করোনা শনাক্তের হার ১০ শতাংশের নিচে
jugantor
করোনা শনাক্তের হার ১০ শতাংশের নিচে

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২৫ অক্টোবর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরও ১০৯৪ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। যা গত পৌনে তিন মাসে সবচেয়ে কম। এতে শনাক্তের হার ১০ শতাংশের নিচে নেমে এসেছে। এ দিন শনাক্তের হার ৯ দশমিক ৯৫ শতাংশ।

এর আগে ঈদুল আজহার পরদিন ২ আগস্ট ৮৮৬ রোগী শনাক্ত হয়। এ পর্যন্ত মোট ২২ লাখ ৪৬ হাজার ৪৮৬টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। সে হিসাবে মোট শনাক্তের হার ১৭ দশমিক ৬৯ শতাংশ।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়। এতে উল্লেখ করা হয়, নতুন শনাক্ত রোগীদের নিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ৯৭ হাজার ৫০৭।

এর আগে ১৬ মে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা হাজারের নিচে ছিল। সেদিন ৯৩০ জন শনাক্ত হয়েছিল। তবে এরপর থেকে সংক্রমণের গতি বেড়েছিল।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের তথ্য অনুযায়ী ২৪ ঘণ্টায় মোট ১৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। যা আগের দিনের চেয়ে ৫ জন বেশি। নতুন ১৯ জনকে নিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৭৮০।

এই সংখ্যা শনাক্ত মোট রোগীর ১ দশমিক ৪৫ শতাংশ। গত একদিনে যাদের মৃত্যু হয়েছে, তাদের মধ্যে পুরুষ ১৭ জন, নারী ২ জন। তাদের প্রত্যেকেরই মৃত্যু হয়েছে হাসপাতালে।

মৃতদের মধ্যে ১০ জনের বয়স ছিল ৬০ বছরের বেশি। ৩ জনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে এবং ৪ জনের বয়স ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে, ১ জনের বয়স ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে এবং ১ জনের বয়স ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে।

মৃতদের মধ্যে ১৩ জন ঢাকা বিভাগের এবং ৩ জন চট্টগ্রাম বিভাগের, ১ জন খুলনা বিভাগের এবং ২ জন ময়মনসিংহ বিভাগের বাসিন্দা ছিলেন।

এই সময়ে বাসা ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আরও ১ হাজার ৪৯৮ জন রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন। এতে সুস্থ রোগীর মোট সংখ্যা বেড়ে ৩ লাখ ১৩ হাজার ৫৬৩ জন হয়েছে। সুস্থতার হার ৭৮ দশমিক ৮৮ শতাংশ।

মহামারীর জটিল সন্ধিক্ষণে বিশ্ব -বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা : বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। দীর্ঘ হচ্ছে মৃত্যুর মিছিলও। গেল ২৪ ঘণ্টায় আবারও একদিনে শনাক্তের নতুন রেকর্ড তৈরি হয়েছে। আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৫ লাখ মানুষ।

এতে বিশ্বে মোট কোভিড রোগীর সংখ্যা ৪ কোটি ২৫ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। করোনা কেড়ে নিয়েছে সাড়ে ১১ লাখ প্রাণ। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা হুশিয়ারি দিয়ে বলেছে, বিশ্ব এখন করোনা মহামারীর জটিল সন্ধিক্ষণে।

আগামী কয়েক মাস কয়েকটি দেশে পরিস্থিতি আরও কঠিন হতে পারে। বিপজ্জনক পথে রয়েছে কয়েকটি দেশ। খবর বিবিসি ও এএফপিসহ বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের।

শুক্রবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান তেদ্রোস আধানম গেব্রিয়াসুস এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে বলেন, আরও অপ্রয়োজনীয় মৃত্যু ঠেকাতে আমরা বিশ্বনেতাদের দ্রুত পদক্ষেপ নিতে আহ্বান জানাচ্ছি।

আমি ফেব্রুয়ারিতে যেমনটা বলেছিলাম, সেটি আবারও বলছি। তিনি বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে সবচেয়ে বেশি প্রাণহানি ও আক্রান্তের পরও দেশটির অনেক রাজ্য তাদের অর্থনীতি পুনরুদ্ধারের জন্য পদক্ষেপ নেয়ায় সংক্রমণ আবারও বেড়ে গেছে।

আমরা এখন এ মহামারীর একটি সংকটময় মুহূর্ত পর করছি। বিশেষ করে উত্তর গোলার্ধের দেশগুলো বেশি ঝুঁকিতে রয়েছে। তাই বিশ্বনেতাদের আগে থেকেই সতর্ক থাকতে হবে।

বাংলাদেশ সময় শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা পর্যন্ত ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৪ কোটি ২৫ লাখ ৮৪ হাজার ২৮৭ জন। মারা গেছেন ১১ লাখ ৫০ হাজার ৭৫৯ জন।

অবস্থা আশঙ্কাজনক ৭৫ হাজার ৬৪৮ জনের। সুস্থ হয়েছেন ৩ কোটি ১২ লাখ ৪০ হাজার ৫৪৪ জন। ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন রেকর্ড ৪ লাখ ৯০ হাজার ২১ জন, মারা গেছেন ৬ হাজার ৫৩৫ জন।

বিশ্বতালিকায় শীর্ষে থাকা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে মোট আক্রান্ত ৮৭ লাখ ৫২ হাজার ১৮৫ জন, মারা গেছেন ২ লাখ ২৯ হাজার ৩২৩ জন।

তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে থাকা ভারতে মোট রোগী ৭৮ লাখ ১৪ হাজার ৬৫৪ জন, মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ১৭ হাজার ৯৫৪ জনের।

বিশ্বে তৃতীয় স্থানে থাকা ব্রাজিলে মোট আক্রান্ত ৫৩ লাখ ৫৫ হাজার ৬৪৭ জন, মারা গেছেন ১ লাখ ৫৬ হাজার ৫৪২ জন।

করোনায় আক্রান্ত পোল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট : করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন পোল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট আন্দ্রেজ দুদা। তবে ৪৮ বছর বয়সী এই প্রেসিডেন্টের অবস্থা ভালো রয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন তার মুখপাত্র।

শনিবার এক বিবৃতিতে দুদার মুখপাত্র ব্লেজেজ স্পাইকালস্কি জানান, শুক্রবার প্রেসিডেন্টের করোনার পরীক্ষা করা হলে পজিটিভ আসে। সাম্প্রতিক সময়ে বিশ্বের বেশ কয়েকজন নেতার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন দুদা।

এর মধ্যে অধিকাংশই করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। ওই তালিকায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও রয়েছেন।

প্লাজমা থেরাপি উপযোগী নয় : করোনা চিকিৎসায় প্লাজমা থেরাপির কোনো উপযোগিতা খুঁজে পায়নি ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিকেল রিসার্চ (আইসিএমআর)।

তাদের গবেষণাপত্র প্রকাশিত হয়েছে ব্রিটিশ মেডিকেল জার্নালে। সেখানে বলা হয়, এই থেরাপির ফলে অসুস্থ রোগীদের নিরাময় করা সম্ভব হয়নি।

গবেষকরা জানান, রোগীদের দুটি গ্রুপকে বিভক্ত করে এই পরীক্ষা করা হয়। ২৩৫ জনকে দেয়া হয় প্লাজমা থেরাপি এবং ২২৯ জন পান সাধারণ চিকিৎসা। দেখা গেছে, রোগীদের সেরে ওঠায় প্লাজমা থেরাপি তেমন কোনো কাজ করছে না।

করোনায় মৃতের ফুসফুস বলের মতো শক্ত : করোনায় মারা যাওয়া ৬২ বছরের এক ব্যক্তির ফুসফুস বলের মতো শক্ত হয়ে গেছে। তা দেখে বিস্মিত হয়েছেন চিকিৎসকরা।

ভারতের কর্ণাটকের বাসিন্দা ওই বৃদ্ধের লাশের ময়নাতদন্ত রিপোর্টে দেখা যায়, করোনার কারণে তার ফুসফুস বলের মতো শক্ত হয়ে গেছে। পাশাপাশি অনেক শিরা-উপশিরাতেই রক্ত জমাট বেঁধে গেছে, অনেক ধমনি ফেটে রক্তক্ষরণ হয়েছে।

করোনা শনাক্তের হার ১০ শতাংশের নিচে

 যুগান্তর রিপোর্ট 
২৫ অক্টোবর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরও ১০৯৪ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। যা গত পৌনে তিন মাসে সবচেয়ে কম। এতে শনাক্তের হার ১০ শতাংশের নিচে নেমে এসেছে। এ দিন শনাক্তের হার ৯ দশমিক ৯৫ শতাংশ।

এর আগে ঈদুল আজহার পরদিন ২ আগস্ট ৮৮৬ রোগী শনাক্ত হয়। এ পর্যন্ত মোট ২২ লাখ ৪৬ হাজার ৪৮৬টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। সে হিসাবে মোট শনাক্তের হার ১৭ দশমিক ৬৯ শতাংশ। 

স্বাস্থ্য অধিদফতরের বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়। এতে উল্লেখ করা হয়, নতুন শনাক্ত রোগীদের নিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ৯৭ হাজার ৫০৭।

এর আগে ১৬ মে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা হাজারের নিচে ছিল। সেদিন ৯৩০ জন শনাক্ত হয়েছিল। তবে এরপর থেকে সংক্রমণের গতি বেড়েছিল।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের তথ্য অনুযায়ী ২৪ ঘণ্টায় মোট ১৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। যা আগের দিনের চেয়ে ৫ জন বেশি। নতুন ১৯ জনকে নিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৭৮০।

এই সংখ্যা শনাক্ত মোট রোগীর ১ দশমিক ৪৫ শতাংশ। গত একদিনে যাদের মৃত্যু হয়েছে, তাদের মধ্যে পুরুষ ১৭ জন, নারী ২ জন। তাদের প্রত্যেকেরই মৃত্যু হয়েছে হাসপাতালে।

মৃতদের মধ্যে ১০ জনের বয়স ছিল ৬০ বছরের বেশি। ৩ জনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে এবং ৪ জনের বয়স ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে, ১ জনের বয়স ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে এবং ১ জনের বয়স ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে।

মৃতদের মধ্যে ১৩ জন ঢাকা বিভাগের এবং ৩ জন চট্টগ্রাম বিভাগের, ১ জন খুলনা বিভাগের এবং ২ জন ময়মনসিংহ বিভাগের বাসিন্দা ছিলেন।

এই সময়ে বাসা ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আরও ১ হাজার ৪৯৮ জন রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন। এতে সুস্থ রোগীর মোট সংখ্যা বেড়ে ৩ লাখ ১৩ হাজার ৫৬৩ জন হয়েছে। সুস্থতার হার ৭৮ দশমিক ৮৮ শতাংশ।

মহামারীর জটিল সন্ধিক্ষণে বিশ্ব -বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা : বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। দীর্ঘ হচ্ছে মৃত্যুর মিছিলও। গেল ২৪ ঘণ্টায় আবারও একদিনে শনাক্তের নতুন রেকর্ড তৈরি হয়েছে। আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৫ লাখ মানুষ।

এতে বিশ্বে মোট কোভিড রোগীর সংখ্যা ৪ কোটি ২৫ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। করোনা কেড়ে নিয়েছে সাড়ে ১১ লাখ প্রাণ। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা হুশিয়ারি দিয়ে বলেছে, বিশ্ব এখন করোনা মহামারীর জটিল সন্ধিক্ষণে।

আগামী কয়েক মাস কয়েকটি দেশে পরিস্থিতি আরও কঠিন হতে পারে। বিপজ্জনক পথে রয়েছে কয়েকটি দেশ। খবর বিবিসি ও এএফপিসহ বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের। 

শুক্রবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান তেদ্রোস আধানম গেব্রিয়াসুস এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে বলেন, আরও অপ্রয়োজনীয় মৃত্যু ঠেকাতে আমরা বিশ্বনেতাদের দ্রুত পদক্ষেপ নিতে আহ্বান জানাচ্ছি।

আমি ফেব্রুয়ারিতে যেমনটা বলেছিলাম, সেটি আবারও বলছি। তিনি বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে সবচেয়ে বেশি প্রাণহানি ও আক্রান্তের পরও দেশটির অনেক রাজ্য তাদের অর্থনীতি পুনরুদ্ধারের জন্য পদক্ষেপ নেয়ায় সংক্রমণ আবারও বেড়ে গেছে।

আমরা এখন এ মহামারীর একটি সংকটময় মুহূর্ত পর করছি। বিশেষ করে উত্তর গোলার্ধের দেশগুলো বেশি ঝুঁকিতে রয়েছে। তাই বিশ্বনেতাদের আগে থেকেই সতর্ক থাকতে হবে। 

বাংলাদেশ সময় শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা পর্যন্ত ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৪ কোটি ২৫ লাখ ৮৪ হাজার ২৮৭ জন। মারা গেছেন ১১ লাখ ৫০ হাজার ৭৫৯ জন।

অবস্থা আশঙ্কাজনক ৭৫ হাজার ৬৪৮ জনের। সুস্থ হয়েছেন ৩ কোটি ১২ লাখ ৪০ হাজার ৫৪৪ জন। ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন রেকর্ড ৪ লাখ ৯০ হাজার ২১ জন, মারা গেছেন ৬ হাজার ৫৩৫ জন। 

বিশ্বতালিকায় শীর্ষে থাকা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে মোট আক্রান্ত ৮৭ লাখ ৫২ হাজার ১৮৫ জন, মারা গেছেন ২ লাখ ২৯ হাজার ৩২৩ জন।

তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে থাকা ভারতে মোট রোগী ৭৮ লাখ ১৪ হাজার ৬৫৪ জন, মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ১৭ হাজার ৯৫৪ জনের।

বিশ্বে তৃতীয় স্থানে থাকা ব্রাজিলে মোট আক্রান্ত ৫৩ লাখ ৫৫ হাজার ৬৪৭ জন, মারা গেছেন ১ লাখ ৫৬ হাজার ৫৪২ জন। 

করোনায় আক্রান্ত পোল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট : করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন পোল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট আন্দ্রেজ দুদা। তবে ৪৮ বছর বয়সী এই প্রেসিডেন্টের অবস্থা ভালো রয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন তার মুখপাত্র।

শনিবার এক বিবৃতিতে দুদার মুখপাত্র ব্লেজেজ স্পাইকালস্কি জানান, শুক্রবার প্রেসিডেন্টের করোনার পরীক্ষা করা হলে পজিটিভ আসে। সাম্প্রতিক সময়ে বিশ্বের বেশ কয়েকজন নেতার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন দুদা।

এর মধ্যে অধিকাংশই করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। ওই তালিকায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও রয়েছেন।

প্লাজমা থেরাপি উপযোগী নয় : করোনা চিকিৎসায় প্লাজমা থেরাপির কোনো উপযোগিতা খুঁজে পায়নি ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিকেল রিসার্চ (আইসিএমআর)।

তাদের গবেষণাপত্র প্রকাশিত হয়েছে ব্রিটিশ মেডিকেল জার্নালে। সেখানে বলা হয়, এই থেরাপির ফলে অসুস্থ রোগীদের নিরাময় করা সম্ভব হয়নি।

গবেষকরা জানান, রোগীদের দুটি গ্রুপকে বিভক্ত করে এই পরীক্ষা করা হয়। ২৩৫ জনকে দেয়া হয় প্লাজমা থেরাপি এবং ২২৯ জন পান সাধারণ চিকিৎসা। দেখা গেছে, রোগীদের সেরে ওঠায় প্লাজমা থেরাপি তেমন কোনো কাজ করছে না।

করোনায় মৃতের ফুসফুস বলের মতো শক্ত : করোনায় মারা যাওয়া ৬২ বছরের এক ব্যক্তির ফুসফুস বলের মতো শক্ত হয়ে গেছে। তা দেখে বিস্মিত হয়েছেন চিকিৎসকরা।

ভারতের কর্ণাটকের বাসিন্দা ওই বৃদ্ধের লাশের ময়নাতদন্ত রিপোর্টে দেখা যায়, করোনার কারণে তার ফুসফুস বলের মতো শক্ত হয়ে গেছে। পাশাপাশি অনেক শিরা-উপশিরাতেই রক্ত জমাট বেঁধে গেছে, অনেক ধমনি ফেটে রক্তক্ষরণ হয়েছে।