ক্ষুদেরা মাত করে দিচ্ছে দুঁদেদের!
jugantor
ক্ষুদেরা মাত করে দিচ্ছে দুঁদেদের!

  পারভেজ আলম চৌধুরী  

৩০ জুলাই ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

অলিম্পিক যেন বিস্ময়ের পশরা সাজিয়ে বসেছে। ক্ষুদেরা মাত করে দিচ্ছে দুঁদেদের! মাত্র ৭০ হাজার জনসংখ্যার এতটুকু একটা দেশ বারমুডা ছোঁ মেরে স্বর্ণপদক ছিনিয়ে নিয়েছে ফ্লোরা ডাফি নামের এক বিক্রয়কর্মীর সৌজন্যে। সান মারিনো যেন নিজেদের শুধালো, আমরাই বা কম কিসে। যুদ্ধে-টুদ্ধে কারও সঙ্গে তো পারা যাবে না। অলিম্পিকই না হোক স্বপ্নকে সত্যি করার মঞ্চ। কী সেই স্বপ্ন? একটি পদক। একটি অলিম্পিক পদকের জন্য ঝাঁপানো তাই বিনা অস্ত্রের সহজ যুদ্ধ!

সান মারিনো দেশটা কত বড়? উইকিপিডিয়া বলছে, ইউরোপ মহাদেশের একটি রাষ্ট্র। পৃথিবীর ক্ষুদ্র রাষ্ট্রগুলোর অন্যতম। এর উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় পাশঅ্যাপেনিন পর্বতমালা পুরোটাই ইতালি দ্বারা বেষ্টিত। জনসংখ্যা বারমুডা থেকেও কম। মাত্র ৩৩ হাজার ৮৬০ (২০১৯ সালে বিশ্ব ব্যাংকের হিসাব)।

কী কাণ্ড দেখুন, এমন পুঁচকে একটা দেশ অলিম্পিকের ইতিহাসে তাদের প্রথম পদক জিতল। মেয়েদের শুটিং ট্র্যাপে ব্রোঞ্জ জিতে নিলেন সান মারিনোর আলেজান্দ্রা পেরিল্লি। হোক ব্রোঞ্জ। পদক তো। মার্কা লিখেছে, অবিস্মরণীয় অর্জন। যা কিছু প্রথম সবই বুঝি ‘অবিস্মরণীয়’। প্রথম প্রেমের মতো প্রথম পদক প্রাপ্তিও জীবনে ভুলবার নয়। আলেজান্দ্রা যে এক অর্জনেই পেয়ে গেলেন সারা জীবনের সঞ্চয়। বৃহস্পতিবার সত্যিই তুঙ্গে ছিল তার বৃহস্পতি।

টোকিও ২০২০ অলিম্পিকের ষষ্ঠদিনের খেরোখাতা খুললে দেখতে পাবেন আরও কিছু চমক। আরও কিছু বিস্ময়। মার্কিন সাঁতারু ক্যালেব ড্রেসেল নতুন অলিম্পিক রেকর্ড গড়ে ছেলেদের ১০০ মিটার ফ্রিস্টাইলে নিজের প্রথম একক স্বর্ণপদক জিতলেন। ২৪ বছরের ড্রেসেল সময় নেন ৪৭.০২ সেকেন্ড।

তার স্বপ্নপূরণের দিন ঝাঙ ইউফেই মেয়েদের অলিম্পিক ২০০ মিটার বাটারফ্লাই ইভেন্টে স্বর্ণপদক জেতেন। ২৩ বছরের এই চীনা জলকন্যা এ বছর আগুনে ফর্মে আছেন। টোকিওর পুলে ঠিকরে পড়ল সেই আগুন। এবারের অলিম্পিক সাঁতারে এটাই চীনের প্রথম স্বর্ণজয়। আর সেটি এলো ‘বাটারফ্লাই কুইন’ খ্যাত ইউফেইয়ের হাত ধরে। চীনের জলকন্যারা অলিম্পিক ৪ূ২০০ মিটার রিলেতেও স্বর্ণপদক জিতেছেন বিশ্বরেকর্ড গড়ে। এই ইভেন্টে ফেভারিট অস্ট্রেলিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র যে স্বর্ণবঞ্চিত হয়েছে, সেটি অঘটন-ঘটনপটিয়সী চীনা জলকন্যাদের কারিশমায়।

সূর্যোদয়ের দেশে এরচেয়েও বড় চমক হয়তো অপেক্ষা করছে। ‘সব ক্রীড়ার জননী’ অ্যাথলেটিক্স শুরু হচ্ছে আজ। প্রশ্ন উঠে গেছে, উসাইন বোল্টের ১০০ মিটারের মুকুট শোভা পাবে কার মাথায়? ক্রীড়াবিশ্ব রুদ্ধশ্বাস অপেক্ষায়। জ্যামাইকান বোল্ট অবসর নিয়েছেন। নতুন কেউ তার শূন্যস্থান পূরণ করবেন। কেউ কী পারবেন ‘বিদ্যুৎ বোল্টের’ ৯.৫৮ সেকেন্ডের রেকর্ড ভাঙতে? ট্রেভন ব্রোমেল, রনি বেকার ও আকনি সিম্বিনের হাতে সম্ভাবনার মশাল। সিম্বিনে সম্প্রতি বছরের দ্বিতীয় দ্রুততম সময় ৯.৮৪ সেকেন্ডে দৌড় শেষ করেছেন। ব্রোমেল জুনে ফ্লোরিডায় সময় নিয়েছেন ৯.৭৭ সেকেন্ড। রোববার টোকিওতে যার মাথায়ই মুকুট উঠুক, তিনি হবেন স্প্রিন্টের সুপারস্টারদের নতুন প্রজন্মের নেতা।

ক্ষুদেরা মাত করে দিচ্ছে দুঁদেদের!

 পারভেজ আলম চৌধুরী 
৩০ জুলাই ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

অলিম্পিক যেন বিস্ময়ের পশরা সাজিয়ে বসেছে। ক্ষুদেরা মাত করে দিচ্ছে দুঁদেদের! মাত্র ৭০ হাজার জনসংখ্যার এতটুকু একটা দেশ বারমুডা ছোঁ মেরে স্বর্ণপদক ছিনিয়ে নিয়েছে ফ্লোরা ডাফি নামের এক বিক্রয়কর্মীর সৌজন্যে। সান মারিনো যেন নিজেদের শুধালো, আমরাই বা কম কিসে। যুদ্ধে-টুদ্ধে কারও সঙ্গে তো পারা যাবে না। অলিম্পিকই না হোক স্বপ্নকে সত্যি করার মঞ্চ। কী সেই স্বপ্ন? একটি পদক। একটি অলিম্পিক পদকের জন্য ঝাঁপানো তাই বিনা অস্ত্রের সহজ যুদ্ধ!

সান মারিনো দেশটা কত বড়? উইকিপিডিয়া বলছে, ইউরোপ মহাদেশের একটি রাষ্ট্র। পৃথিবীর ক্ষুদ্র রাষ্ট্রগুলোর অন্যতম। এর উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় পাশঅ্যাপেনিন পর্বতমালা পুরোটাই ইতালি দ্বারা বেষ্টিত। জনসংখ্যা বারমুডা থেকেও কম। মাত্র ৩৩ হাজার ৮৬০ (২০১৯ সালে বিশ্ব ব্যাংকের হিসাব)।

কী কাণ্ড দেখুন, এমন পুঁচকে একটা দেশ অলিম্পিকের ইতিহাসে তাদের প্রথম পদক জিতল। মেয়েদের শুটিং ট্র্যাপে ব্রোঞ্জ জিতে নিলেন সান মারিনোর আলেজান্দ্রা পেরিল্লি। হোক ব্রোঞ্জ। পদক তো। মার্কা লিখেছে, অবিস্মরণীয় অর্জন। যা কিছু প্রথম সবই বুঝি ‘অবিস্মরণীয়’। প্রথম প্রেমের মতো প্রথম পদক প্রাপ্তিও জীবনে ভুলবার নয়। আলেজান্দ্রা যে এক অর্জনেই পেয়ে গেলেন সারা জীবনের সঞ্চয়। বৃহস্পতিবার সত্যিই তুঙ্গে ছিল তার বৃহস্পতি।

টোকিও ২০২০ অলিম্পিকের ষষ্ঠদিনের খেরোখাতা খুললে দেখতে পাবেন আরও কিছু চমক। আরও কিছু বিস্ময়। মার্কিন সাঁতারু ক্যালেব ড্রেসেল নতুন অলিম্পিক রেকর্ড গড়ে ছেলেদের ১০০ মিটার ফ্রিস্টাইলে নিজের প্রথম একক স্বর্ণপদক জিতলেন। ২৪ বছরের ড্রেসেল সময় নেন ৪৭.০২ সেকেন্ড।

তার স্বপ্নপূরণের দিন ঝাঙ ইউফেই মেয়েদের অলিম্পিক ২০০ মিটার বাটারফ্লাই ইভেন্টে স্বর্ণপদক জেতেন। ২৩ বছরের এই চীনা জলকন্যা এ বছর আগুনে ফর্মে আছেন। টোকিওর পুলে ঠিকরে পড়ল সেই আগুন। এবারের অলিম্পিক সাঁতারে এটাই চীনের প্রথম স্বর্ণজয়। আর সেটি এলো ‘বাটারফ্লাই কুইন’ খ্যাত ইউফেইয়ের হাত ধরে। চীনের জলকন্যারা অলিম্পিক ৪ূ২০০ মিটার রিলেতেও স্বর্ণপদক জিতেছেন বিশ্বরেকর্ড গড়ে। এই ইভেন্টে ফেভারিট অস্ট্রেলিয়া ও যুক্তরাষ্ট্র যে স্বর্ণবঞ্চিত হয়েছে, সেটি অঘটন-ঘটনপটিয়সী চীনা জলকন্যাদের কারিশমায়।

সূর্যোদয়ের দেশে এরচেয়েও বড় চমক হয়তো অপেক্ষা করছে। ‘সব ক্রীড়ার জননী’ অ্যাথলেটিক্স শুরু হচ্ছে আজ। প্রশ্ন উঠে গেছে, উসাইন বোল্টের ১০০ মিটারের মুকুট শোভা পাবে কার মাথায়? ক্রীড়াবিশ্ব রুদ্ধশ্বাস অপেক্ষায়। জ্যামাইকান বোল্ট অবসর নিয়েছেন। নতুন কেউ তার শূন্যস্থান পূরণ করবেন। কেউ কী পারবেন ‘বিদ্যুৎ বোল্টের’ ৯.৫৮ সেকেন্ডের রেকর্ড ভাঙতে? ট্রেভন ব্রোমেল, রনি বেকার ও আকনি সিম্বিনের হাতে সম্ভাবনার মশাল। সিম্বিনে সম্প্রতি বছরের দ্বিতীয় দ্রুততম সময় ৯.৮৪ সেকেন্ডে দৌড় শেষ করেছেন। ব্রোমেল জুনে ফ্লোরিডায় সময় নিয়েছেন ৯.৭৭ সেকেন্ড। রোববার টোকিওতে যার মাথায়ই মুকুট উঠুক, তিনি হবেন স্প্রিন্টের সুপারস্টারদের নতুন প্রজন্মের নেতা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন