হাওরে শতভাগ ও সারা দেশে ৪৮ ভাগ কাটা শেষ

ধানের ভালো দাম পাচ্ছে কৃষক

কৃষিমন্ত্রী

  যুগান্তর রিপোর্ট ১৫ মে ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ছবি: যুগান্তর

কৃষিমন্ত্রী আবদুর রাজ্জাক বলেছেন, বিদ্যমান করোনা পরিস্থিতিতেও সফলভাবে বোরো ধান ঘরে তুলছেন কৃষক। হাওরে শতভাগ এবং সারা দেশে ৪৮ ভাগ বোরো ধান কাটা শেষ হয়েছে।

ধানের ভালো দামও পাচ্ছেন তারা। অঞ্চলভেদে ধানের দাম প্রতি মণ ৬০০ থেকে সর্বোচ্চ ৯০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার সচিবালয় থেকে ধানের দাম ও কৃষির সমসাময়িক বিষয়ে অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে কৃষিমন্ত্রী এ কথা জানান।

এ সময় কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. নাসিরুজ্জামান, অতিরিক্ত সচিব ড. মো. আবদুর রৌফ, কৃষি বিপণন অধিদফতরের মহাপরিচালক মোহাম্মদ ইউসুফ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

কৃষিমন্ত্রী জানান, কৃষকের ধানের ন্যায্যমূল্য প্রাপ্তি এবং করোনা সময়কালে দেশের নিম্নআয়ের মানুষের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ৮ লাখ টন ধান, ১.৫ লাখ টন আতপ চাল, ১০ লাখ টন সিদ্ধ চাল এবং ৭৫ হাজার টন গমসহ ২০ লাখ ২৫ হাজার টন খাদ্যশস্য কিনবে সরকার।

এ জন্য উপজেলা কৃষি অফিসারের তত্ত্বাবধানে সারা দেশে ধান বিক্রয়কারী কৃষকের তালিকা তৈরি করে তা খাদ্য বিভাগের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

কৃষকের ধান বিক্রয়ে যাতে সুবিধা হয় সে জন্য ইউনিয়ন পর্যায়ে ২৬৭৩টি আর্দ্রতামাপক যন্ত্র সরবরাহ করা হয়েছে।

মন্ত্রী জানান, কৃষকদের স্বার্থে সারসহ সেচ কাজে বিদ্যুৎ বিলের রিবেট বাবদ কৃষি খাতে ৯ হাজার কোটি টাকার ভর্তুকি কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে সার্বিক কৃষি খাতের ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে মাত্র ৪ ভাগ সুদে কৃষকদের ১৯,৫০০ কোটি টাকার বিশেষ ঋণ প্রণোদনা দেয়া হচ্ছে।

ড. রাজ্জাক বলেন, আপনারা জানেন বোরো আমাদের প্রধান ফসল। দ্বিতীয় হল আমন ও তৃতীয় আউশ। আমনে আমরা এক কোটি ৫০ লাখ টন বা এর কম-বেশি উৎপাদন পেয়ে থাকি।

আউশে ৩০ লাখ টন বা এর বেশি উৎপাদন পেয়ে থাকি। তবে মোট উৎপাদনের ৬০ ভাগ বোরো থেকে আসে। বোরোর উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য আমরা সর্বাত্মক প্রস্তুতি নিয়েছিলাম।

তখন আমাদের ধারণা ছিল না যে, দেশ করোনায় আক্রান্ত হবে। পৃথিবীর অন্যান্য দেশের মতো আমাদের দেশও স্থবির রয়েছে।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, সারা দেশে ৪৭ লাখ ৫৪ হাজার ৪৪৭ হেক্টর জমিতে বোরো ধানের আবাদ হয়েছে। হাওরে শতভাগ এবং সারা দেশে ৪৮ ভাগ ধান কাটা শেষ হয়েছে।

কৃষি বিভাগের তথ্য থেকে জানা গেছে, কৃষকরা সফলভাবে ধান ঘরে তোলার পাশাপাশি ধান বিক্রিতে ভালো দাম পাচ্ছেন।

তবে অঞ্চলভেদে ধানের বাজারদর কম-বেশি রয়েছে। এ ছাড়া ভেজা ও শুকনো ধান এবং মোটা ও চিকন ধানের দামেও পার্থক্য রয়েছে বলে জানা গেছে।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, এবার ধানের যে দাম আছে সেটা মোটামুটি যুক্তিসঙ্গত। সরকারি ধান-চাল কেনা পুরোদমে শুরু হলে দাম আরও বাড়তে পারে। এখন সারা দেশের সমতলভূমিতে ধান কাটা চলছে।

আবহাওয়াও মোটামুটি অনুকূল। ধান কাটাও বেশ এগিয়ে চলছে। শ্রমিকরাও সমতলভূমিতে ফিরে এসেছে। সার্বিকভাবে বেশ ভালো গতিতেই ধান কাটা এগিয়ে চলেছে।

 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত