মেডিকেলে বিভিন্ন ব্যাচের পরীক্ষা জানুয়ারিতে
jugantor
মেডিকেলে বিভিন্ন ব্যাচের পরীক্ষা জানুয়ারিতে

  যুগান্তর রিপোর্ট  

১০ নভেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মেডিকেল শিক্ষার্থীদের নিয়মিত/অনিয়মিত বিভিন্ন ব্যাচের প্রফেশনাল পরীক্ষা শুরু হবে আগামী বছরের জানুয়ারিতে। স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদফতরের গাইড লাইন ও স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করেই এ পরীক্ষা নেয়া হবে। এমন তথ্য জানিয়েছেন স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদফতরের পরিচালক (চিকিৎসা শিক্ষা) অধ্যাপক ডা. একেএম আহসান হাবিব। তিনি পরীক্ষার্থীদের আন্দোলনে না গিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষায় অংশগ্রহণের অনুরোধ জানান।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সোমবার শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, বিশ্বব্যাপী করোনা মহামারীর কারণে অন্যান্য শিক্ষা ব্যবস্থার মতো চিকিৎসা শিক্ষা ব্যবস্থাও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। তবে চিকিৎসা শিক্ষা ব্যবস্থা ভিন্নধর্মী হওয়ায় বিদ্যমান বিধিতে পরীক্ষা ছাড়া অন্য কোনোভাবে শিক্ষার্থীদের পরবর্তী ধাপে উত্তীর্ণ হওয়ার সুযোগ নেই। এই প্রেক্ষিতে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদফতরের কর্মকর্তাদের সঙ্গে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ডিন, মেডিকেল কলেজের অধ্যাপক এবং বিএমডিসির প্রতিনিধির সমন্বয়ে একাধিক সভা হয়েছে।

সভায় আগামী বছরের জানুয়ারির শেষ সপ্তাহ থেকে নিয়মিত/ অনিয়মিত ব্যাচের প্রফেশনাল পরীক্ষা গ্রহণের সিদ্ধান্ত হয়। পর্যায়ক্রমে অন্যান্য প্রফেশনাল পরীক্ষা নেয়ার ব্যবস্থা করা হবে। তিনি জানান, পরীক্ষা শুরুর নির্দিষ্ট সময়ের এক মাস আগে শুধু পরীক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে হোস্টেলে অবস্থানের অনুমতি দেয়া হয়েছে। এই সময়ে নির্দিষ্ট শিক্ষার্থী ছাড়া অন্য কোনো শিক্ষার্থী হলে অবস্থান করতে পারবে না।

দেশে বর্তমানে ৩৬টি সরকারি ও ৭০টি বেসরকারি মেডিকেল কলেজে শিক্ষা কার্যক্রম চালু আছে। চিকিৎসা শিক্ষায় এমবিবিএস ও বিডিএস শিক্ষার্থীদের বছরের মে ও নভেম্বর এবং ফেব্রুয়ারি ও আগস্ট এই দুই টার্মে প্রফেশনাল পরীক্ষা হয়ে থাকে। একজন মেডিকেল শিক্ষার্থীকে চিকিৎসক হওয়ার আগে ৪টি প্রফেশনাল পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হয়।

মেডিকেলে বিভিন্ন ব্যাচের পরীক্ষা জানুয়ারিতে

 যুগান্তর রিপোর্ট 
১০ নভেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মেডিকেল শিক্ষার্থীদের নিয়মিত/অনিয়মিত বিভিন্ন ব্যাচের প্রফেশনাল পরীক্ষা শুরু হবে আগামী বছরের জানুয়ারিতে। স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদফতরের গাইড লাইন ও স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করেই এ পরীক্ষা নেয়া হবে। এমন তথ্য জানিয়েছেন স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদফতরের পরিচালক (চিকিৎসা শিক্ষা) অধ্যাপক ডা. একেএম আহসান হাবিব। তিনি পরীক্ষার্থীদের আন্দোলনে না গিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষায় অংশগ্রহণের অনুরোধ জানান।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সোমবার শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, বিশ্বব্যাপী করোনা মহামারীর কারণে অন্যান্য শিক্ষা ব্যবস্থার মতো চিকিৎসা শিক্ষা ব্যবস্থাও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। তবে চিকিৎসা শিক্ষা ব্যবস্থা ভিন্নধর্মী হওয়ায় বিদ্যমান বিধিতে পরীক্ষা ছাড়া অন্য কোনোভাবে শিক্ষার্থীদের পরবর্তী ধাপে উত্তীর্ণ হওয়ার সুযোগ নেই। এই প্রেক্ষিতে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদফতরের কর্মকর্তাদের সঙ্গে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ডিন, মেডিকেল কলেজের অধ্যাপক এবং বিএমডিসির প্রতিনিধির সমন্বয়ে একাধিক সভা হয়েছে।

সভায় আগামী বছরের জানুয়ারির শেষ সপ্তাহ থেকে নিয়মিত/ অনিয়মিত ব্যাচের প্রফেশনাল পরীক্ষা গ্রহণের সিদ্ধান্ত হয়। পর্যায়ক্রমে অন্যান্য প্রফেশনাল পরীক্ষা নেয়ার ব্যবস্থা করা হবে। তিনি জানান, পরীক্ষা শুরুর নির্দিষ্ট সময়ের এক মাস আগে শুধু পরীক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে হোস্টেলে অবস্থানের অনুমতি দেয়া হয়েছে। এই সময়ে নির্দিষ্ট শিক্ষার্থী ছাড়া অন্য কোনো শিক্ষার্থী হলে অবস্থান করতে পারবে না।

দেশে বর্তমানে ৩৬টি সরকারি ও ৭০টি বেসরকারি মেডিকেল কলেজে শিক্ষা কার্যক্রম চালু আছে। চিকিৎসা শিক্ষায় এমবিবিএস ও বিডিএস শিক্ষার্থীদের বছরের মে ও নভেম্বর এবং ফেব্রুয়ারি ও আগস্ট এই দুই টার্মে প্রফেশনাল পরীক্ষা হয়ে থাকে। একজন মেডিকেল শিক্ষার্থীকে চিকিৎসক হওয়ার আগে ৪টি প্রফেশনাল পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হয়।