চট্টগ্রামে করোনায় মৃত্যু হাজার ছাড়াল
jugantor
বিভিন্ন স্থানে উপসর্গে মৃত্যু ৩০ জনের
চট্টগ্রামে করোনায় মৃত্যু হাজার ছাড়াল
হাসপাতালে সাধারণ ও আইসিইউও সব ধরনের শয্যা সংকট * গেট বন্ধ রেখে ভর্তিতে অপারগতা

  যুগান্তর ডেস্ক  

০৫ আগস্ট ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

চট্টগ্রামে করোনায় মৃত্যু হাজার ছাড়িয়ে গেছে। বুধবার দুপুর পর্যন্ত এ জেলায় মৃত্যুর সংখ্যা ছিল ১ হাজার ২৮৫ জন। গেল ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ১৬ জন, নতুন করে আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন ১ হাজার ২৮৫ জন। এতে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮৬ হাজার ৪২৯ জনে। অক্সিজেন ও আইসিইউ প্রয়োজন এমন রোগীদের ভর্তির জন্য চট্টগ্রামের সরকারি হাসপাতালগুলোতে শয্যা সংকট দেখা দিয়েছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ রীতিমতো গেট বন্ধ রেখে রোগী ভর্তিতে অপারগতা জানাচ্ছে। মঙ্গলবার রাতে দুই হাসপাতাল ঘুরেও করোনা আক্রান্ত মাকে ভর্তি করাতে পারেননি পটিয়ার এক ব্যক্তি। পরে আরেক হাসপাতালে ভর্তি করতে পারলেও বুধবার সকালে তার মায়ের মৃত্যু হয়েছে।

এদিকে দেশের বিভিন্ন স্থানে করোনা উপসর্গে আরও ৩০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এরমধ্যে বরিশালে সর্বোচ্চ ১০ জন মারা গেছেন। এছাড়া রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৮ জন এবং বগুড়া ও ফরিদপুরে ছয়জন করে মারা গেছেন। ব্যুরো ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

চট্টগ্রাম : পটিয়া থেকে মঙ্গলবার গভীর রাতে এরশাদ নামে এক ব্যক্তি তার করোনা আক্রান্ত মাকে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে এসেছিলেন। তিনি যুগান্তরকে জানান, করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর তার মায়ের শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। নেমে যাচ্ছিল অক্সিজেন স্যাচুরেশন। এ অবস্থায় পটিয়ার হুলাইনের গ্রামের বাড়ি থেকে তাকে প্রথমে উপজেলা সদরের বেসরকারি জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে অক্সিজেন সাপোর্ট দিতে না পারায় নিয়ে আসা হয় চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে। কিন্তু জেনারেল হাসপাতালে আইসিইউ ও সাধারণ শয্যা খালি না থাকায় গভীর রাতে বন্ধ করে দেওয়া হয় হাসপাতালের গেট। ভর্তি করতে অপারগতা প্রকাশ করা হয়। এরশাদ জানান, এরপর তার মাকে নিয়ে তারা ছুটে যান চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। সেখানেও শয্যা না থাকায় প্রথমে ফ্লোরে পরে একটি শয্যায় ভর্তি করে অক্সিজেন সাপোর্ট দেওয়া হয়। কিন্তু বুধবার সকালেই তার মায়ের মৃত্যু হয়। রোগীর এ স্বজন তার মাকে নিয়ে হাসপাতালে সিট না পাওয়া বা যথাসময়ে চিকিৎসা করাতে না পারার আক্ষেপের কথা জানিয়ে ভেঙে পড়েন। এদিকে চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন অফিস সূত্র জানায়, নগরীর নয়টি ল্যাবে ও অ্যান্টিজেন টেস্টে ২৪ ঘণ্টায় ৩ হাজার ৬৭৯ জনের নমুনা পরীক্ষায় আরও ১ হাজার ২৮৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। নতুন শনাক্তদের মধ্যে চট্টগ্রাম মহানগরে ৮৪৪ জন এবং ১৪ উপজেলায় ৪৪১ জন।

বগুড়া : জেলায় একদিনে আরও ১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এরমধ্যে করোনায় সাতজন ও উপসর্গে ছয়জন মারা গেছেন। এ সময়ে নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৮৭ জনের। এ নিয়ে জেলায় আক্রান্ত ১৯ হাজার ২৮৮ জন, মারা গেছেন ৬২০ জন। বর্তমানে হাসপাতাল ও বাড়িতে চিকিৎসাধীন এক হাজার ৩৬০ জন।

রাজশাহী : রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ২৪ ঘণ্টায় আরও ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী জানান, এদের মধ্যে চারজন করোনা পজিটিভ ছিলেন। আটজন মারা গেছেন করোনার উপসর্গ নিয়ে। আর দুজন করোনা নেগেটিভ ছিলেন। তারা শ্বাসকষ্টে মারা গেছেন। মৃতদের মধ্যে রাজশাহীর চারজন, নাটোরের চারজন, নওগাঁর তিনজন এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জ, চুয়াডাঙ্গা ও কুষ্টিয়ার একজন করে রোগী ছিলেন।

বরিশাল : বরিশাল বিভাগে ২৪ ঘণ্টায় আরও ১৬ জন মারা গেছেন। তাদের মধ্যে ৬ জন করোনায় এবং বাকিরা মারা গেছেন উপসর্গে। মৃতদের সবাই বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। এদিকে ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৭৭৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

ফরিদপুর : ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ডেডিকেটেড ইউনিটে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আটজন ও উপসর্গ নিয়ে ছয়জন মারা গেছেন। ৪৭০ জনের নমুনা পরীক্ষায় আরও ১৯১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। হাসপাতালের পরিচালক ডা. সাইফুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, বর্তমানে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন ৩৩৮ জন।

বরগুনা : জেলায় করোনায় আরও ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে, নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ৬৪ জন। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮৫ জনে।

খুলনা : খুলনা বিভাগে একদিনে করোনায় আরও ৩৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে শনাক্ত হয়েছে ৭৪৫ জন। বিভাগে সর্বোচ্চ ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে খুলনায়। বাকিদের মধ্যে যশোরে ৭ জন, কুষ্টিয়ায় ও চুয়াডাঙ্গায় ৬ জন করে; মাগুরা ও মেহেরপুরে ৩ জন করে; ঝিনাইদহে একজন মারা গেছেন। আগের দিন বিভাগে ৩১ জনের মৃত্যু ও ৯৪৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছিল।

নোয়াখালী : জেলায় ২৪ ঘণ্টায় ৭০৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ২২৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ৩২ দশমিক ২৯ শতাংশ। একই সময়ে করোনায় মারা গেছেন আরও তিনজন।

বিভিন্ন স্থানে উপসর্গে মৃত্যু ৩০ জনের

চট্টগ্রামে করোনায় মৃত্যু হাজার ছাড়াল

হাসপাতালে সাধারণ ও আইসিইউও সব ধরনের শয্যা সংকট * গেট বন্ধ রেখে ভর্তিতে অপারগতা
 যুগান্তর ডেস্ক 
০৫ আগস্ট ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

চট্টগ্রামে করোনায় মৃত্যু হাজার ছাড়িয়ে গেছে। বুধবার দুপুর পর্যন্ত এ জেলায় মৃত্যুর সংখ্যা ছিল ১ হাজার ২৮৫ জন। গেল ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ১৬ জন, নতুন করে আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন ১ হাজার ২৮৫ জন। এতে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮৬ হাজার ৪২৯ জনে। অক্সিজেন ও আইসিইউ প্রয়োজন এমন রোগীদের ভর্তির জন্য চট্টগ্রামের সরকারি হাসপাতালগুলোতে শয্যা সংকট দেখা দিয়েছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ রীতিমতো গেট বন্ধ রেখে রোগী ভর্তিতে অপারগতা জানাচ্ছে। মঙ্গলবার রাতে দুই হাসপাতাল ঘুরেও করোনা আক্রান্ত মাকে ভর্তি করাতে পারেননি পটিয়ার এক ব্যক্তি। পরে আরেক হাসপাতালে ভর্তি করতে পারলেও বুধবার সকালে তার মায়ের মৃত্যু হয়েছে।

এদিকে দেশের বিভিন্ন স্থানে করোনা উপসর্গে আরও ৩০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এরমধ্যে বরিশালে সর্বোচ্চ ১০ জন মারা গেছেন। এছাড়া রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৮ জন এবং বগুড়া ও ফরিদপুরে ছয়জন করে মারা গেছেন। ব্যুরো ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

চট্টগ্রাম : পটিয়া থেকে মঙ্গলবার গভীর রাতে এরশাদ নামে এক ব্যক্তি তার করোনা আক্রান্ত মাকে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে এসেছিলেন। তিনি যুগান্তরকে জানান, করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর তার মায়ের শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। নেমে যাচ্ছিল অক্সিজেন স্যাচুরেশন। এ অবস্থায় পটিয়ার হুলাইনের গ্রামের বাড়ি থেকে তাকে প্রথমে উপজেলা সদরের বেসরকারি জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে অক্সিজেন সাপোর্ট দিতে না পারায় নিয়ে আসা হয় চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে। কিন্তু জেনারেল হাসপাতালে আইসিইউ ও সাধারণ শয্যা খালি না থাকায় গভীর রাতে বন্ধ করে দেওয়া হয় হাসপাতালের গেট। ভর্তি করতে অপারগতা প্রকাশ করা হয়। এরশাদ জানান, এরপর তার মাকে নিয়ে তারা ছুটে যান চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। সেখানেও শয্যা না থাকায় প্রথমে ফ্লোরে পরে একটি শয্যায় ভর্তি করে অক্সিজেন সাপোর্ট দেওয়া হয়। কিন্তু বুধবার সকালেই তার মায়ের মৃত্যু হয়। রোগীর এ স্বজন তার মাকে নিয়ে হাসপাতালে সিট না পাওয়া বা যথাসময়ে চিকিৎসা করাতে না পারার আক্ষেপের কথা জানিয়ে ভেঙে পড়েন। এদিকে চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন অফিস সূত্র জানায়, নগরীর নয়টি ল্যাবে ও অ্যান্টিজেন টেস্টে ২৪ ঘণ্টায় ৩ হাজার ৬৭৯ জনের নমুনা পরীক্ষায় আরও ১ হাজার ২৮৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। নতুন শনাক্তদের মধ্যে চট্টগ্রাম মহানগরে ৮৪৪ জন এবং ১৪ উপজেলায় ৪৪১ জন।

বগুড়া : জেলায় একদিনে আরও ১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এরমধ্যে করোনায় সাতজন ও উপসর্গে ছয়জন মারা গেছেন। এ সময়ে নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৮৭ জনের। এ নিয়ে জেলায় আক্রান্ত ১৯ হাজার ২৮৮ জন, মারা গেছেন ৬২০ জন। বর্তমানে হাসপাতাল ও বাড়িতে চিকিৎসাধীন এক হাজার ৩৬০ জন।

রাজশাহী : রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ২৪ ঘণ্টায় আরও ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী জানান, এদের মধ্যে চারজন করোনা পজিটিভ ছিলেন। আটজন মারা গেছেন করোনার উপসর্গ নিয়ে। আর দুজন করোনা নেগেটিভ ছিলেন। তারা শ্বাসকষ্টে মারা গেছেন। মৃতদের মধ্যে রাজশাহীর চারজন, নাটোরের চারজন, নওগাঁর তিনজন এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জ, চুয়াডাঙ্গা ও কুষ্টিয়ার একজন করে রোগী ছিলেন।

বরিশাল : বরিশাল বিভাগে ২৪ ঘণ্টায় আরও ১৬ জন মারা গেছেন। তাদের মধ্যে ৬ জন করোনায় এবং বাকিরা মারা গেছেন উপসর্গে। মৃতদের সবাই বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। এদিকে ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৭৭৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

ফরিদপুর : ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ডেডিকেটেড ইউনিটে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আটজন ও উপসর্গ নিয়ে ছয়জন মারা গেছেন। ৪৭০ জনের নমুনা পরীক্ষায় আরও ১৯১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। হাসপাতালের পরিচালক ডা. সাইফুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, বর্তমানে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন ৩৩৮ জন।

বরগুনা : জেলায় করোনায় আরও ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে, নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ৬৪ জন। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮৫ জনে।

খুলনা : খুলনা বিভাগে একদিনে করোনায় আরও ৩৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে শনাক্ত হয়েছে ৭৪৫ জন। বিভাগে সর্বোচ্চ ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে খুলনায়। বাকিদের মধ্যে যশোরে ৭ জন, কুষ্টিয়ায় ও চুয়াডাঙ্গায় ৬ জন করে; মাগুরা ও মেহেরপুরে ৩ জন করে; ঝিনাইদহে একজন মারা গেছেন। আগের দিন বিভাগে ৩১ জনের মৃত্যু ও ৯৪৬ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছিল।

নোয়াখালী : জেলায় ২৪ ঘণ্টায় ৭০৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ২২৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ৩২ দশমিক ২৯ শতাংশ। একই সময়ে করোনায় মারা গেছেন আরও তিনজন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন