স্বাস্থ্য খাতে শুদ্ধি অভিযান শুরু হয়েছে: ওবায়দুল কাদের

  যুগান্তর রিপোর্ট ১০ জুলাই ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

স্বাস্থ্য খাতের নানা অনিয়মের বিরুদ্ধে শুদ্ধি অভিযান শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, চিকিৎসাব্যবস্থা বিশেষ করে হাসপাতাল, নমুনা পরীক্ষার ভুয়া সনদ, প্লাজমা ডোনেশন, সুরক্ষা সামগ্রী ক্রয়, হাসপাতালের যন্ত্রপাতি সংগ্রহসহ অন্যান্য খাতের নানা অনিয়মের বিরুদ্ধে শেখ হাসিনা সরকারের শুদ্ধি অভিযান শুরু হয়েছে। এটা অব্যাহত থাকবে। অপরাধীর কোনো দলীয় পরিচয় নেই।

যত ক্ষমতাধর হোক, আইনের আওতায় আসতে হবে। যারা জনগণের অসহায়ত্ব নিয়ে অবৈধ ব্যবসা করছে, প্রতারণা করছে, শেখ হাসিনা সরকার তাদের বিরুদ্ধে শূন্য সহিষ্ণুতার নীতিতে অটল।

রাজধানীর সংসদ ভবনের সরকারি বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে এক অনুষ্ঠানে যুক্ত হয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে তিনি এ কথা বলেন। এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার যে কোনো অনিয়ম ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে রয়েছে বলেও জানান ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, আপনারা জানেন, যে কোনো অনিয়ম-দুর্নীতির বিরুদ্ধে সরকারের অবস্থান কঠোর। সততা ও নিষ্ঠার প্রতীক বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার শুদ্ধি অভিযান অব্যাহত রয়েছে। তিনি নিজ থেকেই ক্যাসিনো-বিরোধী অভিযান শুরু করেছিলেন। চিকিৎসাব্যবস্থা নিয়ে যারা বা যে অশুভ চক্র প্রতারণা করছে, তাদের বিরুদ্ধে অভিযান চলছে। এসব অনিয়ম বাইরে থেকে কেউ ধরিয়ে দেয়নি।

সেতুমন্ত্রী বলেন, করোনা সংকটের শুরু থেকে সরকারের পাশাপাশি আওয়ামী লীগ অসহায়, কর্মহীন মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। স্থাপন করেছে মানবিকতার অনন্য দৃষ্টান্ত। মাটি ও মানুষের দল হিসেবে দেশের যে কোনো দুর্যোগে সবার আগে ছুটে যায় আওয়ামী লীগ। অসহায় মানুষের পাশে থাকা আওয়ামী লীগের সাত দশকের ঐতিহ্য।

তিনি আরও বলেন, এরই মধ্যে দেশব্যাপী প্রায় সোয়া এক কোটি পরিবারের মাঝে দলীয়ভাবে খাদ্য সাহায়তা দেয়া হয়েছে। সাড়ে ১০ কোটি টাকার বেশি নগদ সহায়তা দেয়া হয়েছে। খাদ্য ও নগদ সহায়তা ছাড়াও অন্যান্য সহায়তা বিশেষ করে স্বাস্থ্যসেবায় সুরক্ষা সামগ্রী, টেলিমেডিসিন, অ্যাম্বুলেন্সসহ নানাবিধ উপায়ে মানুষের সঙ্গে আছে আওয়ামী লীগ।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, কৃষকের ধান কেটে বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দিয়েছে আমাদের সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। এখন তারা বন্যাদুর্গত মানুষের পাশে আছে। আমি দুর্গত এলাকার মানুষকে সহায়তার জন্য আবারও দলীয় নেতাকর্মীদের আহ্বান জানাচ্ছি।

তিনি বলেন, করোনা সংকটের পাশাপাশি বন্যাদুর্গত অসহায় মানুষের সুরক্ষা সরকারের জন্য নতুন আরেকটি চ্যালেঞ্জ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সব সময় অসহায় মানুষের পাশে আছেন।

আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমণ্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ উপকমিটি প্রতিনিধিদের মাধ্যমে করোনা প্রতিরোধ সামগ্রী বিতরণের এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

অনুষ্ঠানে উপকমিটির পক্ষ থেকে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রেড জোনভুক্ত জেলা এবং বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত জেলার বিভিন্ন হাসপাতালে প্রতিনিধিদের মাধ্যমে এসব সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

এ সময় আওয়ামী লীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক ও আবদুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, মির্জা আজম, এসএম কামাল হোসেন ও সাখাওয়াত হোসেন শফিক, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক সম্পাদক মৃণাল কান্তি দাস, স্বাস্থ্যবিষয়ক সম্পাদক ডা. রোকেয়া সুলতানা, উপদফতর সম্পাদক সায়েম খান, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য শাহাবুদ্দিন ফরাজি, আনিসুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মন্ত্রীর পক্ষে কোম্পানীগঞ্জে চাল বিতরণ : কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) প্রতিনিধি জানান, ওবায়দুল কাদেরের পক্ষে বসুরহাট পৌরসভায় ৭শ’ হতদরিদ্র জনগোষ্ঠীর মাঝে ১৪ টন চাল বিতরণ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার ৯ ওয়ার্ডে জনপ্রতি ২০ কেজি হারে এ চাল বিতরণ করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা, সচিব আবদুল হালিম, নির্বাহী প্রকৌশলী আবদুস সাত্তার ও ওয়ার্ডের কাউন্সিলররা।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত