ছুটির দিনে নরসিংদীর সড়কে প্রাণ গেল ৯ জনের

আরও সাত জেলায় ৮ জনের প্রাণহানি

  যুগান্তর ডেস্ক ০৭ এপ্রিল ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

নরসিংদী
ফাইল ছবি

ছুটির দিনে আট জেলায় ১০টি সড়ক দুর্ঘটনায় ১৭ জনের প্রাণহানি হয়েছে। এ সময় আহত হয়েছেন আরও ৮ জন। এর মধ্যে শুধু নরসিংদীতে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে শুক্রবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত তিনটি দুর্ঘটনায় প্রাণ যায় ৯ জনের। সকালে নরসিংদীর রায়পুরার চারারবাগে বাসচাপায় মোটরসাইকেলের ৪ আরোহী, দুপুরে বাগহাটায় প্রাইভেট কারের ধাক্কায় ২ মোটরসাইকেল আরোহী ও মাধবদীতে বাসের ধাক্কায় চালকসহ ৩ রিকশা আরোহীর মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া শেরপুর, চট্টগ্রাম, নওগাঁ, ঝিনাইদহ, জয়পুরহাট, দিনাজপুর ও চুয়াডাঙ্গায় আরও ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। যুগান্তর বু্যুরো ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

নরসিংদী : ভৈরব হাইওয়ে পুলিশ জানায়, সকাল সাড়ে ৭টার দিকে ভৈরব থেকে ঢাকাগামী অনন্যা সুপার পরিবহনের একটি বাস রায়পুরার ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের চারারবাগ পৌঁছলে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি মোটরসাইকেলকে চাপা দেয়। মোটরসাইকেলে থাকা ৪ আরোহী ঘটনাস্থলেই মারা যান। এ সময় রাস্তার পাশ দিয়ে হেঁটে যাওয়া এক পথচারী গুরুতর আহত হন। ঘটনার পর ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে প্রায় ২০ মিনিট যান চলাচল বন্ধ ছিল। পরে ভৈরব হাইওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ৪ জনের লাশ উদ্ধার করে।

দুর্ঘটনায় নিহতরা হলেন- শিবপুরের ঘোড়ারগাঁওয়ের সুলতান মিয়ার ছেলে ইয়ামীন (২৪), রায়পুরার মরজাল পশ্চিমপাড়ার মৃত হাফিজ উদ্দিনের ছেলে ডালিম (১৬), একই এলাকার সুরুজ মিয়ার ছেলে সোহাগ (১৭) ও আসাদ মিয়ার ছেলে রমজান (১৬)। তারা সবাই শ্রমিক।

দুপুর পৌনে ২টার দিকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের মাধবদী এলাকায় আরেক দুর্ঘটনায় ৩ জন নিহত হয়েছেন। নিহতরা হলেন- মাধবদীর বিরামপুরের রতন মিয়া (৪৪), আমদিয়ার অজ্ঞাতপরিচয় একজন ও ময়মনসিংহের মকবুল হোসেন (৪২)। মাধবদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইলিয়াছ জানান, ঢাকা থেকে একটি যাত্রীবাহী বাস হবিগঞ্জ যাচ্ছিল। পেছন দিক থেকে বাসটি একটি রিকশা ও এক পথচারীকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই রিকশার যাত্রী রতন মিয়াসহ অজ্ঞাতপরিচয় এক ব্যক্তি মারা যান। আহত পথচারীকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

দুপুর আড়াইটার দিকে একই মহাসড়কে নরসিংদীর বাগহাটা মসজিদের সামনে প্রাইভেট কার ও মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে স্বামী-স্ত্রীর মৃত্যু হয়েছে। নিহতরা হলেন- আমিনুল ইসলাম ও তার স্ত্রী মানসুরা বেগম। তাদের বাড়ি নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে। পরে স্থানীয়রা প্রাইভেট কারটি আটক করলেও চালক পালিয়ে যায়।

চট্টগ্রাম : ফটিকছড়িতে ট্রাক ও সিএনজিচালিত অটোরিকশার সংঘর্ষে সাবরিন হোসেন নামে চার মাসের এক শিশু নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন শিশুর মা, ফুপু, নানি ও চালক। শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ফটিকছড়ি উপজেলার দাঁতমারা ইউনিয়নের ভুজপুরে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ভুজপুর থানার ওসি (তদন্ত) মো. হেলাল উদ্দিন জানান, আহতদের রামগড় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় ট্রাক ও সিএনজিচালিত অটোরিকশাটি জব্দ করা হয়েছে।

বিরামপুর (দিনাজপুর) : দুপুরে হাকিমপুর উপজেলার সাধুরিয়া গ্রামের বলয় মণ্ডল তার বড় ভাইয়ের মেয়ে প্রিয়া মণ্ডলকে (১৬) মোটরসাইকেলে নিয়ে ফুলবাড়ি উপজেলায় শ্রাদ্ধ অনুষ্ঠানে যাচ্ছিলেন। বিরামপুর শহরের সোনালী ব্যাংকের সামনে মোটরসাইকেল ব্রেক করলে প্রিয়া মণ্ডল মোটরসাইকেল থেকে পাকা রাস্তায় পড়ে যায়। এ সময় মাটিবাহী একটি দ্রুতগামী ট্রলি প্রিয়াকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। সে দশম শ্রেণীর ছাত্রী ছিল। পুলিশ ট্রলিটি জব্দ করেছে।

শেরপুর : সকালে শেরপুর সদর উপজেলার আন্ধারিয়া বানিয়াপাড়া গ্রামে মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশের গাছের সঙ্গে ধাক্কা খায়। এতে মোটরসাইকেলের আরোহী দুই বেকারি শ্রমিক নিহত হয়েছেন। নিহতরা হলেন- নকলা উপজেলার পোলাদেশি গ্রামের মৃত মুকুল মিয়ার ছেলে জানু মিয়া (১৭) ও একই গ্রামের আবদুস সালামের ছেলে রাজিব (১৮)। নিহতরা সদর উপজেলার তারাকান্দি বাজারের একটি বেকারির শ্রমিক। নিহতের পরিবার দুই শ্রমিকের লাশ বিনা ময়নাতদন্তে নিয়ে দাফন করেছেন বলে জানান সদর থানার এসআই শামসুল ইসলাম।

চুয়াডাঙ্গা : বৃহস্পতিবার রাতে ট্রাকের ধাক্কায় আলমসাধুচাপা পড়ে এক চুল ব্যবসায়ী মারা যান। নিহত বদর উদ্দিন দামুড়হুদা উপজেলার কুতুবপুর গ্রামের মৃত গবর উদ্দিনের ছেলে। বিকালে তিনি পাঁচমাইল বাজারে রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে ছিলেন। এ সময় রাস্তার ধারে থেমে থাকা আলমসাধুকে ধাক্কা দিয়ে চলে যায় একটি ট্রাক। আর আলমসাধুর ধাক্কায় গুরুতর জখম হন বদর উদ্দিন। তাকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তির পর ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। রাতে তিনি মারা যান।

জয়পুরহাট : শুক্রবার সন্ধ্যায় জয়পুরহাট সদর উপজেলার কুঠিবাড়ি এলাকায় বাসের চাপায় জবেদুল ইসলাম (৬৭) নামে এক বৃদ্ধ বাইসাইকেল চালকের মৃত্যু হয়েছে। তার বাড়ি জয়পুরহাট সদর উপজেলার চকভারুনিয়া গ্রামে।

নওগাঁ : শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে নওগাঁ-রাজশাহী মহাসড়কের সদর উপজেলার বলিহার ইউনিয়নের জলছত্র নামক স্থানে যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কায় পল্লী চিকিৎসক বাবুল হোসেন (৩৪) নিহত হয়েছেন। তিনি জেলার মহাদেবপুর উপজেলার ভীমপুর সরদারপাড়া গ্রামের মৃত আয়েশ উদ্দীনের ছেলে।

ঝিনাইদহ : সদর উপজেলার বাজারগোপালপুর-হলিধানী সড়কে মাহেন্দ ও পাওয়ার টিলারের সংঘর্ষে আনোয়ার বেগম (৫০) নামের এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও তিনজন। শুক্রবার সকালে ওই সড়কের মহামায়া নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত আনোয়ারা বেগম কুষ্টিয়া জেলার মিরপুর উপজেলার কাকিলাদহ গ্রামের হাশেম আলীর স্ত্রী।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×