করোনায় শনাক্ত ও মৃত্যু ফের বেড়েছে
jugantor
করোনায় শনাক্ত ও মৃত্যু ফের বেড়েছে

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২০ অক্টোবর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দেশে করোনাভাইরাসে শনাক্ত ও মৃত্যু আবারও বেড়েছে। বিগত ৩ দিন মৃত্যু ও শনাক্তের হার নিম্নমুখী হলেও গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ২১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময়ে নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছেন ১ হাজার ৬৩৭ জন।

এতে দেশে করোনাভাইরাসে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ৯০ হাজার ২০৬ জন। অন্যদিকে এ পর্যন্ত রোগটিতে মৃত্যু হয়েছে ৫ হাজার ৬৮১ জনের।

সোমবার স্বাস্থ্য অধিদফতরের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়। এতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় বাসা ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আরও ১ হাজার ৬২৭ জন রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

এতে সুস্থ রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ৫ হাজার ৫৯৯। গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ১১০টি ল্যাবে ১৫ হাজার ১৪৬টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এ পর্যন্ত পরীক্ষা হয়েছে ২১ লাখ ৭৮ হাজার ৭১৪ নমুনা।

২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্তের হার ১০ দশমিক ৮১ শতাংশ, এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৭ দশমিক ৯১ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৭৮ দশমিক ৩২ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৪৬ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় যাদের মৃত্যু হয়েছে তাদের মধ্যে পুরুষ ১৪ জন, নারী ৭ জন। এদের মধ্যে ২০ জন হাসপাতালে এবং ১ জনের বাড়িতে মৃত্যু হয়েছে।

বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত ২১ জনের মধ্যে শূন্য থেকে ১০ বছর বয়সী একজন, ত্রিশোর্ধ্ব একজন, চল্লিশোর্ধ্ব একজন, পঞ্চাশোর্ধ্ব পাঁচজন এবং ষাটোর্ধ্ব ১৩ জন।

এছাড়া বিভাগ ভিত্তিক বিশ্লেষণে ঢাকা বিভাগে ১৩ জন, চট্টগ্রামে চারজন, রাজশাহী তিনজন এবং বরিশাল বিভাগে একজন রয়েছেন। দেশে এ পর্যন্ত ৪ হাজার ৩৭১ জন পুরুষ এবং ১ হাজার ৩১০ জন নারী মারা গেছেন।

গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর চীনের উহান নগরীতে প্রথম করোনাভাইরাস চিহ্নিত হয়। বাংলাদেশে ভাইরাসটির সংক্রমণ নিশ্চিত হয় ৮ মার্চ এবং প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটে ১৮ মার্চ।

বিশ্বে আক্রান্ত ৪ কোটি ৩ লাখ- অ্যাস্ট্রজেনেকার সব টিকা কিনে নিতে চান ট্রাম্প : যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিটি নাগরিক করোনার টিকা পাবে। আগামী বছর ৪০ কোটি ভ্যাকসিনের ডোজ চলে আসবে।

এমনটাই ঘোষণা করেছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। এবার জানা গেছে, ব্রিটিশ সুইডিশ ফার্ম অ্যাস্ট্রজেনেকার উৎপাদিত সব টিকা কিনে নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। খবর ডেইলি মেইলসহ বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের।

করোনাভাইরাসের সম্ভাব্য ভ্যাকসিনের তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল করছে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রজেনেকা। এ কোম্পানিটিকে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ১০ কোটি টিকার প্রস্তাব দিয়ে রেখেছেন।

তবে অ্যাস্ট্রজেনেকার মুখপাত্র জানিয়েছেন, কোভিড ভ্যাকসিনের ডোজ কেনার কথাবার্তা চলছে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে। যুক্তরাষ্ট্রের রেগুলেটরি কমিটি যদি আগে টিকার ডোজ বুক করে দেয় তাহলে দেশটিকে তারা তা দিতে বাধ্য।

তার মানে ব্রিটেনের আগেই অ্যাস্ট্রজেনেকার টিকার ডোজ পাবে যুক্তরাষ্ট্র। এজন্য ট্রাম্প প্রশাসন ১.২ বিলিয়ন ডলার দিয়েছে কোম্পানিটিকে।

টিকার বণ্টন অর্থের জোরে নয় বরং সংহতি মেনে করা উচিত, এমন দাবি উঠেছে বিশ্বজুড়েই। বিল গেটস বলেছেন, বড় বড় রাষ্ট্রনেতা ক্ষমতা আর অর্থের জোরে আগে থেকেই টিকা কিনে রাখার পরিকল্পনা করেছেন, যার মানে হল গরিব ও পিছিয়ে পড়া দেশগুলোতে টিকার কোনো ডোজই পৌঁছবে না। সারা বিশ্বে টিকার সমবণ্টন না হলে করোনা মহামারীকে থামানো সম্ভব নয়।

ভ্যাকসিনের সমবণ্টনের জন্য ‘কোভিড ভ্যাকসিন গ্লোবাল অ্যাকসেস’ কর্মসূচি নিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। কিন্তু সংস্থাটির সঙ্গে করোনা ভ্যাকসিন নিয়ে কাজ না করার কথা সাফ জানিয়ে দিয়েছেন ট্রাম্প।

এদিকে বাংলাদেশ সময় সোমবার রাত ৭টা পর্যন্ত ওয়ার্ল্ডওমিটারসের তথ্য অনুযায়ী- বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৪ কোটি ৩ লাখ ৬৬ হাজার ৯৮৪ জন। মারা গেছেন ১১ লাখ ১৯ হাজার ৪৭১ জন।

অবস্থা আশঙ্কাজনক ৭২ হাজার ৯১ জনের। সুস্থ হয়েছেন ৩ কোটি ১ লাখ ৫৬ হাজার ১৪৫ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন রেকর্ড ৩ লাখ ২৪ হাজার ৮৪৩ জন, মারা গেছেন ৩ হাজার ৯৬৮ জন।

বিশ্ব তালিকায় শীর্ষে থাকা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে মোট আক্রান্ত ৮৩ লাখ ৮৮ হাজার ১৩ জন, মারা গেছেন ২ লাখ ২৪ হাজার ৭৩২ জন।

তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে থাকা ভারতে মোট রোগী ৭৫ লাখ ৫২ হাজার ২৫৪ জন, মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ১৪ হাজার ৬৭০ জনের।

বিশ্বে তৃতীয় স্থানে থাকা ব্রাজিলে মোট আক্রান্ত ৫২ লাখ ৩৫ হাজার ৩৮৫ জন, মারা গেছেন ১ লাখ ৫৩ হাজার ৯০৫ জন। চতুর্থ স্থানে রাশিয়ায় মোট রোগীর সংখ্যা ১৪ লাখ ১৫ হাজার ৩৪৫ জন, মারা গেছেন ২৪ হাজার ৩৬৬ জন।

ইউরোপে মৃত্যু আড়াই লাখ ছাড়িয়েছে : ইউরোপে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ২ লাখ ৫০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। মৃতের এ সংখ্যার দুই-তৃতীয়াংশের বেশি ঘটে এ মহাদেশের সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত পাঁচটি দেশে।

এএফপির পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ব্রিটেনে ৪৩ হাজার ৬৪৬ জন, ইতালিতে ৩৬ হাজার ৫৪৩ জন, স্পেনে ৩৩ হাজার ৭৭৫ জন, ফ্রান্সে ৩৩ হাজার ৩৯২ জন মারা গেছেন। এছাড়া রাশিয়ায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২৪ হাজার ১৮৭ জনে দাঁড়িয়েছে।

সস্ত্রীক আক্রান্ত দ. আফ্রিকার স্বাস্থ্যমন্ত্রী : দক্ষিণ আফ্রিকার স্বাস্থ্যমন্ত্রী জিওয়েলি মিখিজে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। ভাইরাসটির সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে তার স্ত্রীর শরীরেও।

স্থানীয় সময় রোববার দক্ষিণ আফ্রিকার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে স্ত্রীসহ স্বাস্থ্যমন্ত্রীর করোনা শনাক্তের তথ্য জানানো হয়েছে।

ইতালিতে নতুন বিধিনিষেধ : করোনা সংক্রমণ বাড়তে থাকায় ইতালিতে নতুন করে বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে।

রোববার টেলিভিশনে দেয়া ভাষণে ইতালির প্রধানমন্ত্রী গুসেপ্পি কন্তে বলেন, রাত ৯টার পর কোনো পাবলিক প্লেস যেন উন্মুক্ত না থাকে সে বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য মেয়রদের ক্ষমতা দেয়া হয়েছে।

এছাড়া রেস্টুরেন্টগুলো কখন চালু করা হবে এবং একসঙ্গে কতজন জড়ো হতে পারবেন, সে বিষয়েও মেয়ররা নির্দেশনা দেবেন।

করোনায় শনাক্ত ও মৃত্যু ফের বেড়েছে

 যুগান্তর রিপোর্ট 
২০ অক্টোবর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দেশে করোনাভাইরাসে শনাক্ত ও মৃত্যু আবারও বেড়েছে। বিগত ৩ দিন মৃত্যু ও শনাক্তের হার নিম্নমুখী হলেও গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ২১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময়ে নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছেন ১ হাজার ৬৩৭ জন।

এতে দেশে করোনাভাইরাসে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ৯০ হাজার ২০৬ জন। অন্যদিকে এ পর্যন্ত রোগটিতে মৃত্যু হয়েছে ৫ হাজার ৬৮১ জনের। 

সোমবার স্বাস্থ্য অধিদফতরের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়। এতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় বাসা ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আরও ১ হাজার ৬২৭ জন রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

এতে সুস্থ রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ৫ হাজার ৫৯৯। গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ১১০টি ল্যাবে ১৫ হাজার ১৪৬টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এ পর্যন্ত পরীক্ষা হয়েছে ২১ লাখ ৭৮ হাজার ৭১৪ নমুনা।

২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্তের হার ১০ দশমিক ৮১ শতাংশ, এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৭ দশমিক ৯১ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৭৮ দশমিক ৩২ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৪৬ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় যাদের মৃত্যু হয়েছে তাদের মধ্যে পুরুষ ১৪ জন, নারী ৭ জন। এদের মধ্যে ২০ জন হাসপাতালে এবং ১ জনের বাড়িতে মৃত্যু হয়েছে।

বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত ২১ জনের মধ্যে শূন্য থেকে ১০ বছর বয়সী একজন, ত্রিশোর্ধ্ব একজন, চল্লিশোর্ধ্ব একজন, পঞ্চাশোর্ধ্ব পাঁচজন এবং ষাটোর্ধ্ব ১৩ জন।

এছাড়া বিভাগ ভিত্তিক বিশ্লেষণে ঢাকা বিভাগে ১৩ জন, চট্টগ্রামে চারজন, রাজশাহী তিনজন এবং বরিশাল বিভাগে একজন রয়েছেন। দেশে এ পর্যন্ত ৪ হাজার ৩৭১ জন পুরুষ এবং ১ হাজার ৩১০ জন নারী মারা গেছেন।

গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর চীনের উহান নগরীতে প্রথম করোনাভাইরাস চিহ্নিত হয়। বাংলাদেশে ভাইরাসটির সংক্রমণ নিশ্চিত হয় ৮ মার্চ এবং প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটে ১৮ মার্চ।

বিশ্বে আক্রান্ত ৪ কোটি ৩ লাখ- অ্যাস্ট্রজেনেকার সব টিকা কিনে নিতে চান ট্রাম্প : যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিটি নাগরিক করোনার টিকা পাবে। আগামী বছর ৪০ কোটি ভ্যাকসিনের ডোজ চলে আসবে।

এমনটাই ঘোষণা করেছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। এবার জানা গেছে, ব্রিটিশ সুইডিশ ফার্ম অ্যাস্ট্রজেনেকার উৎপাদিত সব টিকা কিনে নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। খবর ডেইলি মেইলসহ বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের। 

করোনাভাইরাসের সম্ভাব্য ভ্যাকসিনের তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়াল করছে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রজেনেকা। এ কোম্পানিটিকে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ১০ কোটি টিকার প্রস্তাব দিয়ে রেখেছেন।

তবে অ্যাস্ট্রজেনেকার মুখপাত্র জানিয়েছেন, কোভিড ভ্যাকসিনের ডোজ কেনার কথাবার্তা চলছে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে। যুক্তরাষ্ট্রের রেগুলেটরি কমিটি যদি আগে টিকার ডোজ বুক করে দেয় তাহলে দেশটিকে তারা তা দিতে বাধ্য।

তার মানে ব্রিটেনের আগেই অ্যাস্ট্রজেনেকার টিকার ডোজ পাবে যুক্তরাষ্ট্র। এজন্য ট্রাম্প প্রশাসন ১.২ বিলিয়ন ডলার দিয়েছে কোম্পানিটিকে।

টিকার বণ্টন অর্থের জোরে নয় বরং সংহতি মেনে করা উচিত, এমন দাবি উঠেছে বিশ্বজুড়েই। বিল গেটস বলেছেন, বড় বড় রাষ্ট্রনেতা ক্ষমতা আর অর্থের জোরে আগে থেকেই টিকা কিনে রাখার পরিকল্পনা করেছেন, যার মানে হল গরিব ও পিছিয়ে পড়া দেশগুলোতে টিকার কোনো ডোজই পৌঁছবে না। সারা বিশ্বে টিকার সমবণ্টন না হলে করোনা মহামারীকে থামানো সম্ভব নয়।

ভ্যাকসিনের সমবণ্টনের জন্য ‘কোভিড ভ্যাকসিন গ্লোবাল অ্যাকসেস’ কর্মসূচি নিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। কিন্তু সংস্থাটির সঙ্গে করোনা ভ্যাকসিন নিয়ে কাজ না করার কথা সাফ জানিয়ে দিয়েছেন ট্রাম্প।

এদিকে বাংলাদেশ সময় সোমবার রাত ৭টা পর্যন্ত ওয়ার্ল্ডওমিটারসের তথ্য অনুযায়ী- বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৪ কোটি ৩ লাখ ৬৬ হাজার ৯৮৪ জন। মারা গেছেন ১১ লাখ ১৯ হাজার ৪৭১ জন।

অবস্থা আশঙ্কাজনক ৭২ হাজার ৯১ জনের। সুস্থ হয়েছেন ৩ কোটি ১ লাখ ৫৬ হাজার ১৪৫ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন রেকর্ড ৩ লাখ ২৪ হাজার ৮৪৩ জন, মারা গেছেন ৩ হাজার ৯৬৮ জন। 

বিশ্ব তালিকায় শীর্ষে থাকা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে মোট আক্রান্ত ৮৩ লাখ ৮৮ হাজার ১৩ জন, মারা গেছেন ২ লাখ ২৪ হাজার ৭৩২ জন।

তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে থাকা ভারতে মোট রোগী ৭৫ লাখ ৫২ হাজার ২৫৪ জন, মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ১৪ হাজার ৬৭০ জনের।

বিশ্বে তৃতীয় স্থানে থাকা ব্রাজিলে মোট আক্রান্ত ৫২ লাখ ৩৫ হাজার ৩৮৫ জন, মারা গেছেন ১ লাখ ৫৩ হাজার ৯০৫ জন। চতুর্থ স্থানে রাশিয়ায় মোট রোগীর সংখ্যা ১৪ লাখ ১৫ হাজার ৩৪৫ জন, মারা গেছেন ২৪ হাজার ৩৬৬ জন।  

ইউরোপে মৃত্যু আড়াই লাখ ছাড়িয়েছে : ইউরোপে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ২ লাখ ৫০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। মৃতের এ সংখ্যার দুই-তৃতীয়াংশের বেশি ঘটে এ মহাদেশের সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত পাঁচটি দেশে।

এএফপির পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ব্রিটেনে ৪৩ হাজার ৬৪৬ জন, ইতালিতে ৩৬ হাজার ৫৪৩ জন, স্পেনে ৩৩ হাজার ৭৭৫ জন, ফ্রান্সে ৩৩ হাজার ৩৯২ জন মারা গেছেন। এছাড়া রাশিয়ায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২৪ হাজার ১৮৭ জনে দাঁড়িয়েছে।

সস্ত্রীক আক্রান্ত দ. আফ্রিকার স্বাস্থ্যমন্ত্রী : দক্ষিণ আফ্রিকার স্বাস্থ্যমন্ত্রী জিওয়েলি মিখিজে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। ভাইরাসটির সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে তার স্ত্রীর শরীরেও।

স্থানীয় সময় রোববার দক্ষিণ আফ্রিকার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে স্ত্রীসহ স্বাস্থ্যমন্ত্রীর করোনা শনাক্তের তথ্য জানানো হয়েছে।

ইতালিতে নতুন বিধিনিষেধ : করোনা সংক্রমণ বাড়তে থাকায় ইতালিতে নতুন করে বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে।

রোববার টেলিভিশনে দেয়া ভাষণে ইতালির প্রধানমন্ত্রী গুসেপ্পি কন্তে বলেন, রাত ৯টার পর কোনো পাবলিক প্লেস যেন উন্মুক্ত না থাকে সে বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য মেয়রদের ক্ষমতা দেয়া হয়েছে।

এছাড়া রেস্টুরেন্টগুলো কখন চালু করা হবে এবং একসঙ্গে কতজন জড়ো হতে পারবেন, সে বিষয়েও মেয়ররা নির্দেশনা দেবেন।