বিএনপির যৌথসভা

খালেদা জিয়া ছাড়া নির্বাচনে না যাওয়ার মত নেতাদের

আন্দোলন আরও জোরদারের পরামর্শ

  যুগান্তর রিপোর্ট ০৫ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে ছাড়া জাতীয় নির্বাচনে না যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা। একই সঙ্গে তারা বলেছেন, আইনি লড়াইয়ের মাধ্যমে খালেদা জিয়ার মুক্তি মিলবে না। তাই আন্দোলন আরও জোরদার করতে হবে। অনশন, জেলায় জেলায় গণমিছিল, ডিসি কার্যালয় ঘেরাওয়ের মতো কর্মসূচি দিতে হবে। প্রয়োজনে হরতাল দিতে হবে। শুক্রবার গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এক যৌথসভায় এসব কথা বলেন দলটির কেন্দ্রীয় নেতারা।

বিকাল ৪টায় দলের নির্বাহী কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান, যুগ্ম মহাসচিব, সাংগঠনিক সম্পাদক, সম্পাদক এবং চেয়ারপারসনের উপদেষ্টাদের নিয়ে যৌথ বৈঠকে বসে জাতীয় স্থায়ী কমিটি। প্রায় আড়াই ঘণ্টার এ বৈঠকে ৮ মে খালেদা জিয়ার জামিন শুনানির প্রস্তুতি, রমজানে দলের কর্মসূচি, দুই সিটি নির্বাচনসহ সামগ্রিক বিষয়ে মতামত দেন নেতারা। যৌথসভায় কোনো সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি। তবে নেতাদের বক্তব্য নোট করেছেন স্থায়ী কমিটির সদস্যরা। এ নিয়ে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেবেন। দু-এক দিনের মধ্যে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে আবারও কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

বৈঠক শেষে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাংবাদিকদের বলেন, সভায় বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি তারা পর্যালোচনা করেছেন। নেতারা আগামীতে করণীয় কী সে সম্পর্কে মতামত দিয়েছেন। আগামীতে বিএনপি ও গণতান্ত্রিক শক্তি গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের জন্য কীভাবে কাজ করতে পারে সে সম্পর্কে আলোচনা হয়েছে।

বিএনপির মহাসচিব আরও বলেন, সভায় নেতাদের বক্তব্যে বিশেষ করে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার অসুস্থতা ও তার মুক্তির বিষয়টি প্রাধান্য পেয়েছে। একই সঙ্গে খুলনা ও গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

সূত্র জানায়, দলের চেয়ারপারসন ছাড়া জাতীয় নির্বাচনে যাওয়া যাবে না বলে সব নেতাই একমত পোষণ করেন। একজন সাংগঠনিক সম্পাদক বলেন, আদালত সরকার নিয়ন্ত্রণ করছে। তাই আইনি লড়াইয়ের দিকে তাকিয়ে থাকলে হবে না। আইনিভাবে চেয়ারপারসনের মুক্তি মিলবে না। এ জন্য কঠোর আন্দোলন কর্মসূচি দিতে হবে। হরতালের মতো কর্মসূচি দিতে হবে। তবে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সর্বশেষ মানববন্ধন কর্মসূচি পালনের বিষয়ে হতাশা প্রকাশ করেন বৈঠকে উপস্থিত স্থায়ী কমিটির এক সিনিয়র সদস্য। তিনি বলেন, মানববন্ধন কর্মসূচি এক ঘণ্টা পালনের কথা থাকলেও নির্ধারিত সময়ের আগেই স্থান ত্যাগ করেন অনেক কেন্দ্রীয় নেতা। সিনিয়র নেতারা এ রকম কাজ করলে কর্মীরা কী করবে বলেও প্রশ্ন রাখেন তিনি। ভবিষ্যতে এ থেকে বিরত থাকতে কেন্দ্রীয় নেতাদের প্রতি আহ্বানও জানান ওই নেতা।

বৈঠকে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহজাহান বলেন, গাজীপুর ও খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিএনপির বিজয় ছিনিয়ে নিলে শক্ত অবস্থান নিতে হবে। এ ছাড়া রমজান মাসকে সাংগঠনিক মাস হিসেবে ঘোষণা দেয়ার কথাও বলেন তিনি। যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, খালেদা জিয়া ছাড়া কোনো নির্বাচন নয়। তার মুক্তি আন্দোলন আরও জোরদার করতে হবে। ৮ মে খালেদা জিয়ার জামিন শুনানির দিন দলের পক্ষ থেকে প্রস্তুতি নেয়ার কথা বলেছেন কেউ কেউ।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, মির্জা আব্বাস, ড. আবদুল মঈন খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী। আরও ছিলেন ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, আবদুল মান্নান, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, আলতাফ হোসেন চৌধুরী, বরকতউল্লাহ বুলু, মোহাম্মদ শাহজাহান, মীর নাসির, খন্দকার মাহবুব হোসেন, রুহুল আলম চৌধুরী, ইনাম আহমেদ চৌধুরী, আবদুল আউয়াল মিন্টু, শামসুজ্জামান দুদু, এজেডএম জাহিদ হোসেন, আহমেদ আজম খান, গিয়াস কাদের চৌধুরী, শওকত মাহমুদ, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমানউল্লাহ আমান, আবুল খায়ের ভুঁইয়া, আবদুল কাইয়ুম, হাবিবুর রহমান হাবিব, আতাউর রহমান ঢালী, আবদুল হাই শিকদার, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, হারুনুর রশীদ, সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, সাখাওয়াত হোসেন জীবন, মাহবুবে রহমান শামীম, বিলকিস জাহান শিরিন, শামা ওবায়েদ এবং সম্পাদকদের মধ্যে শহীদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, সানাউল্লাহ মিয়া, মাসুদ আহমেদ তালুকদার, শিরিন সুলতানা, মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, কামরুজ্জামান রতন, ব্যারিস্টার কায়সার কামাল, মীর সরফত আলী সপু, এবিএম মোশাররফ হোসেন, আমিনুল হক, সোহরাব উদ্দিন, ফাওয়াজ হোসেন শুভ প্রমুখ।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.