পাবনায় আরও ২ জনকে গুলি করে ও কুপিয়ে হত্যা

  পাবনা প্রতিনিধি ০৭ জুন ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

পাবনা শহরে স্ত্রী ও কন্যাসহ অবসরপ্রাপ্ত ব্যাংক কর্মকর্তা হত্যাকাণ্ডের রেশ কাটতে না কাটতেই আরও দুটি হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়েছে। সদর উপজেলার ভাঁড়ারা ও আতাইকুলা থানার মধুপুরে দুইজনকে গুলি করে ও কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। শুক্রবার গভীর রাতে এসব হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- সদর উপজেলার ভাঁড়ারা খাঁপাড়া গ্রামের কালু খাঁর ছেলে হুকুম আলী খাঁ (৬৫) এবং আতাইকুলা থানার মধুপুর পশ্চিমপাড়া গ্রামের আবদুল মজিদের ছেলে মজনু মিয়া (৪০)।

ভাঁড়ারা খাঁপাড়ার হুকুম আলীর বাড়িতে গিয়ে অজ্ঞাতপরিচয় কয়েকজন তাকে ডাক দেন। এ সময় ঘর থেকে বাইরে বের হওয়া মাত্র তাকে উদ্দেশ্য করে গুলি করে পালিয়ে যায় তারা। এতে ঘটনাস্থলে হুকুম আলীর মৃত্যু হয়। পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাছিম আহম্মেদ জানান, খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে। ওসি আরও জানান, সম্প্রতি হুকুম আলীর নাতি রবিউল ইসলামকে মারধরের ঘটনায় ৪ জুন থানায় একটি মামলা দায়ের করেন তিনি। সেই মামলার জেরে এ ঘটনা ঘটতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। অপরদিকে, আতাইকুলার মধুপুর গ্রামে মজনু মিয়াকে (৪০) কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। আতাইকুলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নাসিরুল আলম জানান, শুক্রবার রাত ১১টার দিকে গ্রামের একটি চায়ের দোকানে বসে গল্প করে বাড়ি ফিরছিলেন মজনু। পথিমধ্যে পেছন থেকে দুর্বৃত্তরা তার ঘাড়ে কোপ দিয়ে পালিয়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলে তার মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। পাবনার পুলিশ সুপার শেখ রফিকুল ইসলাম বিপিএম, পিপিএম বলেন, কারা, কী কারণে এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে, তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। ইতোমধ্যে পুলিশের একাধিক টিম মাঠে কাজ করছে।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত