পাকিস্তান সন্ত্রাসবাদের পৃষ্ঠপোষক
jugantor
ইমরানের সফরের বিরুদ্ধে আফগানিস্তানে বিক্ষোভ
পাকিস্তান সন্ত্রাসবাদের পৃষ্ঠপোষক

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৩ নভেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের প্রথম আফগানিস্তানে সফরের বিরুদ্ধে দেশটিতে বিক্ষোভ হয়েছে। পাকিস্তানকে সন্ত্রাসবাদের পৃষ্ঠপোষক হিসেবে অভিহিত করে বিক্ষোভকারীরা বৃহস্পতিবার দেশটির বিভিন্ন রাজ্যে রাস্তায় নেমে আসে। খবর এএনআই। রাজধানী কাবুলে বিক্ষোভকারীদের পাকিস্তানের ‘ভ্রান্তনীতির’ নিন্দা করে ব্যানার ও ফেস্টুন বহন করতে দেখা যায়। তারা পাকিস্তান ও ইমরানের বিরুদ্ধে স্লোগান দেয়। ব্যানারগুলোর মধ্যে একটিতে লেখা ছিল-‘পাকিস্তান সন্ত্রাসবাদের উৎপাদক, মদদদাতা ও রফতানিকারক’। ইমরানের সফরের বিরুদ্ধে দেশটির দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চল পাকিয়াখা এবং খোজ প্রদেশেও একই ধরনের প্রতিবাদের খবর পাওয়া গেছে।

শান্তি প্রক্রিয়া এবং দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক নিয়ে আলোচনার জন্য প্রথম সরকারি সফরে বৃহস্পতিবার কাবুল পৌঁছান ইমরান। এসময় আফগানিস্তানে রাষ্ট্রপতি আশরাফ গনি ও অন্য আফগান নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করেন তিনি। তার এই সফর এমন একসময়, যখন দোহায় আফগান সরকার ও তালেবানদের মধ্যে চলমান আলোচনা সত্ত্বেও দেশটিতে সহিংসতা বেড়েছে।

বিশেষজ্ঞরা যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটিতে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড বৃদ্ধি এবং অস্থিতিশীলতা তৈরির জন্য পাকিস্তানকে দীর্ঘদিন ধরেই দায়ী করে থাকে। যদিও ইসলামাবাদের দাবি, দেশটি আফগানিস্তানের শান্তিকে সমর্থন করে। তবে বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, পাকিস্তান তালেবানকে সমর্থন করেছে যারা হাজার হাজার নিরীহ বেসামরিক মানুষকে হত্যা করেছে। দেশটির বিরুদ্ধে আফগান বাহিনী থেকে আত্মগোপনকারী সন্ত্রাসীদের আশ্রয় দেয়ার এবং তালেবানদের সমর্থনে যোদ্ধা পাঠানোরও অভিযোগ করেন বিশ্লেষকরা।

জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের (ইউএনএসসি) এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রায় সাড়ে ছয় হাজার পাকিস্তানি সন্ত্রাসী আফগানিস্তানে রয়েছে। তাদের বেশির ভাগই তেহরিক-ই-তালেবান পাকিস্তানের (টিটিপি) অন্তর্ভুক্ত।

ইমরানের সফরের বিরুদ্ধে আফগানিস্তানে বিক্ষোভ

পাকিস্তান সন্ত্রাসবাদের পৃষ্ঠপোষক

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৩ নভেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের প্রথম আফগানিস্তানে সফরের বিরুদ্ধে দেশটিতে বিক্ষোভ হয়েছে। পাকিস্তানকে সন্ত্রাসবাদের পৃষ্ঠপোষক হিসেবে অভিহিত করে বিক্ষোভকারীরা বৃহস্পতিবার দেশটির বিভিন্ন রাজ্যে রাস্তায় নেমে আসে। খবর এএনআই। রাজধানী কাবুলে বিক্ষোভকারীদের পাকিস্তানের ‘ভ্রান্তনীতির’ নিন্দা করে ব্যানার ও ফেস্টুন বহন করতে দেখা যায়। তারা পাকিস্তান ও ইমরানের বিরুদ্ধে স্লোগান দেয়। ব্যানারগুলোর মধ্যে একটিতে লেখা ছিল-‘পাকিস্তান সন্ত্রাসবাদের উৎপাদক, মদদদাতা ও রফতানিকারক’। ইমরানের সফরের বিরুদ্ধে দেশটির দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চল পাকিয়াখা এবং খোজ প্রদেশেও একই ধরনের প্রতিবাদের খবর পাওয়া গেছে।

শান্তি প্রক্রিয়া এবং দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক নিয়ে আলোচনার জন্য প্রথম সরকারি সফরে বৃহস্পতিবার কাবুল পৌঁছান ইমরান। এসময় আফগানিস্তানে রাষ্ট্রপতি আশরাফ গনি ও অন্য আফগান নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করেন তিনি। তার এই সফর এমন একসময়, যখন দোহায় আফগান সরকার ও তালেবানদের মধ্যে চলমান আলোচনা সত্ত্বেও দেশটিতে সহিংসতা বেড়েছে।

বিশেষজ্ঞরা যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটিতে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড বৃদ্ধি এবং অস্থিতিশীলতা তৈরির জন্য পাকিস্তানকে দীর্ঘদিন ধরেই দায়ী করে থাকে। যদিও ইসলামাবাদের দাবি, দেশটি আফগানিস্তানের শান্তিকে সমর্থন করে। তবে বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, পাকিস্তান তালেবানকে সমর্থন করেছে যারা হাজার হাজার নিরীহ বেসামরিক মানুষকে হত্যা করেছে। দেশটির বিরুদ্ধে আফগান বাহিনী থেকে আত্মগোপনকারী সন্ত্রাসীদের আশ্রয় দেয়ার এবং তালেবানদের সমর্থনে যোদ্ধা পাঠানোরও অভিযোগ করেন বিশ্লেষকরা।

জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের (ইউএনএসসি) এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রায় সাড়ে ছয় হাজার পাকিস্তানি সন্ত্রাসী আফগানিস্তানে রয়েছে। তাদের বেশির ভাগই তেহরিক-ই-তালেবান পাকিস্তানের (টিটিপি) অন্তর্ভুক্ত।