অজানা আশঙ্কায় এখন মানুষের দিন কাটছে
jugantor
অজানা আশঙ্কায় এখন মানুষের দিন কাটছে
-মির্জা ফখরুল

  যুগান্তর রিপোর্ট  

৩১ জুলাই ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, করোনা মহামারী ও ভয়াবহ বন্যায় সারাদেশের মানুষ বিপর্যস্ত। অসুস্থতা ও ক্ষুধার জ্বালায় হাহাকার করছে অসহায় মানুষ। তাদের এখন দিন কাটছে জীবন-মৃত্যুর অজানা আশংকায়। পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বাণীতে তিনি এ কথা বলেন। করোনা ও বন্যায় বিপন্ন মানুষসহ অসহায়-নিরন্ন মানুষের প্রতি সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে দলীয় নেতাকর্মী ও বিত্তবানদের প্রতি আহ্বান জানান মির্জা ফখরুল।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর নিউ ইস্কাটনে শাইনপুকুর এপার্টমেন্টে প্রয়াত শফিউল বারী বাবুর বাসায় গিয়ে তার স্ত্রী বিথীকা বিনতে হোসাইনকে সমবেদনা জানান বিএনপি মহাসচিব। এ সময় বাবুর মেয়ে ফাতেমা বারী তুহিন ও ছেলে আয়হান বারী সাঈদকে আদর করেন মির্জা ফখরুল।

মির্জা ফখরুল বলেন, তার মতো একজন মেধাবী, জনপ্রিয়, সচেতন রাজনৈতিক নেতা এভাবে চলে যাবেন এটা আমরা কল্পনাই করতে পারিনি। শুধু বিএনপির জন্য নয়, তাকে দেশের মানুষের জন্য প্রয়োজন ছিলো। সবার কাছে আমার একটাই অনুরোধ থাকবে- তার পরিবার, স্ত্রী-সন্তানদের নিজেদের মানুষ মনে করে যেন আমরা এগিয়ে আসি এবং সহযোগিতার হাত বাড়াই। দেশনেত্রী খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বলেন, আমরা সবাই তার সঙ্গে আছি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপি নেতা কামরুজ্জামান রতন, প্রকৌশলী ইশরাক হোসেন, স্বেচ্ছাসেবক দলের আবদুল কাদির ভুঁইয়া জুয়েল, মোস্তাফিজুর রহমান, গোলাম সারোয়ার, সাইফুল ইসলাম ফিরোজ, ইয়াসীন আলী, চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান প্রমুখ।

নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দোয়া মাহফিল : সকাল সাড়ে ১১ টায় নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের নিচ তলায় স্বেচ্ছাসেবক দলের উদ্যোগে প্রয়াত সভাপতি শফিউল বারী বাবুর স্মরণে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক আাবদুল কাদির ভুঁইয়া জুয়েলের পরিচালনায় দোয়া মাহফিলে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল, কেন্দ্রীয় নেতা মীর সরফত আলী সপু, এবিএম মোশাররফ হোসেন, শহিদুল ইসলাম বাবুল, আনিসুর রহমান তালুকদার খোকন, আকরামুল হাসান, যুবদলের মোরতাজুল করীম বাদরু, সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, ছাত্রদলের ইকবাল হোসেন শ্যামলসহ স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকর্মীরা অংশ নেন।

বাবুর স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে রিজভী বলেন, দুর্দিনের একজন বলিষ্ঠ সিপাহশালাকে আন্দোলনের কাফেলা থেকে আমরা হারালাম। পরে বাবুর আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন ক্কারী রফিকুল ইসলাম।

বাবুর রুহের মাগফিরাত কামনায় স্বেচ্ছাসেবক দলের ২ দিনের কর্মসূচির অংশ হিসেবে বৃহস্পতিবার দেশব্যাপী জেলা, মহানগর, থানা, উপজেলা ও পৌর কার্যালয়ে খতমে কোরআন ও দোয়া মাহফিলের কর্মসূচি পালিত হয়েছে বলে সংগঠনটির দফতর থেকে জানানো হয়েছে। আজ বাদ জুমা ঢাকা মহানগরসহ দেশব্যাপী মসজিদে মসজিদে দোয়া অনুষ্ঠিত হবে। মঙ্গলবার শফিউল বারী বাবু ফুসফুস জটিলতায় আক্রান্ত হয়ে রাজধানীর এভার কেয়ার (সাবেক অ্যাপোলো) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিলো ৫১ বছর।

অজানা আশঙ্কায় এখন মানুষের দিন কাটছে

-মির্জা ফখরুল
 যুগান্তর রিপোর্ট 
৩১ জুলাই ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, করোনা মহামারী ও ভয়াবহ বন্যায় সারাদেশের মানুষ বিপর্যস্ত। অসুস্থতা ও ক্ষুধার জ্বালায় হাহাকার করছে অসহায় মানুষ। তাদের এখন দিন কাটছে জীবন-মৃত্যুর অজানা আশংকায়। পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বাণীতে তিনি এ কথা বলেন। করোনা ও বন্যায় বিপন্ন মানুষসহ অসহায়-নিরন্ন মানুষের প্রতি সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে দলীয় নেতাকর্মী ও বিত্তবানদের প্রতি আহ্বান জানান মির্জা ফখরুল।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর নিউ ইস্কাটনে শাইনপুকুর এপার্টমেন্টে প্রয়াত শফিউল বারী বাবুর বাসায় গিয়ে তার স্ত্রী বিথীকা বিনতে হোসাইনকে সমবেদনা জানান বিএনপি মহাসচিব। এ সময় বাবুর মেয়ে ফাতেমা বারী তুহিন ও ছেলে আয়হান বারী সাঈদকে আদর করেন মির্জা ফখরুল।

মির্জা ফখরুল বলেন, তার মতো একজন মেধাবী, জনপ্রিয়, সচেতন রাজনৈতিক নেতা এভাবে চলে যাবেন এটা আমরা কল্পনাই করতে পারিনি। শুধু বিএনপির জন্য নয়, তাকে দেশের মানুষের জন্য প্রয়োজন ছিলো। সবার কাছে আমার একটাই অনুরোধ থাকবে- তার পরিবার, স্ত্রী-সন্তানদের নিজেদের মানুষ মনে করে যেন আমরা এগিয়ে আসি এবং সহযোগিতার হাত বাড়াই। দেশনেত্রী খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বলেন, আমরা সবাই তার সঙ্গে আছি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপি নেতা কামরুজ্জামান রতন, প্রকৌশলী ইশরাক হোসেন, স্বেচ্ছাসেবক দলের আবদুল কাদির ভুঁইয়া জুয়েল, মোস্তাফিজুর রহমান, গোলাম সারোয়ার, সাইফুল ইসলাম ফিরোজ, ইয়াসীন আলী, চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান প্রমুখ।

নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দোয়া মাহফিল : সকাল সাড়ে ১১ টায় নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের নিচ তলায় স্বেচ্ছাসেবক দলের উদ্যোগে প্রয়াত সভাপতি শফিউল বারী বাবুর স্মরণে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক আাবদুল কাদির ভুঁইয়া জুয়েলের পরিচালনায় দোয়া মাহফিলে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল, কেন্দ্রীয় নেতা মীর সরফত আলী সপু, এবিএম মোশাররফ হোসেন, শহিদুল ইসলাম বাবুল, আনিসুর রহমান তালুকদার খোকন, আকরামুল হাসান, যুবদলের মোরতাজুল করীম বাদরু, সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, ছাত্রদলের ইকবাল হোসেন শ্যামলসহ স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকর্মীরা অংশ নেন।

বাবুর স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে রিজভী বলেন, দুর্দিনের একজন বলিষ্ঠ সিপাহশালাকে আন্দোলনের কাফেলা থেকে আমরা হারালাম। পরে বাবুর আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন ক্কারী রফিকুল ইসলাম।

বাবুর রুহের মাগফিরাত কামনায় স্বেচ্ছাসেবক দলের ২ দিনের কর্মসূচির অংশ হিসেবে বৃহস্পতিবার দেশব্যাপী জেলা, মহানগর, থানা, উপজেলা ও পৌর কার্যালয়ে খতমে কোরআন ও দোয়া মাহফিলের কর্মসূচি পালিত হয়েছে বলে সংগঠনটির দফতর থেকে জানানো হয়েছে। আজ বাদ জুমা ঢাকা মহানগরসহ দেশব্যাপী মসজিদে মসজিদে দোয়া অনুষ্ঠিত হবে। মঙ্গলবার শফিউল বারী বাবু ফুসফুস জটিলতায় আক্রান্ত হয়ে রাজধানীর এভার কেয়ার (সাবেক অ্যাপোলো) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিলো ৫১ বছর।