অভিনেত্রী দীপিকা শ্রদ্ধা ও সারাকে জিজ্ঞাসাবাদ
jugantor
মাদক গ্রহণের অভিযোগ
অভিনেত্রী দীপিকা শ্রদ্ধা ও সারাকে জিজ্ঞাসাবাদ

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর মাদক মামলার তদন্তে দীপিকা পাড়ুকোন, সারা আলী খান ও শ্রদ্ধা কাপুরের নাম আসায় তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। শনিবার ভারতের নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোয় (এনসিবি) পৃথকভাবে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এর আগে একই মামলায় গ্রেফতার হয়েছেন অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তী। সম্প্রতি মাদক নিয়ে দীপিকা ও তার ম্যানেজার কারিশমা প্রকাশের একটি হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটিং ফাঁস হয়। এরপরই এই অভিনেত্রীকে ডেকে পাঠায় এনসিবি। শনিবার সকাল ১০টার দিকে এনসিবি কার্যালয়ে হাজির হন দীপিকা। হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটিংয়ের কথা স্বীকার করলেও মাদক সেবনের বিষয়টি অস্বীকার করেন তিনি।

তবে তার উত্তরে সন্তুষ্ট হতে পারেননি এনসিবি কর্মকর্তারা। প্রায় ৬ ঘণ্টা ধরে এনসিবির ৫ সদস্যের বিশেষ তদন্ত দল তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। দীপিকার সঙ্গে তার ম্যানেজার কারিশমা প্রকাশকেও মুখোমুখি বসিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। ভারতীয় গণমাধ্যমগুলোতে ফাঁস হওয়া মাদক চ্যাটে কারিশমার কাছ থেকেই নিষিদ্ধ মাদক চাইতে দেখা গেছে দীপিকাকে। সেই হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপের অ্যাডমিনও ছিলেন দীপিকা। এরপর দুপুর ১২টার দিকে শ্রদ্ধা কাপুর এবং ১টার দিকে সারা আলী এনসিবি কার্যালয়ে যান। সুশান্তের সঙ্গে ‘ছিছোড়ে’ সিনেমায় অভিনয় করেন শ্রদ্ধা। তিনি জানান, তিনি সুশান্তের পার্টিতে গিয়েছিলেন কিন্তু মাদক সেবন করেননি। সারার প্রথম সিনেমা ‘কেদারনাথ’। এতে সুশান্তের সঙ্গে জুটি বেঁধে অভিনয় করেন তিনি। এনসিবি’র জিজ্ঞাসাবাদে সুশান্তের সঙ্গে থাইল্যান্ডে ভ্রমণ, এই অভিনেতার পার্টিতে হাজির হওয়ার বিষয় স্বীকার করেছেন সারা। তবে মাদক সেবনের বিষয়টি অস্বীকার করেছেন এই অভিনেত্রী।আনন্দবাজার পত্রিকার খবরে বলা হয়, সারা ও শ্রদ্ধা দু’জনেই সকালে তাদের পারিবারিক আইনজীবীর সঙ্গে মিটিং করেছেন।

শুক্রবার দীপিকা ও তার স্বামী রণবীর সিং শহরের একটি পাঁচ তারকা হোটেলে নামজাদা আইনজীবীর সঙ্গে কয়েক ঘণ্টা ধরে আলোচনা করেছেন।

সুশান্তের সাবেক ম্যানেজার জয়া সাহার সঙ্গে শ্রদ্ধা কাপুরের মাদক সংক্রান্ত একটি চ্যাট প্রকাশ্যে আসতেই এনসিবি’র নজরে আসেন শ্রদ্ধা। সেই চ্যাটে জয়া শ্রদ্ধাকে লিখেছিলেন, ‘সিবিডি অয়েল তোমার জন্য সংগ্রহ করে রেখেছি। পাঠিয়ে দেব।’ উত্তরে শ্রদ্ধা লেখেন, ‘ধন্যবাদ। আমি এসএলবির সঙ্গে দেখা করতে আগ্রহী।’ খুব সম্ভবত এসএলবি মানে পরিচালক সঞ্জয় লীলা বানসালির কথাই বোঝাতে চেয়েছিলেন। আর জয়া শ্রদ্ধার জন্য যে বস্তুটি কিনে রাখার কথা বলেছিলেন তা আদতে গাঁজা থেকে নিঃসৃত তেল জাতীয় পদার্থ। পুরো নাম ক্যানাবিডিয়ল।

অন্যদিকে এনসিবি সূত্রে খবর, মাদক সংশ্লিষ্টতায় সারার নাম প্রথম প্রকাশ্যে আনেন রিয়া চক্রবর্তী। রিয়া জেরায় বলেন, ‘কেদারনাথ’ শুটের সময়েই মাদকাসক্ত হয়ে পড়েন সুশান্ত। তখন থেকেই তিনি নাকি সিগারেটের মধ্যে গাঁজা পুরে খাওয়ার অভ্যাস করেছিলেন। প্রসঙ্গত ওই ছবিতেই সুশান্তের বিপরীতে ছিলেন সারা। যদিও রিয়ার আইনজীবীর বক্তব্য এনসিবি’র জিজ্ঞাসাবাদের সময় তার মক্কেল কোনো বলিউড স্টারের নাম নেননি।

এর আগে শুক্রবার অভিনেত্রী রাকুল প্রীত সিংকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে এনসিবি। এই অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগ, রিয়া চক্রবর্তীর সঙ্গে মাদক নিয়ে আলাপ করেছেন তিনি। জিজ্ঞাসাবাদে, মাদক নিয়ে রিয়ার সঙ্গে আলাপচারিতার বিষয়টি স্বীকার করেছেন রাকুল। তবে মাদক সেবনের বিষয়টি অস্বীকার করেছেন তিনি।

মাদক গ্রহণের অভিযোগ

অভিনেত্রী দীপিকা শ্রদ্ধা ও সারাকে জিজ্ঞাসাবাদ

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর মাদক মামলার তদন্তে দীপিকা পাড়ুকোন, সারা আলী খান ও শ্রদ্ধা কাপুরের নাম আসায় তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। শনিবার ভারতের নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোয় (এনসিবি) পৃথকভাবে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এর আগে একই মামলায় গ্রেফতার হয়েছেন অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তী। সম্প্রতি মাদক নিয়ে দীপিকা ও তার ম্যানেজার কারিশমা প্রকাশের একটি হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটিং ফাঁস হয়। এরপরই এই অভিনেত্রীকে ডেকে পাঠায় এনসিবি। শনিবার সকাল ১০টার দিকে এনসিবি কার্যালয়ে হাজির হন দীপিকা। হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটিংয়ের কথা স্বীকার করলেও মাদক সেবনের বিষয়টি অস্বীকার করেন তিনি।

তবে তার উত্তরে সন্তুষ্ট হতে পারেননি এনসিবি কর্মকর্তারা। প্রায় ৬ ঘণ্টা ধরে এনসিবির ৫ সদস্যের বিশেষ তদন্ত দল তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। দীপিকার সঙ্গে তার ম্যানেজার কারিশমা প্রকাশকেও মুখোমুখি বসিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। ভারতীয় গণমাধ্যমগুলোতে ফাঁস হওয়া মাদক চ্যাটে কারিশমার কাছ থেকেই নিষিদ্ধ মাদক চাইতে দেখা গেছে দীপিকাকে। সেই হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপের অ্যাডমিনও ছিলেন দীপিকা। এরপর দুপুর ১২টার দিকে শ্রদ্ধা কাপুর এবং ১টার দিকে সারা আলী এনসিবি কার্যালয়ে যান। সুশান্তের সঙ্গে ‘ছিছোড়ে’ সিনেমায় অভিনয় করেন শ্রদ্ধা। তিনি জানান, তিনি সুশান্তের পার্টিতে গিয়েছিলেন কিন্তু মাদক সেবন করেননি। সারার প্রথম সিনেমা ‘কেদারনাথ’। এতে সুশান্তের সঙ্গে জুটি বেঁধে অভিনয় করেন তিনি। এনসিবি’র জিজ্ঞাসাবাদে সুশান্তের সঙ্গে থাইল্যান্ডে ভ্রমণ, এই অভিনেতার পার্টিতে হাজির হওয়ার বিষয় স্বীকার করেছেন সারা। তবে মাদক সেবনের বিষয়টি অস্বীকার করেছেন এই অভিনেত্রী।আনন্দবাজার পত্রিকার খবরে বলা হয়, সারা ও শ্রদ্ধা দু’জনেই সকালে তাদের পারিবারিক আইনজীবীর সঙ্গে মিটিং করেছেন।

শুক্রবার দীপিকা ও তার স্বামী রণবীর সিং শহরের একটি পাঁচ তারকা হোটেলে নামজাদা আইনজীবীর সঙ্গে কয়েক ঘণ্টা ধরে আলোচনা করেছেন।

সুশান্তের সাবেক ম্যানেজার জয়া সাহার সঙ্গে শ্রদ্ধা কাপুরের মাদক সংক্রান্ত একটি চ্যাট প্রকাশ্যে আসতেই এনসিবি’র নজরে আসেন শ্রদ্ধা। সেই চ্যাটে জয়া শ্রদ্ধাকে লিখেছিলেন, ‘সিবিডি অয়েল তোমার জন্য সংগ্রহ করে রেখেছি। পাঠিয়ে দেব।’ উত্তরে শ্রদ্ধা লেখেন, ‘ধন্যবাদ। আমি এসএলবির সঙ্গে দেখা করতে আগ্রহী।’ খুব সম্ভবত এসএলবি মানে পরিচালক সঞ্জয় লীলা বানসালির কথাই বোঝাতে চেয়েছিলেন। আর জয়া শ্রদ্ধার জন্য যে বস্তুটি কিনে রাখার কথা বলেছিলেন তা আদতে গাঁজা থেকে নিঃসৃত তেল জাতীয় পদার্থ। পুরো নাম ক্যানাবিডিয়ল।

অন্যদিকে এনসিবি সূত্রে খবর, মাদক সংশ্লিষ্টতায় সারার নাম প্রথম প্রকাশ্যে আনেন রিয়া চক্রবর্তী। রিয়া জেরায় বলেন, ‘কেদারনাথ’ শুটের সময়েই মাদকাসক্ত হয়ে পড়েন সুশান্ত। তখন থেকেই তিনি নাকি সিগারেটের মধ্যে গাঁজা পুরে খাওয়ার অভ্যাস করেছিলেন। প্রসঙ্গত ওই ছবিতেই সুশান্তের বিপরীতে ছিলেন সারা। যদিও রিয়ার আইনজীবীর বক্তব্য এনসিবি’র জিজ্ঞাসাবাদের সময় তার মক্কেল কোনো বলিউড স্টারের নাম নেননি।

এর আগে শুক্রবার অভিনেত্রী রাকুল প্রীত সিংকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে এনসিবি। এই অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগ, রিয়া চক্রবর্তীর সঙ্গে মাদক নিয়ে আলাপ করেছেন তিনি। জিজ্ঞাসাবাদে, মাদক নিয়ে রিয়ার সঙ্গে আলাপচারিতার বিষয়টি স্বীকার করেছেন রাকুল। তবে মাদক সেবনের বিষয়টি অস্বীকার করেছেন তিনি।