বিএনপির দুই তদন্ত কমিটি
jugantor
মন্দির মণ্ডপ বাড়িঘরে হামলা অগ্নিসংযোগ
বিএনপির দুই তদন্ত কমিটি

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৯ অক্টোবর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সারা দেশের বিভিন্ন স্থানে পূজামণ্ডপ, মন্দির, হিন্দুদের বাসাবাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলার ঘটনা তদন্তে দুটি কমিটি গঠন করেছে বিএনপি। সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজলের নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। এছাড়া উপদ্রুত এলাকাগুলোয় ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিদের সঙ্গে সহমর্মিতা প্রকাশের জন্য জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের নেতৃত্বে অরেকটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। দুই কমিটি দ্রুত উপদ্রুত এলাকাগুলো সফর শেষ করে কেন্দ্রে প্রতিবেদন দাখিল করবে। রোববার রাতে দলটির জাতীয় স্থায়ী কমিটির ভার্চুয়াল সভায় এই সিদ্ধান্ত হয়। সোমবার এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর জানান, সভা মনে করে বিরাজমান রাজনৈতিক সংকট থেকে জনগণের দৃষ্টি ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার জন্য সরকার নিজেই সাম্প্রদায়িক সংকট সৃষ্টি করছে। প্রতিটি ঘটনায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কার্যকরী ব্যবস্থা না নেওয়ায় পরিস্থিতি জটিলতর হয়েছে। ক্ষমতাসীনরা তাদের অবৈধ ক্ষমতা দীর্ঘস্থায়ী করার লক্ষ্যে বিভাজনের রাজনীতি করছে।

তিনি বলেন, সনাতন ধর্মের প্রধান ধর্মীয় উৎসব দুর্গাপূজার সময়ে কুমিল্লায় পবিত্র কুরআনের অবমাননা এবং পরবর্তী সময়ে শাসক শ্রেণির মদদপুষ্ট দুষ্কৃতকারীদের পূজামণ্ডপে আক্রমণ, ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। এরই ধারাবাহিকতায় চাঁদপুর, গাজীপুর, নোয়াখালীর চৌমহনী, চট্টগ্রাম, ঢাকায় পুলিশের নির্বিচারে গুলিবর্ষণ এবং নিরীহ পথচারী শিশুসহ কয়েকজনের মৃত্যুতে সভায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়। সভা মনে করে, ক্ষমতাসীনদের রাজনৈতিক দুরভিসন্ধির কারণেই এই রক্তপাত, লুটতরাজ চলছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, সভা সনাতন ধর্মের অনুসারীদের ধর্মীয় স্বাধীনতা নিশ্চিত করার আহ্বান জানায়। সব ধর্মে মানুষের জীবন ও সম্পত্তির নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণে সরকারের ব্যর্থতার সমালোচনা করা হয়। অবিলম্বে নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে দোষী ব্যক্তিদের চিহ্নিত করে বিচারের আওতায় আনার দাবি জানানো হয়। কোনো তদন্ত ছাড়াই বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে তাদেরকে বাড়ি-ঘরে পুলিশি তল্লাশি ও অভিযানের নিন্দা জানান নেতারা। প্রকৃত অপরাধীদের আড়াল করতে এ ধরনের অপকর্ম করা হচ্ছে বলে মনে করা হয়। সভায় দেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি অক্ষুণ্ন রাখার জন্য সব নাগরিককে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানানো হয়।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, স্থায়ী কমিটির সভায় ইন্টারনেটসহ ডিজিটাল সব মাধ্যম নিয়ন্ত্রণ করে রাজনৈতিক এজেন্ডা বাস্তবায়নে সরকার ক্ষমতার যে অপপ্রয়োগ চালাচ্ছে তার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়। জনগণের মৌলিক অধিকার, স্বাধীন মতপ্রকাশের অধিকার, সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা অক্ষুণ্ন রাখার আহ্বান জানান নেতারা। এ বিষয়ে পরবর্তী সময়ে কর্মসূচি গ্রহণের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

বিএনপি মহাসচিব দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার সর্বশেষ পরিস্থিতি সভাকে অবহিত করেন। আর সভায় কেন্দ্রীয় কার্যকরী পরিষদের সদস্যদের মতামত এবং পেশাজীবী সংগঠনগুলোর নেতাদের মতামতের সমন্বয়ে একটি সারমর্ম উপস্থাপনের জন্য মহাসচিবকে দায়িত্ব প্রদান করে।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান লন্ডন থেকে স্কাইপের মাধ্যমে সভায় সভাপতিত্ব করেন। মির্জা ফখরুল ছাড়াও সভায় অংশ নেন স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, সেলিমা রহমান ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু।

মন্দির মণ্ডপ বাড়িঘরে হামলা অগ্নিসংযোগ

বিএনপির দুই তদন্ত কমিটি

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৯ অক্টোবর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সারা দেশের বিভিন্ন স্থানে পূজামণ্ডপ, মন্দির, হিন্দুদের বাসাবাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলার ঘটনা তদন্তে দুটি কমিটি গঠন করেছে বিএনপি। সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজলের নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। এছাড়া উপদ্রুত এলাকাগুলোয় ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিদের সঙ্গে সহমর্মিতা প্রকাশের জন্য জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের নেতৃত্বে অরেকটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। দুই কমিটি দ্রুত উপদ্রুত এলাকাগুলো সফর শেষ করে কেন্দ্রে প্রতিবেদন দাখিল করবে। রোববার রাতে দলটির জাতীয় স্থায়ী কমিটির ভার্চুয়াল সভায় এই সিদ্ধান্ত হয়। সোমবার এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর জানান, সভা মনে করে বিরাজমান রাজনৈতিক সংকট থেকে জনগণের দৃষ্টি ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার জন্য সরকার নিজেই সাম্প্রদায়িক সংকট সৃষ্টি করছে। প্রতিটি ঘটনায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কার্যকরী ব্যবস্থা না নেওয়ায় পরিস্থিতি জটিলতর হয়েছে। ক্ষমতাসীনরা তাদের অবৈধ ক্ষমতা দীর্ঘস্থায়ী করার লক্ষ্যে বিভাজনের রাজনীতি করছে।

তিনি বলেন, সনাতন ধর্মের প্রধান ধর্মীয় উৎসব দুর্গাপূজার সময়ে কুমিল্লায় পবিত্র কুরআনের অবমাননা এবং পরবর্তী সময়ে শাসক শ্রেণির মদদপুষ্ট দুষ্কৃতকারীদের পূজামণ্ডপে আক্রমণ, ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। এরই ধারাবাহিকতায় চাঁদপুর, গাজীপুর, নোয়াখালীর চৌমহনী, চট্টগ্রাম, ঢাকায় পুলিশের নির্বিচারে গুলিবর্ষণ এবং নিরীহ পথচারী শিশুসহ কয়েকজনের মৃত্যুতে সভায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়। সভা মনে করে, ক্ষমতাসীনদের রাজনৈতিক দুরভিসন্ধির কারণেই এই রক্তপাত, লুটতরাজ চলছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, সভা সনাতন ধর্মের অনুসারীদের ধর্মীয় স্বাধীনতা নিশ্চিত করার আহ্বান জানায়। সব ধর্মে মানুষের জীবন ও সম্পত্তির নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণে সরকারের ব্যর্থতার সমালোচনা করা হয়। অবিলম্বে নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে দোষী ব্যক্তিদের চিহ্নিত করে বিচারের আওতায় আনার দাবি জানানো হয়। কোনো তদন্ত ছাড়াই বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে তাদেরকে বাড়ি-ঘরে পুলিশি তল্লাশি ও অভিযানের নিন্দা জানান নেতারা। প্রকৃত অপরাধীদের আড়াল করতে এ ধরনের অপকর্ম করা হচ্ছে বলে মনে করা হয়। সভায় দেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি অক্ষুণ্ন রাখার জন্য সব নাগরিককে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানানো হয়।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, স্থায়ী কমিটির সভায় ইন্টারনেটসহ ডিজিটাল সব মাধ্যম নিয়ন্ত্রণ করে রাজনৈতিক এজেন্ডা বাস্তবায়নে সরকার ক্ষমতার যে অপপ্রয়োগ চালাচ্ছে তার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়। জনগণের মৌলিক অধিকার, স্বাধীন মতপ্রকাশের অধিকার, সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা অক্ষুণ্ন রাখার আহ্বান জানান নেতারা। এ বিষয়ে পরবর্তী সময়ে কর্মসূচি গ্রহণের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

বিএনপি মহাসচিব দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার সর্বশেষ পরিস্থিতি সভাকে অবহিত করেন। আর সভায় কেন্দ্রীয় কার্যকরী পরিষদের সদস্যদের মতামত এবং পেশাজীবী সংগঠনগুলোর নেতাদের মতামতের সমন্বয়ে একটি সারমর্ম উপস্থাপনের জন্য মহাসচিবকে দায়িত্ব প্রদান করে।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান লন্ডন থেকে স্কাইপের মাধ্যমে সভায় সভাপতিত্ব করেন। মির্জা ফখরুল ছাড়াও সভায় অংশ নেন স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, সেলিমা রহমান ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন