চট্টগ্রাম বন্দর

আজ নিলামে উঠছে ৩৬৩ কনটেইনার পণ্য

  মজুমদার নাজিম উদ্দিন, চট্টগ্রাম ব্যুরো ৩০ জুন ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

চট্টগ্রাম বন্দর থেকে খালাস না নেয়া ৩৬৩ কনটেইনার বোঝাই পণ্য ও চারটি গাড়ি নিলামে উঠছে আজ মঙ্গলবার। চট্টগ্রাম কাস্টম হাউস কর্তৃপক্ষ এসব পণ্য নিলামে তুলছে। করোনাকালে নিলামে ক্রেতাদের কতটুকু সাড়া মিলবে, তা নিয়ে কিছুটা সংশয় রয়েছে। কারণ, মে মাসে অনুষ্ঠিত সর্বশেষ নিলামে অনেক পণ্যই অবিক্রীত রয়েছে। কাস্টম হাউস কর্তৃপক্ষ অবশ্য এবার আগের চেয়ে ভালো সাড়া পাওয়ার আশা করছে।

আমদানিকারকরা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে পণ্য খালাস না নিলে কিংবা মিথ্যা ঘোষণা দিয়ে আমদানি করলে আইনি প্রক্রিয়া অনুসরণ করে সেসব পণ্য নিলামে বিক্রির ব্যবস্থা করে কাস্টম হাউস। তবে আইনি জটিলতার কারণে খালাস না নেয়া অনেক পণ্য যথাসময়ে নিলামে তোলা যায় না। বন্দরের ইয়ার্ডে এগুলো বছরের পর বছর পড়ে থাকে। বন্দরের বড় একটা অংশ এগুলো দখল করে থাকায় বন্দরে স্থান সংকট দেখা দেয়। প্রায়ই জাহাজ থেকে নামানো কনটেইনার রাখার স্থান পাওয়া যায় না। এতে বন্দরের স্বাভাবিক পণ্য হ্যান্ডলিং ব্যাহত হয়। সোমবার পর্যন্ত বন্দর ইয়ার্ডে নিলামযোগ্য ৮ হাজার ৪১৩ টিইইউএস (২০ ফুট সমমানের) কনটেইনার পড়ে ছিল। দীর্ঘদিন খালাস না নেয়া আমদানি পণ্য প্রতি মাসে সাধারণত একবার নিলামে তোলে কাস্টম হাউস কর্তৃপক্ষ।

চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসের যুগ্ম কমিশনার সাধন কুমার কুণ্ড যুগান্তরকে জানান, প্রতি মাসে সাধারণত ২০০-২৫০টি কনটেইনার নিলামে তোলা হয়। মে মাসে সর্বশেষ নিলামে আশানুরূপ সাড়া পাওয়া যায়নি। তখন কিছু পণ্য অবিক্রীত থেকে যায়। এ ছাড়া আগের কয়েকটি নিলামেও কিছু পণ্য বিক্রি হয়নি। সে জন্য এবারের নিলামে পণ্যের পরিমাণ বেড়ে গেছে। পুরনো ২২২টি কনটেইনারের সঙ্গে নতুন ১৪১টিসহ মোট ৩৬৩ কনটেইনার বোঝাই পণ্যের নিলাম হবে আজ। রয়েছে চারটি গাড়িও। এটি বছরের পঞ্চম নিলাম। তিনি আরও বলেন, এবারের নিলামে পণ্য বেশি থাকায় এ নিয়ে আলোচনা হচ্ছে। ক্রেতারা আগ্রহী হয়ে উঠছেন। সে জন্য আশা করছি, গত নিলামের চেয়ে ভালো সাড়া পাব। তবে সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র জানায়, আগের নিলামে বিক্রি না হওয়া ২২২ কনটেইনার পণ্যের প্রতি এবারও ক্রেতাদের আগ্রহ তেমন থাকবে না। তাই এ নিলামেও অনেক পণ্য অবিক্রীত থেকে যেতে পারে।

কাস্টম হাউস সূত্র জানায়, নিলামযোগ্য পণ্যের মধ্যে বিলাসবহুল গাড়ি ছাড়াও রয়েছে আপেল, হিমায়িত মাংস, গার্মেন্ট এক্সেসরিজ, বিভিন্ন ধরনের ফেব্রিক্স, কেমিক্যাল, ইলেকট্রনিক্স পণ্য, পেপার ও পেপারসামগ্রী, হার্ডওয়্যার, টেক্সটাইল মেশিনারিজ, সিরামিকসহ বিভিন্ন ধরনের পণ্য। এরই মধ্যে ক্রেতাদের এসব পণ্য পরিদর্শনের সুযোগ দেয়া হয়েছে। নিলামে অংশগ্রহণের জন্য চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসের রাজস্ব কর্মকর্তা (প্রশাসন), জেলা প্রশাসকের দফতর এবং যুগ্ম কমিশনার (সদর), শুল্ক আবগারি ও ভ্যাট কমিশনারেটের (ঢাকা দক্ষিণ) কার্যালয়ে নির্ধারিত দরপত্র জমা দেয়ার বাক্স থাকবে। প্রাপ্ত দরপত্রের মূল্যায়ন শেষে উপযুক্ত দরদাতা নির্ধারণ করা হবে।

চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের সচিব মো. ওমর ফারুক জানান, দীর্ঘদিন পড়ে থাকা আমদানি কনটেইনার বন্দরের জন্য এক ধরনের বোঝা। এগুলো আইনি প্রক্রিয়ায় নিলামে তুলতে কাস্টম হাউসকে প্রতি মাসেই চিঠি দেয়া হয়। তারা নিলামের আয়োজন করে। এরপরও বিপুল পরিমাণ নিলামযোগ্য কনটেইনার বন্দরে পড়ে থাকে।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত