অবরোধ তুলে নেন।

গাজীপুর, টঙ্গী ও পূবাইল : ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক ও টঙ্গী-কালীগঞ্জ-নরসিংদী সড়কের সংযোগস্থল স্থানীয় টঙ্গী স্টেশন রোড মোড়ে অবস্থান নিয়ে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা বিক্ষোভ করেন। এতে সড়কের উভয় পাশে শত শত যানবাহন আটকা পড়ে। টঙ্গী বিসিকের পোশাক শিল্পপ্রতিষ্ঠান পেট্রিয়টিক ইকো লিমিটেড ও রেডিসন গার্মেন্ট কারখানার শ্রমিকরা সকালে কারখানা বন্ধ পেয়ে বিক্ষোভ শুরু করেন। অন্যসব পোশাক কারখানায় গিয়েও তারা উৎপাদন বন্ধ করে শ্রমিকদের বের করে আনেন। শ্রমিকরা জানান, কারখানা কর্তৃপক্ষ পাওনা পরিশোধ না করেই বুধবার রাতে হঠাৎ কারখানা বন্ধের নোটিশ টানিয়ে লাপাত্তা হয়েছেন। কারখানার গেটে তালা ও বন্ধের নোটিশ দেখে তারা কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেন। কিন্তু দায়িত্বশীলদের মোবাইল ফোন বন্ধ পান বলে তারা অভিযোগ করেন।

আরও খবর
 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত