রাজনৈতিক পরিচয় অপরাধীর আত্মরক্ষার ঢাল হতে পারে না
jugantor
রাজনৈতিক পরিচয় অপরাধীর আত্মরক্ষার ঢাল হতে পারে না
-ওবায়দুল কাদের

  যুগান্তর রিপোর্ট  

১০ আগস্ট ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রাজনৈতিক পরিচয় কোনো অপরাধীর আত্মরক্ষার ঢাল হতে পারে না বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তা প্রমাণ করেছেন। সরকার প্রতিটি হত্যাকাণ্ডের বিচারে সোচ্চার থেকেছে। অপরাধীকে দলীয় পরিচয়ে বাঁচানোর চেষ্টা করেনি। অপরাধী যে দলেরই হোক বিচারের আওতায় আনা হয়েছে।

রোববার দুপুরে রাজধানীর সংসদ ভবন এলাকার সরকারি বাসভবন থেকে গোপালগঞ্জ সড়ক জোন, বিআরটিএ ও বিআরটিসির কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে তিনি এসব কথা বলেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, শেখ হাসিনা সরকার জনগণের মনের ভাষা বোঝে বলেই যে কোনো বিষয়ে দ্রুততম সময়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করে। যে কোনো অনিয়ম-দুর্নীতির বিরুদ্ধে শেখ হাসিনা সরকারের অবস্থান অত্যন্ত কঠোর এবং তা এরই মধ্যে প্রমাণিত হয়েছে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সরকারের বিভিন্ন সমালোচনার দিকে ইঙ্গিত করে সড়ক পরিবহনমন্ত্রী বলেন, ক্যাসিনোবিরোধী অভিযান, স্বাস্থ্য খাতে জেকেজি, রিজেন্ট গ্রুপের বিরুদ্ধে চলমান অভিযান চালানোর আগে সরকারকে কেউ বলে দেয়নি। সরকারই এসব অনিয়ম উদঘাটন করেছে, কোনো ধরনের ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করেনি। সরকারের সমালোচনা করা বিরোধী রাজনীতিকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, তাদের আমলে অনিয়ম-দুর্নীতির বিরুদ্ধে তারা কী ব্যবস্থা নিয়েছিলেন? তিনি বলেন, দুর্নীতিতে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন আর দুর্নীতিকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দেয়াই তাদের সফলতা। বিএনপি দলীয় গঠনতন্ত্র থেকে ৭ ধারা বাতিল করে দুর্নীতিবাজদের দলীয় নেতৃত্বে গণতান্ত্রিক স্বীকৃতি দিয়েছে বলেও মন্তব্য করেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

রাজনৈতিক পরিচয় অপরাধীর আত্মরক্ষার ঢাল হতে পারে না

-ওবায়দুল কাদের
 যুগান্তর রিপোর্ট 
১০ আগস্ট ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রাজনৈতিক পরিচয় কোনো অপরাধীর আত্মরক্ষার ঢাল হতে পারে না বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তা প্রমাণ করেছেন। সরকার প্রতিটি হত্যাকাণ্ডের বিচারে সোচ্চার থেকেছে। অপরাধীকে দলীয় পরিচয়ে বাঁচানোর চেষ্টা করেনি। অপরাধী যে দলেরই হোক বিচারের আওতায় আনা হয়েছে।

রোববার দুপুরে রাজধানীর সংসদ ভবন এলাকার সরকারি বাসভবন থেকে গোপালগঞ্জ সড়ক জোন, বিআরটিএ ও বিআরটিসির কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে তিনি এসব কথা বলেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, শেখ হাসিনা সরকার জনগণের মনের ভাষা বোঝে বলেই যে কোনো বিষয়ে দ্রুততম সময়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করে। যে কোনো অনিয়ম-দুর্নীতির বিরুদ্ধে শেখ হাসিনা সরকারের অবস্থান অত্যন্ত কঠোর এবং তা এরই মধ্যে প্রমাণিত হয়েছে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সরকারের বিভিন্ন সমালোচনার দিকে ইঙ্গিত করে সড়ক পরিবহনমন্ত্রী বলেন, ক্যাসিনোবিরোধী অভিযান, স্বাস্থ্য খাতে জেকেজি, রিজেন্ট গ্রুপের বিরুদ্ধে চলমান অভিযান চালানোর আগে সরকারকে কেউ বলে দেয়নি। সরকারই এসব অনিয়ম উদঘাটন করেছে, কোনো ধরনের ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করেনি। সরকারের সমালোচনা করা বিরোধী রাজনীতিকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, তাদের আমলে অনিয়ম-দুর্নীতির বিরুদ্ধে তারা কী ব্যবস্থা নিয়েছিলেন? তিনি বলেন, দুর্নীতিতে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন আর দুর্নীতিকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দেয়াই তাদের সফলতা। বিএনপি দলীয় গঠনতন্ত্র থেকে ৭ ধারা বাতিল করে দুর্নীতিবাজদের দলীয় নেতৃত্বে গণতান্ত্রিক স্বীকৃতি দিয়েছে বলেও মন্তব্য করেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।