করোনার উৎস তদন্তের প্রস্তাব নাকচ চীনের
jugantor
করোনার উৎস তদন্তের প্রস্তাব নাকচ চীনের

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৪ জুলাই ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

করোনাভাইরাসের উৎস সন্ধানে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) পুনরায় তদন্তের প্রস্তাব নাকচ করেছে চীন। দেশটির এ পদক্ষেপকে ‘দায়িত্বজ্ঞানহীন’ ও ‘ভয়ংকর’ বলে মন্তব্য করেছে যুক্তরাষ্ট্র। হোয়াইট হাউজের প্রেসসচিব জেন সাকি বলেছেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার আহ্বানে চীনের অবস্থান দায়িত্বজ্ঞানহীন এবং স্পষ্টভাবে ভয়ংকর। সহায়তার আহ্বান প্রত্যাখ্যান করার মতো সময় এটা নয়।

সম্প্রতি চীনে দ্বিতীয় দফায় বিশেষজ্ঞদের পাঠানোর পরিকল্পনা প্রকাশ করেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান তেদ্রোস আধানম গেব্রিয়াসুস। তার প্রস্তাবে করোনাভাইরাস প্রথম যে এলাকায় দেখা যায় সে এলাকার ল্যাবরেটরি ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানগুলো পরিদর্শনের কথা বলা হয়। এছাড়া উহান শহরের কাঁচাবাজারে নতুন করে তদন্তের পরিকল্পনার কথা জানায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। গতবার বিশেষজ্ঞদের তদন্তের ফলাফল নিয়ে অসন্তোষ জানিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন দেশ। ফলে নতুন করে চীনে অনুসন্ধানে ডব্লিউএইচওকে অনেকটা চাপ দেয় ওয়াশিংটন। পরে ডব্লিউএইচওর প্রধান গেব্রিয়াসুস জানান, করোনার উৎস অনুসন্ধানে চীনে যাওয়া তাদের তদন্ত দলকে এ সংক্রান্ত সব তথ্য দেওয়া হয়নি। এমনকি তদন্তকারী দলের সদস্যদের ভাইরাসের প্রাথমিক তথ্য পেতে তাদের বেশ অসুবিধার মুখে পড়তে হয় বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

এমন অবস্থায় দ্বিতীয় দফায় চীনে করোনার উৎস অনুসন্ধানের পরিকল্পনায় জল ঢেলে দিয়েছে বেইজিং। বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে দেশটির উপ-স্বাস্থ্যমন্ত্রী জেং জিয়ান বলেন, এই পরিকল্পনার অর্থ হলো আমাদের প্রতি অসম্মান প্রদর্শন করা এবং তারা বিজ্ঞানকে অবিশ্বাস করে। চীনা কর্তৃপক্ষের মতে, এ বিষয়টি নিয়ে রাজনীতি করা হচ্ছে, চীন কখনোই এমন পরিকল্পনা মেনে নেবে না।

২০২১ সালের জানুয়ারিতে চীনে যান বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তদন্তকারীরা। ভাইরাসের উৎস শনাক্ত করতে চার সপ্তাহ ধরে উহান ও সংলগ্ন এলাকায় অনুসন্ধান চালান তারা।

চীনের উপ-স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ল্যাব প্রটোকল ভঙ্গ করায় গবেষণার সময় করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে-এ অনুমান থেকে ডব্লিউএইচও আবার করোনার উৎস নিয়ে গবেষণা করতে চায়। সংস্থাটির প্রস্তাবের এই অংশ পড়ে আমি বিস্মিত হয়েছি। দ্বিতীয় দফায় চীনে অনুসন্ধানের প্রস্তাব আমরা কখনোই মেনে নেব না। আশা করি, চীনের বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ গুরুত্বের সঙ্গে পর্যালোচনা করবে ডব্লিউএইচও।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরের শেষ দিকে চীনের উহান শহরে প্রথম করোনাভাইরাস সংক্রমণ শনাক্ত হয়। এরপর ধীরে ধীরে তা সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে। চীনের পরীক্ষাগার থেকে করোনাভাইরাস ছড়িয়েছে বলে গত বছরই সন্দেহের কথা বলেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

করোনার উৎস তদন্তের প্রস্তাব নাকচ চীনের

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৪ জুলাই ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

করোনাভাইরাসের উৎস সন্ধানে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) পুনরায় তদন্তের প্রস্তাব নাকচ করেছে চীন। দেশটির এ পদক্ষেপকে ‘দায়িত্বজ্ঞানহীন’ ও ‘ভয়ংকর’ বলে মন্তব্য করেছে যুক্তরাষ্ট্র। হোয়াইট হাউজের প্রেসসচিব জেন সাকি বলেছেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার আহ্বানে চীনের অবস্থান দায়িত্বজ্ঞানহীন এবং স্পষ্টভাবে ভয়ংকর। সহায়তার আহ্বান প্রত্যাখ্যান করার মতো সময় এটা নয়।

সম্প্রতি চীনে দ্বিতীয় দফায় বিশেষজ্ঞদের পাঠানোর পরিকল্পনা প্রকাশ করেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান তেদ্রোস আধানম গেব্রিয়াসুস। তার প্রস্তাবে করোনাভাইরাস প্রথম যে এলাকায় দেখা যায় সে এলাকার ল্যাবরেটরি ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানগুলো পরিদর্শনের কথা বলা হয়। এছাড়া উহান শহরের কাঁচাবাজারে নতুন করে তদন্তের পরিকল্পনার কথা জানায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। গতবার বিশেষজ্ঞদের তদন্তের ফলাফল নিয়ে অসন্তোষ জানিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন দেশ। ফলে নতুন করে চীনে অনুসন্ধানে ডব্লিউএইচওকে অনেকটা চাপ দেয় ওয়াশিংটন। পরে ডব্লিউএইচওর প্রধান গেব্রিয়াসুস জানান, করোনার উৎস অনুসন্ধানে চীনে যাওয়া তাদের তদন্ত দলকে এ সংক্রান্ত সব তথ্য দেওয়া হয়নি। এমনকি তদন্তকারী দলের সদস্যদের ভাইরাসের প্রাথমিক তথ্য পেতে তাদের বেশ অসুবিধার মুখে পড়তে হয় বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

এমন অবস্থায় দ্বিতীয় দফায় চীনে করোনার উৎস অনুসন্ধানের পরিকল্পনায় জল ঢেলে দিয়েছে বেইজিং। বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে দেশটির উপ-স্বাস্থ্যমন্ত্রী জেং জিয়ান বলেন, এই পরিকল্পনার অর্থ হলো আমাদের প্রতি অসম্মান প্রদর্শন করা এবং তারা বিজ্ঞানকে অবিশ্বাস করে। চীনা কর্তৃপক্ষের মতে, এ বিষয়টি নিয়ে রাজনীতি করা হচ্ছে, চীন কখনোই এমন পরিকল্পনা মেনে নেবে না।

২০২১ সালের জানুয়ারিতে চীনে যান বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তদন্তকারীরা। ভাইরাসের উৎস শনাক্ত করতে চার সপ্তাহ ধরে উহান ও সংলগ্ন এলাকায় অনুসন্ধান চালান তারা।

চীনের উপ-স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ল্যাব প্রটোকল ভঙ্গ করায় গবেষণার সময় করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে-এ অনুমান থেকে ডব্লিউএইচও আবার করোনার উৎস নিয়ে গবেষণা করতে চায়। সংস্থাটির প্রস্তাবের এই অংশ পড়ে আমি বিস্মিত হয়েছি। দ্বিতীয় দফায় চীনে অনুসন্ধানের প্রস্তাব আমরা কখনোই মেনে নেব না। আশা করি, চীনের বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ গুরুত্বের সঙ্গে পর্যালোচনা করবে ডব্লিউএইচও।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরের শেষ দিকে চীনের উহান শহরে প্রথম করোনাভাইরাস সংক্রমণ শনাক্ত হয়। এরপর ধীরে ধীরে তা সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে। চীনের পরীক্ষাগার থেকে করোনাভাইরাস ছড়িয়েছে বলে গত বছরই সন্দেহের কথা বলেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন