মোংলা বন্দরে নিষিদ্ধ ১৬ কোটি টাকার পোস্তদানা জব্দ

  মোংলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি ১৪ আগস্ট ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মোংলা বন্দরে আমদানি নিষিদ্ধ ৬৮ হাজার ২৬৫ কেজি পোস্তদানা আটক করেছে কাস্টমস। বৃহস্পতিবার দুপুরে পোস্তদানার এ চালান আটক করা হয়। বিদেশ থেকে বাণিজ্যিক জাহাজে ৪টি কনটেইনারে আসা এ পোস্তদানার আনুমানিক মূল্য প্রায় ১৬ কোটি টাকা। টেনিসবল আমদানির মিথ্যা ঘোষণা দিয়ে নিষিদ্ধ এ পোস্তদানা আমদানি করেছে ঢাকার দুটি আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান। এ পণ্যের চালানটি বন্দও জেটিতে পৌঁছানোর পর থেকেই আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান দুটির কারও কোনো হদিস মিলছে না। কাস্টমসের পক্ষ থেকে কয়েক দফায় যোগাযোগ করা হলেও আমদানিকারকদের সাড়া মেলেনি। শেষ পর্যন্ত কাস্টমস কর্তৃপক্ষ কায়িক পরীক্ষা করে কনটেইনার বোঝাই পোস্তদানার এ চালানটি আটক করে।

মোংলা কাস্টমসের সহকারী কমিশনার আবদুল হামিদ জানান, পাঁচ দিন আগে কনটেইনার চারটি বন্দরে পৌঁছলে তারা জব্দ ও সিলগালা করেন। পরবর্তী সময়ে এ কনটেইনারের আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান ঢাকার মেসার্স তাজ ট্রেডার্স ও চকবাজারের চম্পাতলি লেনের ০৬/১০-এর মেসার্স আয়সা ট্রেডার্সকে আজ উপস্থিত থাকার জন্য চিঠি দেয়া হয়। পাশাপাশি বন্দর কর্তৃপক্ষ ও প্রশাসনকে জানানো হয়। তবে আমদানিকারকদের পক্ষ থেকে কেউ উপস্থিত হয়নি। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় কনটেইনার খুললে দেখা যায়, এতে আমদানি নিষিদ্ধ পোস্তদানা রয়েছে। আমদানিকারকরা টেনিসবল আনার কথা বলে পোস্তদানা এনেছে। তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়ার প্রস্তুতি চলছে।

এ সময় মোংলা বন্দর কাস্টমসের জয়েন্ট কাস্টম কমিশনার, মোংলা বন্দরের চিপ সিকিউরিটি অফিসার, বাগেরহাট চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি, শিপিং এজেন্টের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। চারটি কনটেইনারে ১৮ টন করে ৭২ টন পোস্তদানা আছে। মোংলা কাস্টম হাউসের শুল্ক কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান খান জানান, কনটেইনারবাহী বিদেশি বাণিজ্যিক জাহাজ ‘এমভি সানভিওর ভিউ’ মালয়েশিয়ার তানজান পিলিপাস বন্দর থেকে ছেড়ে আসে এবং সিঙ্গাপুরে যাত্রাবিরতির পর ৯ আগস্ট মোংলা বন্দরের জেটিতে কনটেইনার খালাস করে চলে যায়। তবে জাহাজটি বন্দরে নোঙর করার আগেই কাস্টমস কর্তৃপক্ষের কাছে আমদানি নিষিদ্ধ পণ্য এবং মদের চালান রয়েছে বলে খবর পাওয়া যায়। আর এ খবরের ভিত্তিতে বন্দর জেটিতে খালাসের পর কনটেইনার ৪টি শনাক্ত ও নজরদারি শুরু হয়। কিন্তু আমদানিকারক ও সিঅ্যান্ডএফ প্রতিনিধি না আসায় কাস্টমসের সন্দেহ বাড়তে থাকে। একপর্যায়ে আমদানিকারকের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও সাড়া পাননি কাস্টমস কর্মকর্তারা। তিনি জানান, কায়িক পরীক্ষায় ২ হাজার ৬৬৯টি বস্তায় ৬৮ হাজার ২৬৫ কেজি পোস্তদানা রয়েছে। প্রতিটি বস্তার ওজন ২৫ কেজি। আন্তর্জাতিক বাজারে এ পোস্তদানার (পিপিসিট) প্রতি কেজির মূল্য প্রায় ৩ হাজার ৫০০ টাকা। সে হিসাবে জব্দ করা পোস্তদানার আনুমানিক মূল্য প্রায় ১৬ কোটি টাকা বলে জানান কাস্টমস কর্মকর্তা।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত