চট্টগ্রাম হবে ওয়াইফাই নগরী
jugantor
চট্টগ্রাম হবে ওয়াইফাই নগরী
-ডা. শাহাদাত

  চট্টগ্রাম ব্যুরো  

২০ জানুয়ারি ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

চট্টগ্রাম হবে ওয়াইফাই নগরী

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেন বলেছেন, জয়ী হলে চট্টগ্রামকে ওয়াইফাই নগরী হিসাবে গড়ে তুলব। তিনি মঙ্গলবার নগরীর পশ্চিম মাদারবাড়ী ও পূর্ব মাদারবাড়ী ওয়ার্ডে গণসংযোগকালে বিভিন্ন পথসভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে এ কথা বলেন।

ডা. শাহাদাত বলেন, দেশে প্রথম সিলেটকে ওয়াইফাই নগরী হিসাবে গড়ে তোলার উদ্যোগ নেওয়া হয়। সেখানে তা বাস্তবায়ন করতে পারলে, বাণিজ্যিক নগরী চট্টগ্রামকেও ওয়াইফাই নগরী হিসাবে গড়ে তোলা যাবে। নগরীর গুরুত্বপূর্ণ শতাধিক পয়েন্টে শক্তিশালী রাউটার স্থাপন করে এটি বাস্তবায়ন সম্ভব। দরকার হলে এ ব্যাপারে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নেওয়া হবে।

কোনো প্রকার বাফারিং ছাড়াই উচ্চগতির ইন্টারনেট সুবিধা দিয়ে পুরো নগরীকে ওয়াইফাইয়ের আওতায় আনা হবে। একেকটি এক্সেস পয়েন্টের প্রতিটিতে একসঙ্গে ৫০০ জন যুক্ত থাকার মতো ব্যবস্থা করা হবে।

শাহাদাত বলেন, প্রতিটি এক্সেস পয়েন্টের চতুর্দিকে ১০০ মিটার এলাকায় ব্যান্ডউইথ থাকবে ১০ মেগাবাইট পার সেকেন্ড। এতে শিক্ষার্থীরা বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে তাদের পড়াশোনা চালিয়ে নিতে পারবে। শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানে গবেষণা বৃদ্ধি পাবে। নিত্য-নতুন প্রযুক্তির সঙ্গে চট্টগ্রামবাসী পরিচিত হবে।

আওয়ামী লীগের আমলে চট্টগ্রামে কোনো উন্নয়ন হয়নি দাবি করে ডা. শাহাদাত হোসেন বলেন, চট্টগ্রামের বিভিন্ন সড়কে ধুলাবালি উড়ছে। প্রতিদিন কাটা হচ্ছে রাস্তা। এতে সড়কজুড়ে নোংরা পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে। পরিবেশ দূষিত হওয়ায় মানুষজনও বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন।

তিনি বলেন, মেয়র হলে বিভিন্ন সেবা সংস্থাকে যখন-তখন সড়ক কাটতে দেব না। পরিকল্পিত নগর তৈরি করা হবে। সিটি করপোরেশনের পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের সবসময় সড়কে থাকার ব্যবস্থা করব। দিনের ময়লা দিনেই পরিষ্কার করা হবে। চট্টগ্রাম নগরকে এমনভাবে গড়ে তুলব, যাতে অন্য শহরের বাসিন্দারা দেখতে আসে।

গণসংযোগে অংশ নিয়ে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব আবুল হাশেম বক্কর বলেন, নির্বাচনের মাঠে নেমে হালে পানি পাচ্ছেন না আওয়ামী লীগের প্রার্থী। সস্তা সহানুভূতি পেতে বিএনপি নেতাদের নামে মিথ্যা অভিযোগ করে খড়কুটো আঁকড়ে ধরে থাকার কৌশল নিয়েছেন তিনি। আমরা জানি, এ নির্বাচনের মাধ্যমে সরকার পরিবর্তন হবে না। কিন্তু আমরা নির্বাচনে যাচ্ছি গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়াকে সম্মান রেখে। তিনি চসিক নির্বাচনকে উৎসবমুখর ও অবাধ করার জন্য প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানান।

ডা. শাহাদাতের গণসংযোগে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক এসএম সাইফুল আলম, ইয়াছিন চৌধুরী লিটন, সদস্য জয়নাল আবেদিন জিয়া, গাজী মো. সিরাজ উল্লাহ প্রমুখ।

চট্টগ্রাম হবে ওয়াইফাই নগরী

-ডা. শাহাদাত
 চট্টগ্রাম ব্যুরো 
২০ জানুয়ারি ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
চট্টগ্রাম হবে ওয়াইফাই নগরী
বিএনপির মেয়র প্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেন

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেন বলেছেন, জয়ী হলে চট্টগ্রামকে ওয়াইফাই নগরী হিসাবে গড়ে তুলব। তিনি মঙ্গলবার নগরীর পশ্চিম মাদারবাড়ী ও পূর্ব মাদারবাড়ী ওয়ার্ডে গণসংযোগকালে বিভিন্ন পথসভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে এ কথা বলেন।

ডা. শাহাদাত বলেন, দেশে প্রথম সিলেটকে ওয়াইফাই নগরী হিসাবে গড়ে তোলার উদ্যোগ নেওয়া হয়। সেখানে তা বাস্তবায়ন করতে পারলে, বাণিজ্যিক নগরী চট্টগ্রামকেও ওয়াইফাই নগরী হিসাবে গড়ে তোলা যাবে। নগরীর গুরুত্বপূর্ণ শতাধিক পয়েন্টে শক্তিশালী রাউটার স্থাপন করে এটি বাস্তবায়ন সম্ভব। দরকার হলে এ ব্যাপারে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নেওয়া হবে।

কোনো প্রকার বাফারিং ছাড়াই উচ্চগতির ইন্টারনেট সুবিধা দিয়ে পুরো নগরীকে ওয়াইফাইয়ের আওতায় আনা হবে। একেকটি এক্সেস পয়েন্টের প্রতিটিতে একসঙ্গে ৫০০ জন যুক্ত থাকার মতো ব্যবস্থা করা হবে।

শাহাদাত বলেন, প্রতিটি এক্সেস পয়েন্টের চতুর্দিকে ১০০ মিটার এলাকায় ব্যান্ডউইথ থাকবে ১০ মেগাবাইট পার সেকেন্ড। এতে শিক্ষার্থীরা বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে তাদের পড়াশোনা চালিয়ে নিতে পারবে। শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানে গবেষণা বৃদ্ধি পাবে। নিত্য-নতুন প্রযুক্তির সঙ্গে চট্টগ্রামবাসী পরিচিত হবে।

আওয়ামী লীগের আমলে চট্টগ্রামে কোনো উন্নয়ন হয়নি দাবি করে ডা. শাহাদাত হোসেন বলেন, চট্টগ্রামের বিভিন্ন সড়কে ধুলাবালি উড়ছে। প্রতিদিন কাটা হচ্ছে রাস্তা। এতে সড়কজুড়ে নোংরা পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে। পরিবেশ দূষিত হওয়ায় মানুষজনও বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন।

তিনি বলেন, মেয়র হলে বিভিন্ন সেবা সংস্থাকে যখন-তখন সড়ক কাটতে দেব না। পরিকল্পিত নগর তৈরি করা হবে। সিটি করপোরেশনের পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের সবসময় সড়কে থাকার ব্যবস্থা করব। দিনের ময়লা দিনেই পরিষ্কার করা হবে। চট্টগ্রাম নগরকে এমনভাবে গড়ে তুলব, যাতে অন্য শহরের বাসিন্দারা দেখতে আসে।

গণসংযোগে অংশ নিয়ে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব আবুল হাশেম বক্কর বলেন, নির্বাচনের মাঠে নেমে হালে পানি পাচ্ছেন না আওয়ামী লীগের প্রার্থী। সস্তা সহানুভূতি পেতে বিএনপি নেতাদের নামে মিথ্যা অভিযোগ করে খড়কুটো আঁকড়ে ধরে থাকার কৌশল নিয়েছেন তিনি। আমরা জানি, এ নির্বাচনের মাধ্যমে সরকার পরিবর্তন হবে না। কিন্তু আমরা নির্বাচনে যাচ্ছি গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়াকে সম্মান রেখে। তিনি চসিক নির্বাচনকে উৎসবমুখর ও অবাধ করার জন্য প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানান।

ডা. শাহাদাতের গণসংযোগে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক এসএম সাইফুল আলম, ইয়াছিন চৌধুরী লিটন, সদস্য জয়নাল আবেদিন জিয়া, গাজী মো. সিরাজ উল্লাহ প্রমুখ।