দেশে করোনায় মৃত্যু ৩২ শনাক্ত ৬৯৮
jugantor
দেশে করোনায় মৃত্যু ৩২ শনাক্ত ৬৯৮

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৮ মে ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ঈদের ছুটির পর নমুনা পরীক্ষা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে দৈনিক শনাক্ত ও মৃত্যু ফের বাড়ছে। তিন দিন পর আবার ত্রিশ ছাড়িয়েছে মৃতের সংখ্যা। দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে একদিনে আরও ৩২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় নতুন সংক্রমণ ধরা পড়েছে আরও ৬৯৮ জনের মধ্যে। আগের দিন ২৫ জনের মৃত্যু ও শনাক্ত হয়েছিল ৩৬৩ জন। এ নিয়ে দেশে মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১২,১৮১। সব মিলিয়ে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৭ লাখ ৮০ হাজার ৮৫৭। সরকারি হিসাবে, আক্রান্তদের মধ্যে একদিনে আরও ১০৫৮ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৭ লাখ ২৩ হাজার ৯৪ জন। সোমবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

ঈদের ছুটির প্রথম দুই দিনে নমুনা পরীক্ষা এক-চতুর্থাংশে নেমে আসায় শনিবার শনাক্ত রোগীর সংখ্যা এক ধাক্কায় নেমে এসেছিল ১৩ মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন পর্যায়ে। সেদিন ৩ হাজার ৭৫৮টি নমুনা পরীক্ষায় ২৬১ জনের দেহে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ে। পরদিন নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা কিছুটা বেড়ে ৫৫০৮ হয়, তাতে শনাক্ত হয় ৩৬৩ জন নতুন রোগী।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ৪৬৬টি ল্যাবে ১০ হাজার ৩৪৭টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এ পর্যন্ত পরীক্ষা হয়েছে ৫৭ লাখ ১৮ হাজার ৬৩টি নমুনা। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৪১ লাখ ৮৮ হাজার ৭৩৩টি আর বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১৫ লাখ ২৯ হাজার ৩৩০টি। নমুনা পরীক্ষা অনুযায়ী শনাক্তের হার ৬ দশমিক ৭৫ শতাংশ। এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৬৬ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯২ দশমিক ৬০ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৫৬ শতাংশ। এক দিনে যারা মারা গেছেন, তাদের ২৩ জন পুরুষ আর নারী ৯ জন। তাদের ১৯ জন সরকারি হাসপাতালে, ১১ জন বেসরকারি হাসপাতালে এবং দুজন বাড়িতে মারা যান। তাদের মধ্যে ১৭ জনের বয়স ছিল ৬০ বছরের বেশি, সাতজনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে, চারজনের বয়স ৪১ থেকে ৫০ বছর, তিনজনের বয়স ৩১ থেকে ৪০ বছর এবং একজনের বয়স ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে ছিল। মৃতদের মধ্যে ২১ জন ঢাকা বিভাগের, দুজন চট্টগ্রাম বিভাগের, দুজন রাজশাহী বিভাগের, দুজন খুলনা বিভাগের, একজন বরিশাল বিভাগের, তিনজন সিলেট বিভাগের এবং একজন ময়মনসিংহ বিভাগের বাসিন্দা ছিলেন। এ পর্যন্ত মৃত ১২ হাজার ১৮১ জনের মধ্যে ৮ হাজার ৮২০ জন পুরুষ এবং ৩ হাজার ৩৬১ জন নারী।

দেশে করোনায় মৃত্যু ৩২ শনাক্ত ৬৯৮

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৮ মে ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ঈদের ছুটির পর নমুনা পরীক্ষা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে দৈনিক শনাক্ত ও মৃত্যু ফের বাড়ছে। তিন দিন পর আবার ত্রিশ ছাড়িয়েছে মৃতের সংখ্যা। দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে একদিনে আরও ৩২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় নতুন সংক্রমণ ধরা পড়েছে আরও ৬৯৮ জনের মধ্যে। আগের দিন ২৫ জনের মৃত্যু ও শনাক্ত হয়েছিল ৩৬৩ জন। এ নিয়ে দেশে মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১২,১৮১। সব মিলিয়ে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৭ লাখ ৮০ হাজার ৮৫৭। সরকারি হিসাবে, আক্রান্তদের মধ্যে একদিনে আরও ১০৫৮ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৭ লাখ ২৩ হাজার ৯৪ জন। সোমবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

ঈদের ছুটির প্রথম দুই দিনে নমুনা পরীক্ষা এক-চতুর্থাংশে নেমে আসায় শনিবার শনাক্ত রোগীর সংখ্যা এক ধাক্কায় নেমে এসেছিল ১৩ মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন পর্যায়ে। সেদিন ৩ হাজার ৭৫৮টি নমুনা পরীক্ষায় ২৬১ জনের দেহে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ে। পরদিন নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা কিছুটা বেড়ে ৫৫০৮ হয়, তাতে শনাক্ত হয় ৩৬৩ জন নতুন রোগী।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ৪৬৬টি ল্যাবে ১০ হাজার ৩৪৭টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এ পর্যন্ত পরীক্ষা হয়েছে ৫৭ লাখ ১৮ হাজার ৬৩টি নমুনা। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৪১ লাখ ৮৮ হাজার ৭৩৩টি আর বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১৫ লাখ ২৯ হাজার ৩৩০টি। নমুনা পরীক্ষা অনুযায়ী শনাক্তের হার ৬ দশমিক ৭৫ শতাংশ। এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৬৬ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯২ দশমিক ৬০ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৫৬ শতাংশ। এক দিনে যারা মারা গেছেন, তাদের ২৩ জন পুরুষ আর নারী ৯ জন। তাদের ১৯ জন সরকারি হাসপাতালে, ১১ জন বেসরকারি হাসপাতালে এবং দুজন বাড়িতে মারা যান। তাদের মধ্যে ১৭ জনের বয়স ছিল ৬০ বছরের বেশি, সাতজনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে, চারজনের বয়স ৪১ থেকে ৫০ বছর, তিনজনের বয়স ৩১ থেকে ৪০ বছর এবং একজনের বয়স ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে ছিল। মৃতদের মধ্যে ২১ জন ঢাকা বিভাগের, দুজন চট্টগ্রাম বিভাগের, দুজন রাজশাহী বিভাগের, দুজন খুলনা বিভাগের, একজন বরিশাল বিভাগের, তিনজন সিলেট বিভাগের এবং একজন ময়মনসিংহ বিভাগের বাসিন্দা ছিলেন। এ পর্যন্ত মৃত ১২ হাজার ১৮১ জনের মধ্যে ৮ হাজার ৮২০ জন পুরুষ এবং ৩ হাজার ৩৬১ জন নারী।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন