মেগা প্রকল্প শেষ হলে জলাবদ্ধতা থাকবে না
jugantor
মেগা প্রকল্প শেষ হলে জলাবদ্ধতা থাকবে না
-রেজাউল

  চট্টগ্রাম ব্যুরো  

২০ জানুয়ারি ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মেগা প্রকল্প শেষ হলে জলাবদ্ধতা থাকবে না

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী এম রেজাউল করিম চৌধুরী বলেছেন, জোয়ারের পানি ও ভারী যানবাহনের কারণে ভঙ্গুর রাস্তা-ঘাট নগরীর আগ্রাবাদ এলাকার একটি বড় সমস্যা।

চট্টগ্রামের প্রতি জননেত্রী শেখ হাসিনার আন্তরিকতায় খাল খনন, সংস্কার, পুনরুদ্ধার ও ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়নে মেগা প্রকল্পের কাজ চলছে। এ প্রকল্প শেষ হলে চট্টগ্রামের কোনো এলাকাতেই জোয়ারের পানি ও জলাবদ্ধতার সমস্যা থাকবে না।

এক্সেস রোডের উন্নয়ন করা হয়েছে। পোর্ট কানেকটিং রোডকে ভারী যানবাহন চলাচলের উপযোগী করে গড়ে তোলার কাজ চলছে। মেয়র নির্বাচিত হলে চলমান উন্নয়ন প্রকল্পগুলো দ্রুত সম্পন্ন করার উদ্যোগ গ্রহণ করব, যাতে ধুলাবালি ও যানজটের বিড়ম্বনা থেকে মানুষ মুক্তি পায়। তিনি মঙ্গলবার নগরীর উত্তর ও দক্ষিণ আগ্রাবাদ ওয়ার্ডে গণসংযোগকালে বিভিন্ন পথসভায় বক্তব্য দিতে গিয়ে এসব কথা বলেন।

এর আগে তিনি আলকরণ ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর ও মহানগর আওয়ামী লীগের সদস্য তারেক সোলেমান সেলিমের লাশ দেখতে যান এবং জানাজায় অংশ নেন। এ সময় তিনি মরহুমের পরিবার ও স্বজনদের প্রতি শোক ও সমবেদনা জানান এবং মরহুমের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেন।

গণসংযোগকালে রেজাউল করিমের সঙ্গে ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আলতাফ হোসেন বাচ্চু, সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ, উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ নেতা এটিএম পেয়ারুল ইসলাম, কাউন্সিলর প্রার্থী মো. নাজমুল হক, মো. শেখ জাফরুল হায়দার চৌধুরী সবুজ, মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থী আফরোজা কালাম, নুর আক্তার প্রমা প্রমুখ।

রেজাউল করিম কিশোর গ্যাংয়ের প্রসঙ্গ তুলে ধরে বলেন, তাদের খেলাধুলা ও বিনোদনের সুযোগ অতিমাত্রায় সংকুচিত হয়ে পড়ায় এ সমস্যার উদ্ভব হয়েছে। আমি মেয়র নির্বাচিত হলে কিশোররা যেন অপরাধের পথে পা না বাড়ায় সেই উদ্যোগ নেব।

পর্যাপ্ত খেলার মাঠ ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্র গড়ে তোলার অঙ্গীকার ব্যক্ত করে তিনি বলেন, প্রতি ওয়ার্ডে না হোক, অন্তত যে সব ওয়ার্ডে খালি জায়গা পাওয়া যাবে ছোট-বড় যথাসম্ভব খেলার মাঠ ও বিনোদন কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করতে আমি উদ্যোগ নেব এবং নারী ও তরুণরা যাতে আউট সোর্সিংয়ে আরও দক্ষতা অর্জন করতে পারে, সেজন্য করপোরেশনের পক্ষ থেকে বিশেষ উদ্যোগী হব।

আওয়ামী লীগ প্রার্থী রেজাউল আরও বলেন, চট্টগ্রামকে এশিয়ার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অর্থনৈতিক সিটি হিসেবে গড়ে তুলতে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দুরন্ত গতিতে অনেক বড় বড় প্রকল্পের কাজ এগিয়ে চলেছে। অবহেলিত চট্টগ্রামকে আধুনিক, নান্দনিক, স্বপ্নীল সিটি হিসাবে গড়ে তোলার পদক্ষেপ অনেকটাই এগিয়ে গেছে।

২৭ জানুয়ারির নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে উন্নয়ন ও অগ্রগতির এ ধারাকে আরও বেগবান করতে রেজাউল করিম ভোটারদের অনুরোধ জানান।

মেগা প্রকল্প শেষ হলে জলাবদ্ধতা থাকবে না

-রেজাউল
 চট্টগ্রাম ব্যুরো 
২০ জানুয়ারি ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
মেগা প্রকল্প শেষ হলে জলাবদ্ধতা থাকবে না
আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী এম রেজাউল করিম চৌধুরী

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী এম রেজাউল করিম চৌধুরী বলেছেন, জোয়ারের পানি ও ভারী যানবাহনের কারণে ভঙ্গুর রাস্তা-ঘাট নগরীর আগ্রাবাদ এলাকার একটি বড় সমস্যা।

চট্টগ্রামের প্রতি জননেত্রী শেখ হাসিনার আন্তরিকতায় খাল খনন, সংস্কার, পুনরুদ্ধার ও ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়নে মেগা প্রকল্পের কাজ চলছে। এ প্রকল্প শেষ হলে চট্টগ্রামের কোনো এলাকাতেই জোয়ারের পানি ও জলাবদ্ধতার সমস্যা থাকবে না।

এক্সেস রোডের উন্নয়ন করা হয়েছে। পোর্ট কানেকটিং রোডকে ভারী যানবাহন চলাচলের উপযোগী করে গড়ে তোলার কাজ চলছে। মেয়র নির্বাচিত হলে চলমান উন্নয়ন প্রকল্পগুলো দ্রুত সম্পন্ন করার উদ্যোগ গ্রহণ করব, যাতে ধুলাবালি ও যানজটের বিড়ম্বনা থেকে মানুষ মুক্তি পায়। তিনি মঙ্গলবার নগরীর উত্তর ও দক্ষিণ আগ্রাবাদ ওয়ার্ডে গণসংযোগকালে বিভিন্ন পথসভায় বক্তব্য দিতে গিয়ে এসব কথা বলেন।

এর আগে তিনি আলকরণ ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর ও মহানগর আওয়ামী লীগের সদস্য তারেক সোলেমান সেলিমের লাশ দেখতে যান এবং জানাজায় অংশ নেন। এ সময় তিনি মরহুমের পরিবার ও স্বজনদের প্রতি শোক ও সমবেদনা জানান এবং মরহুমের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেন।

গণসংযোগকালে রেজাউল করিমের সঙ্গে ছিলেন মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আলতাফ হোসেন বাচ্চু, সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ, উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ নেতা এটিএম পেয়ারুল ইসলাম, কাউন্সিলর প্রার্থী মো. নাজমুল হক, মো. শেখ জাফরুল হায়দার চৌধুরী সবুজ, মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থী আফরোজা কালাম, নুর আক্তার প্রমা প্রমুখ।

রেজাউল করিম কিশোর গ্যাংয়ের প্রসঙ্গ তুলে ধরে বলেন, তাদের খেলাধুলা ও বিনোদনের সুযোগ অতিমাত্রায় সংকুচিত হয়ে পড়ায় এ সমস্যার উদ্ভব হয়েছে। আমি মেয়র নির্বাচিত হলে কিশোররা যেন অপরাধের পথে পা না বাড়ায় সেই উদ্যোগ নেব।

পর্যাপ্ত খেলার মাঠ ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্র গড়ে তোলার অঙ্গীকার ব্যক্ত করে তিনি বলেন, প্রতি ওয়ার্ডে না হোক, অন্তত যে সব ওয়ার্ডে খালি জায়গা পাওয়া যাবে ছোট-বড় যথাসম্ভব খেলার মাঠ ও বিনোদন কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করতে আমি উদ্যোগ নেব এবং নারী ও তরুণরা যাতে আউট সোর্সিংয়ে আরও দক্ষতা অর্জন করতে পারে, সেজন্য করপোরেশনের পক্ষ থেকে বিশেষ উদ্যোগী হব।

আওয়ামী লীগ প্রার্থী রেজাউল আরও বলেন, চট্টগ্রামকে এশিয়ার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অর্থনৈতিক সিটি হিসেবে গড়ে তুলতে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দুরন্ত গতিতে অনেক বড় বড় প্রকল্পের কাজ এগিয়ে চলেছে। অবহেলিত চট্টগ্রামকে আধুনিক, নান্দনিক, স্বপ্নীল সিটি হিসাবে গড়ে তোলার পদক্ষেপ অনেকটাই এগিয়ে গেছে।

২৭ জানুয়ারির নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে উন্নয়ন ও অগ্রগতির এ ধারাকে আরও বেগবান করতে রেজাউল করিম ভোটারদের অনুরোধ জানান।