রোহিঙ্গাদের জন্য ৯৬ মিলিয়ন ইউরো দেবে ইইউ
jugantor
রোহিঙ্গাদের জন্য ৯৬ মিলিয়ন ইউরো দেবে ইইউ

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৬ অক্টোবর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রোহিঙ্গাদের জন্য ৯৬ মিলিয়ন ইউরো দেবে ইইউ

রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য ৯৬ মিলিয়ন ইউরো সহায়তার ঘোষণা দিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। মানবিক, উন্নয়ন সহযোগিতা ও সংঘাত রোধে চলতি বছর এ অর্থ সহায়তা দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন সংস্থার সংকট ব্যবস্থাপনা বিষয়ক ইউরোপীয় কমিশনার জ্যানেন লেনার্সিক।

সম্প্রতি রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জরুরি মানবিক সহায়তার জন্য এক আন্তর্জাতিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। শরণার্থী ও তাদের আশ্রয়দানকারী দেশগুলোর জন্য সহায়তা উৎসাহিত করতে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা যৌথভাবে দাতা সংস্থাগুলোর অংশগ্রহণে এ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। ইউএন এজেন্সি, এনজিও এবং আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর মাধ্যমে ইউরোপীয় ইউনিয়ন সর্বাধিক অভাবী ব্যক্তিদের সহায়তার জন্য নতুন বরাদ্দে অর্থ খরচ করবে।

ইইউ’র অনুদানের মাঝে শরণার্থী ও স্থানীয় ঝুঁকিপূর্ণ জনগোষ্ঠীর সাহায্যে মানবিক সহায়তা হিসেবে থাকছে ৫১.৫ মিলিয়ন ইউরো। যার মধ্যে জরুরি সহায়তা রিজার্ভ থেকে ২০ মিলিয়ন ইউরো নতুন বরাদ্দ অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। এখানে অগ্রাধিকারের খাতগুলো হল সুরক্ষা (শিশু সুরক্ষা, জেন্ডারভিত্তিক সহিংসতাসহ), গুরুতর স্বাস্থ্যসেবা (মানসিক স্বাস্থ্যসহ) এবং পুষ্টি, খাদ্য সহায়তা ও সমন্বয়।

উন্নয়ন সহায়তা হিসেবে কক্সবাজার জেলার রোহিঙ্গা শরণার্থী ও স্থানীয় জনগোষ্ঠী এবং রাখাইন রাজ্যে স্থানীয়ভাবে বাস্তুচ্যুত লোকদের স্বাভাবিক অবস্থায় প্রত্যাবর্তন ও সামাজিক স্থিতিশীলতা জোরদারের জন্য ৩৯ মিলিয়ন ইউরো রয়েছে। এটি মৌলিক সামাজিক পরিষেবাগুলোকে শক্তিশালীকরণ, বিশেষত শিক্ষা, স্বাস্থ্য, খাদ্য ও পুষ্টি নিরাপত্তার পাশাপাশি সুরক্ষা ও তথ্যগত সমস্যা সমাধান করবে। এ অঞ্চলে স্থিতিশীলতা ও শান্তি বজায় রাখতে সংঘাত রোধে সাহায্য হিসেবে ৫.৫ মিলিয়ন ইউরো সহায়তা দেয়া হবে।

রোহিঙ্গাদের সহায়তার বিষয়ে জ্যানেন লেনার্সিক বলেছেন, রোহিঙ্গা শরণার্থীরা ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে অব্যাহতভাবে পূর্ণ সহায়তা পেয়েছে। তাদের দুর্দশা লাঘবে স্থানীয় পর্যায়ে ও আশ্রয়দানকারী কমিউনিটিতে কর্মরত মানবিক সহায়তা সংস্থাসমূহ প্রকৃত সংহতি নিয়ে সাড়া দিয়েছে। আমরা মানবিক ও উন্নয়ন কার্যক্রম এবং স্থিতিশীলতার জন্য আরও বেশি সহায়তার আহ্বান নিয়ে এগিয়ে যেতে অঙ্গীকারবদ্ধ।

রোহিঙ্গাদের জন্য ৯৬ মিলিয়ন ইউরো দেবে ইইউ

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৬ অক্টোবর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
রোহিঙ্গাদের জন্য ৯৬ মিলিয়ন ইউরো দেবে ইইউ
কক্সবাজার রোহিঙ্গা ক্যাম্প। ফাইল ছবি

রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য ৯৬ মিলিয়ন ইউরো সহায়তার ঘোষণা দিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। মানবিক, উন্নয়ন সহযোগিতা ও সংঘাত রোধে চলতি বছর এ অর্থ সহায়তা দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন সংস্থার সংকট ব্যবস্থাপনা বিষয়ক ইউরোপীয় কমিশনার জ্যানেন লেনার্সিক।

সম্প্রতি রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জরুরি মানবিক সহায়তার জন্য এক আন্তর্জাতিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। শরণার্থী ও তাদের আশ্রয়দানকারী দেশগুলোর জন্য সহায়তা উৎসাহিত করতে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা যৌথভাবে দাতা সংস্থাগুলোর অংশগ্রহণে এ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। ইউএন এজেন্সি, এনজিও এবং আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর মাধ্যমে ইউরোপীয় ইউনিয়ন সর্বাধিক অভাবী ব্যক্তিদের সহায়তার জন্য নতুন বরাদ্দে অর্থ খরচ করবে।

ইইউ’র অনুদানের মাঝে শরণার্থী ও স্থানীয় ঝুঁকিপূর্ণ জনগোষ্ঠীর সাহায্যে মানবিক সহায়তা হিসেবে থাকছে ৫১.৫ মিলিয়ন ইউরো। যার মধ্যে জরুরি সহায়তা রিজার্ভ থেকে ২০ মিলিয়ন ইউরো নতুন বরাদ্দ অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। এখানে অগ্রাধিকারের খাতগুলো হল সুরক্ষা (শিশু সুরক্ষা, জেন্ডারভিত্তিক সহিংসতাসহ), গুরুতর স্বাস্থ্যসেবা (মানসিক স্বাস্থ্যসহ) এবং পুষ্টি, খাদ্য সহায়তা ও সমন্বয়।

উন্নয়ন সহায়তা হিসেবে কক্সবাজার জেলার রোহিঙ্গা শরণার্থী ও স্থানীয় জনগোষ্ঠী এবং রাখাইন রাজ্যে স্থানীয়ভাবে বাস্তুচ্যুত লোকদের স্বাভাবিক অবস্থায় প্রত্যাবর্তন ও সামাজিক স্থিতিশীলতা জোরদারের জন্য ৩৯ মিলিয়ন ইউরো রয়েছে। এটি মৌলিক সামাজিক পরিষেবাগুলোকে শক্তিশালীকরণ, বিশেষত শিক্ষা, স্বাস্থ্য, খাদ্য ও পুষ্টি নিরাপত্তার পাশাপাশি সুরক্ষা ও তথ্যগত সমস্যা সমাধান করবে। এ অঞ্চলে স্থিতিশীলতা ও শান্তি বজায় রাখতে সংঘাত রোধে সাহায্য হিসেবে ৫.৫ মিলিয়ন ইউরো সহায়তা দেয়া হবে।

রোহিঙ্গাদের সহায়তার বিষয়ে জ্যানেন লেনার্সিক বলেছেন, রোহিঙ্গা শরণার্থীরা ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে অব্যাহতভাবে পূর্ণ সহায়তা পেয়েছে। তাদের দুর্দশা লাঘবে স্থানীয় পর্যায়ে ও আশ্রয়দানকারী কমিউনিটিতে কর্মরত মানবিক সহায়তা সংস্থাসমূহ প্রকৃত সংহতি নিয়ে সাড়া দিয়েছে। আমরা মানবিক ও উন্নয়ন কার্যক্রম এবং স্থিতিশীলতার জন্য আরও বেশি সহায়তার আহ্বান নিয়ে এগিয়ে যেতে অঙ্গীকারবদ্ধ।