রাজশাহীতে ভেঙে পড়ল নির্মাণাধীন চারতলা ভবন
jugantor
রাজশাহীতে ভেঙে পড়ল নির্মাণাধীন চারতলা ভবন

  রাজশাহী ব্যুরো  

২১ জুন ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রাজশাহী মহানগরীতে ভেঙে পড়েছে একটি নির্মাণাধীন চারতলা ভবন। মহানগরীর কয়েরদাড়া এলাকায় রোববার বেলা ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ভবনটিতে কেউ না থাকায় হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। তবে চাপা পড়েছে কয়েকটি প্রাইভেটকার। ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের রাজশাহী সদর স্টেশনের সিনিয়র স্টেশন অফিসার আবদুর রউফ জানান, ভবনটির দৈর্ঘ্য প্রায় ৮০ ও প্রস্থ ৪০ ফুট। চারতলা পর্যন্ত নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছিল। ওপরে আরেক তলা তোলার জন্য বিম ওঠানো হয়েছিল। অত্যন্ত নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে ভবনটি নির্মাণ করা হচ্ছিল।

জানা গেছে, ভবনটির মালিক ছিলেন আক্তারুজ্জামান বাবলু নামের এক ব্যবসায়ী। প্রায় এক বছর আগে তিনি মারা গেছেন। এখন ভবনের মালিকানায় আছেন তার ছোট ভাই নুরুজ্জামান পিটার। তবে আক্তারুজ্জামান বাবলুর মৃত্যুর পর থেকে ভবনটিতে আর কাজ হয়নি। ভবন মালিকের ব্যবস্থাপক তোফাজ্জল হোসেন মডি দাবি করেন, ভালোমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহার করা হয়েছিল, কিন্তু কেউ থাকত না। রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (আরডিএ) কাছ থেকে এই ভবনটির নকশার অনুমোদন নেওয়া হয়েছিল কিনা তা তিনি জানেন না।

ফায়ার সার্ভিসের রাজশাহী স্টেশনের সিনিয়র স্টেশন অফিসার আবদুর রউফ বলেন, ভবনের নকশার অনুমোদন ছিল কিনা, কোন ধরনের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহার হয়েছিল এসব তদন্ত করা হবে।

রাজশাহীতে ভেঙে পড়ল নির্মাণাধীন চারতলা ভবন

 রাজশাহী ব্যুরো 
২১ জুন ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রাজশাহী মহানগরীতে ভেঙে পড়েছে একটি নির্মাণাধীন চারতলা ভবন। মহানগরীর কয়েরদাড়া এলাকায় রোববার বেলা ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ভবনটিতে কেউ না থাকায় হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। তবে চাপা পড়েছে কয়েকটি প্রাইভেটকার। ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের রাজশাহী সদর স্টেশনের সিনিয়র স্টেশন অফিসার আবদুর রউফ জানান, ভবনটির দৈর্ঘ্য প্রায় ৮০ ও প্রস্থ ৪০ ফুট। চারতলা পর্যন্ত নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছিল। ওপরে আরেক তলা তোলার জন্য বিম ওঠানো হয়েছিল। অত্যন্ত নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে ভবনটি নির্মাণ করা হচ্ছিল।

জানা গেছে, ভবনটির মালিক ছিলেন আক্তারুজ্জামান বাবলু নামের এক ব্যবসায়ী। প্রায় এক বছর আগে তিনি মারা গেছেন। এখন ভবনের মালিকানায় আছেন তার ছোট ভাই নুরুজ্জামান পিটার। তবে আক্তারুজ্জামান বাবলুর মৃত্যুর পর থেকে ভবনটিতে আর কাজ হয়নি। ভবন মালিকের ব্যবস্থাপক তোফাজ্জল হোসেন মডি দাবি করেন, ভালোমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহার করা হয়েছিল, কিন্তু কেউ থাকত না। রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (আরডিএ) কাছ থেকে এই ভবনটির নকশার অনুমোদন নেওয়া হয়েছিল কিনা তা তিনি জানেন না।

ফায়ার সার্ভিসের রাজশাহী স্টেশনের সিনিয়র স্টেশন অফিসার আবদুর রউফ বলেন, ভবনের নকশার অনুমোদন ছিল কিনা, কোন ধরনের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহার হয়েছিল এসব তদন্ত করা হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন