রাবিতে দুর্নীতিবিরোধী শিক্ষকদের সঙ্গে চাকরি প্রত্যাশীদের ধস্তাধস্তি
jugantor
রাবিতে দুর্নীতিবিরোধী শিক্ষকদের সঙ্গে চাকরি প্রত্যাশীদের ধস্তাধস্তি

  রাজশাহী ব্যুরো  

০৫ মে ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) দুর্নীতিবিরোধী শিক্ষকদের সঙ্গে চাকরিপ্রত্যাশী ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের ধস্তাধস্তি হয়েছে। চাকরিপ্রত্যাশীদের নেতৃত্বে ছিলেন ভিসির জামাতা আইবিএ প্রভাষক শাহেদ পারভেজ। মঙ্গলবার সকালে ভিসির বাসভবনের সামনে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় সিন্ডিকেট সভা স্থগিত করা হয়েছে। এ তথ্য নিশ্চিত করেন বিশ্ববিদ্যালয় রেজিস্ট্রার প্রফেসর আব্দুস সালাম।

জানা যায়, সকাল ৮টার দিকে ভিসি বাসভবনের সামনে অবস্থান নেন ছাত্রলীগ ও চাকরিপ্রত্যাশীরা। পরে সেখানে উপস্থিত হন দুর্নীতিবিরোধী প্রগতিশীল শিক্ষকরা। তারা সাক্ষাতের জন্য ভিসির বাসভবনে প্রবেশ করতে চাইলে বাধা দেয় ছাত্রলীগ ও চাকরিপ্রত্যাশীরা। এ সময় দুই পক্ষের মধ্যে বাগ্বিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে ধস্তাধস্তিও হয়। চাকরিপ্রত্যাশীদের নেতৃত্ব দেন ভিসির জামাতা শাহেদ পারভেজ। এ সময় ঘটনাস্থলে থাকা প্রক্টর দর্শকের ভূমিকায় ছিলেন। দুর্নীতিবিরোধী শিক্ষকরা ভেতরে প্রবেশের জন্য প্রক্টরের সহযোগিতা চাইলে তিনি অসহযোগিতামূলক আচরণ করেন।

দুর্নীতিবিরোধী শিক্ষকদের নেতা বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. শফিকুন্নবী সামাদী বলেন, আমরা ভিসির সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে চাইলে চাকরিপ্রত্যাশীদের বাধার সম্মুখীন হই। একজন চাকরিপ্রত্যাশী শিক্ষকদের গুলি করার হুমকি দেয়।

সিন্ডিকেট সদস্য প্রফেসর ড. হাবিবুর রহমান বলেন, সিন্ডিকেট সভায় যোগ দেওয়ার জন্য নির্ধারিত সময়ে গিয়েছিলাম। ভিসির বাসভবনের সামনে উপস্থিত হওয়া মাত্রই ভেতরে প্রবেশ করতে বাধার সম্মুখীন হই। পরে আমি বাগ্বিতণ্ডায় না জড়িয়ে চলে আসি। শুধু আমি নই, কোনো সিন্ডিকেট সদস্যই ভেতরে প্রবেশ করতে পারেননি। পরবর্তী সভার বিষয়ে জানতে তিনি বলেন, এ ভিসির সময়ে সিন্ডিকেট করা সম্ভব নয়। কেননা মাত্র দুইদিন সময় আছে।

দুর্নীতিবিরোধী শিক্ষকদের নেতা অধ্যাপক ড. সুলতান-উল-ইসলাম টিপু বলেন, ভিসির বাসভবনে ঢোকতে গেলে একজন ছাত্রলীগ পরিচয়ে আমাদের গুলি করার হুমকি দেয়। বাকিরা ঢুকতে বাধা দেয়। তিনি বলেন, এটি উপাচার্যের প্ররোচণায় হয়েছে। যদি শিক্ষকরা কোনো দুর্ঘটনার শিকার হন, এর দায় উপাচার্যকেই নিতে হবে।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর প্রফেসর ড. লুৎফর রহমান বলেন, চাকরিপ্রত্যাশীদের সঙ্গে শিক্ষকদের একটু ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে। আমি চেষ্টা করেছি উভয় পক্ষকে শান্ত করার। শিক্ষকদের সঙ্গে অসহযোগিতামূলক আচরণের অভিযোগ সত্য নয়।

রেজিস্ট্রার প্রফেসর আব্দুস সালাম জানান, সকাল সাড়ে ১০টায় সিন্ডিকেট সভা হওয়ার কথা ছিল। দুর্নীতিবিরোধী প্রগতিশীল শিক্ষকদের সঙ্গে চাকরিপ্রত্যাশীদের ধস্তাধস্তি হয়। এজন্য সভা সাময়িকভাবে স্থগিত করা হয়েছে। পরবর্তী সভার বিষয়ে এখনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। এর আগে রোববার অর্থ কমিটির সভা আহ্বান করা হয়েছিল। কিন্তু দুর্নীতিবিরোধী শিক্ষকদের বাধায় তা স্থগিত করা হয়।

রাবিতে দুর্নীতিবিরোধী শিক্ষকদের সঙ্গে চাকরি প্রত্যাশীদের ধস্তাধস্তি

 রাজশাহী ব্যুরো 
০৫ মে ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) দুর্নীতিবিরোধী শিক্ষকদের সঙ্গে চাকরিপ্রত্যাশী ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের ধস্তাধস্তি হয়েছে। চাকরিপ্রত্যাশীদের নেতৃত্বে ছিলেন ভিসির জামাতা আইবিএ প্রভাষক শাহেদ পারভেজ। মঙ্গলবার সকালে ভিসির বাসভবনের সামনে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় সিন্ডিকেট সভা স্থগিত করা হয়েছে। এ তথ্য নিশ্চিত করেন বিশ্ববিদ্যালয় রেজিস্ট্রার প্রফেসর আব্দুস সালাম।

জানা যায়, সকাল ৮টার দিকে ভিসি বাসভবনের সামনে অবস্থান নেন ছাত্রলীগ ও চাকরিপ্রত্যাশীরা। পরে সেখানে উপস্থিত হন দুর্নীতিবিরোধী প্রগতিশীল শিক্ষকরা। তারা সাক্ষাতের জন্য ভিসির বাসভবনে প্রবেশ করতে চাইলে বাধা দেয় ছাত্রলীগ ও চাকরিপ্রত্যাশীরা। এ সময় দুই পক্ষের মধ্যে বাগ্বিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে ধস্তাধস্তিও হয়। চাকরিপ্রত্যাশীদের নেতৃত্ব দেন ভিসির জামাতা শাহেদ পারভেজ। এ সময় ঘটনাস্থলে থাকা প্রক্টর দর্শকের ভূমিকায় ছিলেন। দুর্নীতিবিরোধী শিক্ষকরা ভেতরে প্রবেশের জন্য প্রক্টরের সহযোগিতা চাইলে তিনি অসহযোগিতামূলক আচরণ করেন।

দুর্নীতিবিরোধী শিক্ষকদের নেতা বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. শফিকুন্নবী সামাদী বলেন, আমরা ভিসির সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে চাইলে চাকরিপ্রত্যাশীদের বাধার সম্মুখীন হই। একজন চাকরিপ্রত্যাশী শিক্ষকদের গুলি করার হুমকি দেয়।

সিন্ডিকেট সদস্য প্রফেসর ড. হাবিবুর রহমান বলেন, সিন্ডিকেট সভায় যোগ দেওয়ার জন্য নির্ধারিত সময়ে গিয়েছিলাম। ভিসির বাসভবনের সামনে উপস্থিত হওয়া মাত্রই ভেতরে প্রবেশ করতে বাধার সম্মুখীন হই। পরে আমি বাগ্বিতণ্ডায় না জড়িয়ে চলে আসি। শুধু আমি নই, কোনো সিন্ডিকেট সদস্যই ভেতরে প্রবেশ করতে পারেননি। পরবর্তী সভার বিষয়ে জানতে তিনি বলেন, এ ভিসির সময়ে সিন্ডিকেট করা সম্ভব নয়। কেননা মাত্র দুইদিন সময় আছে।

দুর্নীতিবিরোধী শিক্ষকদের নেতা অধ্যাপক ড. সুলতান-উল-ইসলাম টিপু বলেন, ভিসির বাসভবনে ঢোকতে গেলে একজন ছাত্রলীগ পরিচয়ে আমাদের গুলি করার হুমকি দেয়। বাকিরা ঢুকতে বাধা দেয়। তিনি বলেন, এটি উপাচার্যের প্ররোচণায় হয়েছে। যদি শিক্ষকরা কোনো দুর্ঘটনার শিকার হন, এর দায় উপাচার্যকেই নিতে হবে।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর প্রফেসর ড. লুৎফর রহমান বলেন, চাকরিপ্রত্যাশীদের সঙ্গে শিক্ষকদের একটু ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে। আমি চেষ্টা করেছি উভয় পক্ষকে শান্ত করার। শিক্ষকদের সঙ্গে অসহযোগিতামূলক আচরণের অভিযোগ সত্য নয়।

রেজিস্ট্রার প্রফেসর আব্দুস সালাম জানান, সকাল সাড়ে ১০টায় সিন্ডিকেট সভা হওয়ার কথা ছিল। দুর্নীতিবিরোধী প্রগতিশীল শিক্ষকদের সঙ্গে চাকরিপ্রত্যাশীদের ধস্তাধস্তি হয়। এজন্য সভা সাময়িকভাবে স্থগিত করা হয়েছে। পরবর্তী সভার বিষয়ে এখনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। এর আগে রোববার অর্থ কমিটির সভা আহ্বান করা হয়েছিল। কিন্তু দুর্নীতিবিরোধী শিক্ষকদের বাধায় তা স্থগিত করা হয়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন