হেফাজতের কেন্দ্রীয় নেতা রহিম কাসেমী গ্রেফতার
jugantor
পদত্যাগ করেও রক্ষা হলো না
হেফাজতের কেন্দ্রীয় নেতা রহিম কাসেমী গ্রেফতার
মামুনুল হক ফের ৫ দিনের রিমান্ডে

  যুগান্তর ডেস্ক  

০৫ মে ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

পদত্যাগ করেও রেহাই পেলেন না হেফাজতে ইসলামের ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মুফতি আব্দুর রহিম কাসেমী। মার্চের শেষ দিকে জেলার বিভিন্ন স্থানে তাণ্ডবের ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলায় মঙ্গলবার বিকালে পৌর এলাকার ভাদুঘর থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) রহিছ উদ্দিন। এ ছাড়া তাণ্ডবের ঘটনায় এই জেলায় আরও ৬ জন গ্রেফতার হয়েছেন। এদিকে হেফাজতে ইসলামের সদ্য বিলুপ্ত যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হককে ফের ৫ দিনের রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ। যুগান্তরের স্টাফ রিপোর্টার ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

ব্রাহ্মণবাড়িয়া : পুলিশ জানিয়েছে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে কাসেমী তাণ্ডবে সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করেছেন। ২০১৬ সালেও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তাণ্ডবের সঙ্গে এ কাসেমী প্রত্যক্ষভাবে জড়িত ছিলেন।

জানা যায়, ২৩ এপ্রিল দল থেকে পদত্যাগ করেন মুফতি আব্দুর রহিম কাসেমী। পদত্যাগের কারণ হিসাবে তিনি দলের বিভিন্ন প্রোগ্রামে তাকে না ডাকা ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতের তাণ্ডবের কথা উল্লেখ করেন। তবে গ্রেফতার এড়াতেই মুফতি আব্দুর রহিম কাসেমী দল থেকে পদত্যাগ করেছেন বলে সামাজিক মাধ্যমে সমালোচনার ঝড় ওঠে।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের প্রতিবাদ এবং ঢাকা ও চট্টগ্রামে মাদ্রাসাছাত্রদের ওপর পুলিশি অ্যাকশনের খবরে ২৬ থেকে ২৮ মার্চ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ব্যাপক তাণ্ডব চালায় মাদ্রাসাছাত্র ও হেফাজত কর্মীরা। এ সময় পুলিশ সুপারের কার্যালয়, প্রেস ক্লাব, সিভিল সার্জনের কার্যালয়, মৎস্য কর্মকর্তার কার্যালয়, পৌরসভা কার্যালয়, জেলা পরিষদ কার্যালয় ও ডাকবাংলো, খাঁটিহাতা হাইওয়ে থানা ভবন, আলাউদ্দিন সঙ্গীতাঙ্গন, আলাউদ্দিন খাঁ পৌর মিলনায়তন ও শহিদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত ভাষা চত্বরসহ ৩৮টি সরকারি-বেসরকারি স্থাপনায় হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করা হয়। এ ঘটনায় ৫৬টি মামলা হয়। এসব মামলায় ৪১৪ জনের নাম উল্লেখসহ ৩০ থেকে ৩৫ হাজার অজ্ঞাতনামাদের আসামি করা হয়েছে।

এছাড়া ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তাণ্ডবের ঘটনায় হেফাজতে ইসলামের আরও ৬ কর্মী-সমর্থককে গ্রেফতার হয়েছে। সোমবার রাত পর্যন্ত বিশেষ অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এই নিয়ে গ্রেফতারের সংখ্যা ৪১৪ জনে দাঁড়াল। পুলিশ জানায়, সহিংস ঘটনাগুলোর প্রাপ্ত স্থিরচিত্র ও ভিডিও ফুটেজ পর্যালোচনা করে তাদের শনাক্ত ও গ্রেফতার করা হয়েছে।

হেফাজতের দুই নেতার বিরুদ্ধে থানায় এজাহার : হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের নবীনগর উপজেলা কমিটির সহ-সভাপতি মাওলানা মেহেদী হাসান ও সহ-সাধারণ সম্পাদক মুফতি আমজাদ হোসাইন আশরাফীর বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে অভিযোগ করা হয়েছে। তবে এটি এখনও নথিভুক্ত হয়নি।

সোমবার রাতে সদর মডেল থানায় মামলার আবেদন করেন জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রবিউল হোসেন রুবেল। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মুহাম্মদ শাহজাহান। মামলার এজাহারে বলা হয়, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তাণ্ডবের ঘটনা নিয়ে মাওলানা মেহেদী হাসান তার ফেসবুক আইডি থেকে একটি পোস্ট দেন। যার উদ্দেশ্য ছিল, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আসনের সংসদ সদস্য র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীর মানহানি করা ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট বা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি।

ফতুল্লা (নারায়ণগঞ্জ) : নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার নগরপাড়া এলাকা থেকে গ্রেফতারকৃত হেফাজতে ইসলামের কর্মী তারিকুল ইসলামকে একদিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। তার কাছ থেকে একটি মোবাইল উদ্ধার করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। ধর্মীয় উসকানি দিতে এ সেটটি ব্যবহার করতেন তরিকুল। এ ঘটনায় সোমবার রাতে ফতুল্লা মডেল থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করে পুলিশ।

রূপগঞ্জের নিজ বাড়ি থেকে ২৭ এপ্রিল তাকে গ্রেফতার করে ডিবি পুলিশ। তারিকুল ইসলাম রূপগঞ্জের নগরপাড়া এলাকার ইছুব আলীর ছেলে। তাকে সোনারগাঁ থানার একটি নাশকতার মামলায় আদালতের মাধ্যমে একদিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছিল।

মামুনুল হক ফের ৫ দিনের রিমান্ডে : হেফাজতে ইসলামের সদ্য বিলুপ্ত যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হকের ফের ৫ দিনের রিমান্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। চলতি বছরের মার্চে বায়তুল মোকাররমে সংঘর্ষের পৃথক দুই মামলায় ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সত্যব্রত শিকদার মঙ্গলবার রিমান্ডের এ আদেশ দেন। ২৬ এপ্রিল মোহাম্মদপুর থানায় করা এক ব্যক্তির মামলায় মামুনুল হকের ৭ দিনের রিমান্ডের আদেশ দেন আদালত। এরও আগে ২৬ মার্চ রাজধানীর বায়তুল মোকাররমে ভাঙচুরের এক মামলায় ৪ দিন এবং ২০১৩ সালে মতিঝিলে হেফাজতের তাণ্ডবের ঘটনায় মতিঝিল থানার এক মামলায় ৩ দিনের রিমান্ডের আদেশ দেন আদালত। ১৮ এপ্রিল মোহাম্মদপুরের জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদ্রাসা থেকে মামুনুল হককে গ্রেফতার করা হয়।

মঙ্গলবার হেফাজতে ইসলামের সদ্য বিলুপ্ত যুগ্ম মহাসচিব আল্লামা জুনায়েদ আল হাবিবের ২০১৩ সালের পল্টন থানায় করা পুরনো এক মামলায় ২ দিনের রিমান্ডের আদেশ দেন একই আদালত। ১৭ এপ্রিল জুনায়েদ আল হাবিবকে রাজধানীর বারিধারা থেকে গ্রেফতার করা হয়। এর আগে ২৬ এপ্রিল ২০১৩ সালের পুরনো বিস্ফোরক আইনের মামলায় তার ৭ দিনের রিমান্ডের আদেশ দেওয়া হয়। ওইদিন একই আদালত একই মামলায় হেফাজতের অপর নেতা জালাল উদ্দিনের ৩ দিনের রিমান্ডের আদেশ দেওয়া হয়।

পদত্যাগ করেও রক্ষা হলো না

হেফাজতের কেন্দ্রীয় নেতা রহিম কাসেমী গ্রেফতার

মামুনুল হক ফের ৫ দিনের রিমান্ডে
 যুগান্তর ডেস্ক 
০৫ মে ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

পদত্যাগ করেও রেহাই পেলেন না হেফাজতে ইসলামের ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মুফতি আব্দুর রহিম কাসেমী। মার্চের শেষ দিকে জেলার বিভিন্ন স্থানে তাণ্ডবের ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলায় মঙ্গলবার বিকালে পৌর এলাকার ভাদুঘর থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) রহিছ উদ্দিন। এ ছাড়া তাণ্ডবের ঘটনায় এই জেলায় আরও ৬ জন গ্রেফতার হয়েছেন। এদিকে হেফাজতে ইসলামের সদ্য বিলুপ্ত যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হককে ফের ৫ দিনের রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ। যুগান্তরের স্টাফ রিপোর্টার ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

ব্রাহ্মণবাড়িয়া : পুলিশ জানিয়েছে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে কাসেমী তাণ্ডবে সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করেছেন। ২০১৬ সালেও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তাণ্ডবের সঙ্গে এ কাসেমী প্রত্যক্ষভাবে জড়িত ছিলেন।

জানা যায়, ২৩ এপ্রিল দল থেকে পদত্যাগ করেন মুফতি আব্দুর রহিম কাসেমী। পদত্যাগের কারণ হিসাবে তিনি দলের বিভিন্ন প্রোগ্রামে তাকে না ডাকা ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতের তাণ্ডবের কথা উল্লেখ করেন। তবে গ্রেফতার এড়াতেই মুফতি আব্দুর রহিম কাসেমী দল থেকে পদত্যাগ করেছেন বলে সামাজিক মাধ্যমে সমালোচনার ঝড় ওঠে।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের প্রতিবাদ এবং ঢাকা ও চট্টগ্রামে মাদ্রাসাছাত্রদের ওপর পুলিশি অ্যাকশনের খবরে ২৬ থেকে ২৮ মার্চ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ব্যাপক তাণ্ডব চালায় মাদ্রাসাছাত্র ও হেফাজত কর্মীরা। এ সময় পুলিশ সুপারের কার্যালয়, প্রেস ক্লাব, সিভিল সার্জনের কার্যালয়, মৎস্য কর্মকর্তার কার্যালয়, পৌরসভা কার্যালয়, জেলা পরিষদ কার্যালয় ও ডাকবাংলো, খাঁটিহাতা হাইওয়ে থানা ভবন, আলাউদ্দিন সঙ্গীতাঙ্গন, আলাউদ্দিন খাঁ পৌর মিলনায়তন ও শহিদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত ভাষা চত্বরসহ ৩৮টি সরকারি-বেসরকারি স্থাপনায় হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করা হয়। এ ঘটনায় ৫৬টি মামলা হয়। এসব মামলায় ৪১৪ জনের নাম উল্লেখসহ ৩০ থেকে ৩৫ হাজার অজ্ঞাতনামাদের আসামি করা হয়েছে।

এছাড়া ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তাণ্ডবের ঘটনায় হেফাজতে ইসলামের আরও ৬ কর্মী-সমর্থককে গ্রেফতার হয়েছে। সোমবার রাত পর্যন্ত বিশেষ অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এই নিয়ে গ্রেফতারের সংখ্যা ৪১৪ জনে দাঁড়াল। পুলিশ জানায়, সহিংস ঘটনাগুলোর প্রাপ্ত স্থিরচিত্র ও ভিডিও ফুটেজ পর্যালোচনা করে তাদের শনাক্ত ও গ্রেফতার করা হয়েছে।

হেফাজতের দুই নেতার বিরুদ্ধে থানায় এজাহার : হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের নবীনগর উপজেলা কমিটির সহ-সভাপতি মাওলানা মেহেদী হাসান ও সহ-সাধারণ সম্পাদক মুফতি আমজাদ হোসাইন আশরাফীর বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে অভিযোগ করা হয়েছে। তবে এটি এখনও নথিভুক্ত হয়নি।

সোমবার রাতে সদর মডেল থানায় মামলার আবেদন করেন জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রবিউল হোসেন রুবেল। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মুহাম্মদ শাহজাহান। মামলার এজাহারে বলা হয়, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তাণ্ডবের ঘটনা নিয়ে মাওলানা মেহেদী হাসান তার ফেসবুক আইডি থেকে একটি পোস্ট দেন। যার উদ্দেশ্য ছিল, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আসনের সংসদ সদস্য র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীর মানহানি করা ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট বা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি।

ফতুল্লা (নারায়ণগঞ্জ) : নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার নগরপাড়া এলাকা থেকে গ্রেফতারকৃত হেফাজতে ইসলামের কর্মী তারিকুল ইসলামকে একদিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। তার কাছ থেকে একটি মোবাইল উদ্ধার করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। ধর্মীয় উসকানি দিতে এ সেটটি ব্যবহার করতেন তরিকুল। এ ঘটনায় সোমবার রাতে ফতুল্লা মডেল থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করে পুলিশ।

রূপগঞ্জের নিজ বাড়ি থেকে ২৭ এপ্রিল তাকে গ্রেফতার করে ডিবি পুলিশ। তারিকুল ইসলাম রূপগঞ্জের নগরপাড়া এলাকার ইছুব আলীর ছেলে। তাকে সোনারগাঁ থানার একটি নাশকতার মামলায় আদালতের মাধ্যমে একদিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছিল।

মামুনুল হক ফের ৫ দিনের রিমান্ডে : হেফাজতে ইসলামের সদ্য বিলুপ্ত যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হকের ফের ৫ দিনের রিমান্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। চলতি বছরের মার্চে বায়তুল মোকাররমে সংঘর্ষের পৃথক দুই মামলায় ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সত্যব্রত শিকদার মঙ্গলবার রিমান্ডের এ আদেশ দেন। ২৬ এপ্রিল মোহাম্মদপুর থানায় করা এক ব্যক্তির মামলায় মামুনুল হকের ৭ দিনের রিমান্ডের আদেশ দেন আদালত। এরও আগে ২৬ মার্চ রাজধানীর বায়তুল মোকাররমে ভাঙচুরের এক মামলায় ৪ দিন এবং ২০১৩ সালে মতিঝিলে হেফাজতের তাণ্ডবের ঘটনায় মতিঝিল থানার এক মামলায় ৩ দিনের রিমান্ডের আদেশ দেন আদালত। ১৮ এপ্রিল মোহাম্মদপুরের জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদ্রাসা থেকে মামুনুল হককে গ্রেফতার করা হয়।

মঙ্গলবার হেফাজতে ইসলামের সদ্য বিলুপ্ত যুগ্ম মহাসচিব আল্লামা জুনায়েদ আল হাবিবের ২০১৩ সালের পল্টন থানায় করা পুরনো এক মামলায় ২ দিনের রিমান্ডের আদেশ দেন একই আদালত। ১৭ এপ্রিল জুনায়েদ আল হাবিবকে রাজধানীর বারিধারা থেকে গ্রেফতার করা হয়। এর আগে ২৬ এপ্রিল ২০১৩ সালের পুরনো বিস্ফোরক আইনের মামলায় তার ৭ দিনের রিমান্ডের আদেশ দেওয়া হয়। ওইদিন একই আদালত একই মামলায় হেফাজতের অপর নেতা জালাল উদ্দিনের ৩ দিনের রিমান্ডের আদেশ দেওয়া হয়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন