পৃথিবীর ফুসফুস আমাজনে ফের আগুন

  যুগান্তর ডেস্ক ১৪ আগস্ট ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

পৃথিবীর ফুসফুসখ্যাত আমাজনে আবারও তীব্র আকার ধারণ করেছে দাবানল। প্রতিদিনই শত শত মাইল পুড়ে ছাই হয়ে যাচ্ছে। শতাধিক দমকল বাহিনী রাত-দিন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করেও ব্যর্থ হচ্ছে। আন্তর্জাতিক পরিবেশবাদী সংস্থা গ্রিনপিস জানিয়েছে, আগস্টের প্রথম ১০ দিনে আমাজনের ১০ হাজার ১৩৬টি স্থানে আগুন জ্বলতে দেখা গেছে। যা গত বছরের তুলনায় ১৭ শতাংশ বেশি। ব্রাজিল সরকারের দেয়া তথ্য বিশ্লেষণ করে গ্রিনপিস দেখিয়েছে, দেশটির কেন্দ্রীয় সংরক্ষিত বনাঞ্চলে গত বছরের একই সময়ের তুলনায় এবার দাবানলের সংখ্যা বেড়েছে ৮১ শতাংশ। গত বছর আমাজনের ভয়াবহ দাবানল আন্তর্জাতিক সংকটের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছিল। গ্রিনপিসের দেয়া নতুন তথ্যে এবারের দাবানল গত বছরের তুলনায় আরও ভয়াবহ হওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে।

গ্রিনপিসের এক কর্মকর্তা রোমুলো বাতিস্তা বলেন, পরিবেশ নিয়ে এ (ব্রাজিল) সরকারের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপের ঘাটতি থাকার সরাসরি ফল এ (দাবানল)। গত বছরের তুলনায় এবার আরও বেশি দাবানল দেখতে পাচ্ছি। তার অভিযোগ, আমাজন নিয়ে এমন আশঙ্কার বার্তা ব্রাজিল সরকার একেবারেই আমলে নিচ্ছে না। এদিকে করোনাভাইরাসের কারণে প্রতিদিন হাজারো মানুষের মৃত্যু হচ্ছে ব্রাজিলে। আক্রান্ত ও মৃত্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের পরই দেশটির অবস্থান। গোট দেশ যখন করোনা মোকাবেলায় হিমশিম খাচ্ছে তখন আমাজনের আগুনে পরিবেশ-প্রকৃতির ওপর নতুন শঙ্কা দেখা দিল।

বিশ্বের অন্যতম বৃহত্তম বন আমাজনে দাবানলের সঙ্গে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন ব্রাজিলের স্থানীয় বাসিন্দারাও। দাবানল নিয়ন্ত্রণে আনতে না পারায় সমালোচিত হচ্ছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট জেইর বলসোনারো। তাপমাত্রা আর বায়ুপ্রবাহের দিক অনুকূলে না থাকায় আগুন কমার বদলে উল্টো বেড়ে যাচ্ছে।

মাঝেমধ্যেই বেফাঁস কথা বলে বিতর্কে জড়িয়ে পড়েন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জাইর বলসোনারো। এবার তিনি বিতর্কে জড়ালেন আমাজনে আগুন লাগা প্রসঙ্গে মন্তব্য করে। বিশ্বের মানুষ যে দাবানলের ছবি, ভিডিও দেখেছে, সেগুলোকে ডাহা মিথ্যা বলে উড়িয়ে দিতে চাইলেন তিনি। আমাজনে দাবানলের ঘটনার অস্তিত্বের কথাই অস্বীকার করেন তিনি। জাইর বলসোনারো বলেছেন, যারা এসব বলছে, তারা বনের ভেতর কোনো আগুন খুঁজে পাবে না। আমাজনকে রক্ষায় এ অঞ্চলের দেশগুলোর মধ্যে হওয়া লেটিসিয়া চুক্তির অংশীদার দেশগুলোর বৈঠকে জাইর বলসোনারো বলেন, আমাজনে অগ্নিকাণ্ড বাড়ছে বলে যে দাবি করা হচ্ছে, তা মিথ্যা। কাজেই সঠিক সংখ্যা জানিয়ে দিয়ে আমাদের পাল্টা লড়াই চালিয়ে যেতে হবে। অথচ, ব্রাজিল সরকারের প্রকাশিত তথ্য থেকেই জানা যাচ্ছে, আমাজন অঞ্চলজুড়ে দাবানলের ঘটনা বাড়ছে। মঙ্গলবার তিনি যখন দাবানলের কথা অস্বীকার করছেন, তখনও ব্রাজিলের আমাজোনাস প্রদেশের আপুই শহরে আগুন থেকে সৃষ্ট ধোঁয়ার কুণ্ডলি আকাশের দিকে উঠতে দেখা গেছে।

গত বছরের আগস্টে আমাজনে দাবানল ভয়াবহ আকারে বেড়ে গিয়েছিল। পরবর্তী ৮ মাসে এ বনে ৭৫ হাজারের বেশি দাবানলের ঘটনা রেকর্ড করা হয়েছিল। পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলে থাকা অক্সিজেনের ২০ শতাংশেরই উৎস বিশ্বের সবচেয়ে বড় রেইন ফরেস্ট আমাজন। এ কারণে আমাজনকে ‘পৃথিবীর ফুসফুস’ আখ্যা দেয়া হয়। আমাজন জঙ্গল বিপুল কার্বন জমা রেখে বৈশ্বিক উষ্ণতার গতিকে খানিকটা শ্লথ রেখেছে। রেইন ফরেস্ট অঞ্চল হওয়ায় বছরের বেশিরভাগ সময় আমাজনে আর্দ্রতা বজায় থাকে। তবে জুলাই-আগস্টে আমাজনের আবহাওয়া কিছুটা শুষ্ক হয়ে ওঠে।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত