বিশ্বে ফের কমল করোনার দৈনিক সংক্রমণ
jugantor
বিশ্বে ফের কমল করোনার দৈনিক সংক্রমণ

  যুগান্তর ডেস্ক  

১৮ জানুয়ারি ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বিশ্বে টানা ছয় দিন পর রোববার আবারও ২০ লাখের নিচে নামল করোনাভাইরাসের দৈনিক সংক্রমণ। ওমিক্রনের হানায় গেল বছরের শেষ দিকে হু-হু করে বাড়তে থাকে করোনা। চলতি বছরের শুরুতে তা ‘সুনামিতে’ রূপ নেয়। ৪ জানুয়ারি থেকে টানা পাঁচ দিন ২০ লাখের ওপরে ছিল দৈনিক সংক্রমণ। ৯ জানুয়ারি সংক্রমণ কমে ১৮ লাখে নামে। এরপর আবারও রুদ্রমূর্তি ধারণ করে করোনা। ছাড়িয়ে যায় বিশ লাখের ঘর। এমনকি ১৩ জানুয়ারি অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে দৈনিক সংক্রমণ সাড়ে ৩৩ লাখে পৌঁছে। করোনাভাইরাস ঠেকাতে দেশে দেশে টিকা প্রয়োগ জোরদার হয়েছে। তবে ভারতের সুপ্রিমকোর্ট বলেছে, টিকা প্রয়োগে কারও ওপর জোর করা যাবে না। খবর বিবিসি ও এএফপিসহ বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের।

ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্যানুযায়ী, সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় (রোববার) বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৯ লাখ ৪২ হাজার ১০৬ জন। এর মধ্যে ইউরোপের দেশগুলোয় ৭ লাখ ৯৩ হাজার রোগী শনাক্ত হয়েছে। আমেরিকা মহাদেশে প্রায় সাড়ে পাঁচ লাখ, এশিয়ায় পাঁচ লাখ ২৪ হাজার, আফ্রিকায় ১৭ হাজার ও ওশেনিয়ায় ৮৭ হাজার মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে বিশ্বে মোট করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ৩২ কোটি ৯০ লাখের বেশি, মোট মৃত্যু ৫৫ লাখ ৫৯ হাজার জনের। রোববার বিশ্বে সবচেয়ে বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে এদিন ২ লাখ ৮৭ হাজার মানুষের করোনা শনাক্ত হয়। এ সময়ে দেশটিতে মারা গেছেন ৩৪৬ জন। ফ্রান্সে একদিনে ২ লাখ ৭৮ হাজার রোগী শনাক্ত হয়েছে, এদিন দেশটিতে মারা গেছেন ৯১ জন। এছাড়া যুক্তরাজ্যে ৭০ হাজার, জার্মানিতে ৪৫ হাজার এবং ইতালিতে ১ লাখ ৪৯ হাজার করোনা শনাক্ত হয়েছে। এছাড়া ভারতে একদিনে ২ লাখ ৫৮ হাজার মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এদিন দেশটিতে মারা গেছেন ৩৮৮ জন।

‘কাউকে জোর করে টিকা দেওয়া যাবে না’ : কাউকে জোর করে টিকা দেওয়া যাবে না বলে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারকে নির্দেশনা দিয়েছেন দেশটির সুপ্রিমকোর্ট। এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় সরকার শীর্ষ আদালতে হলফনামা দিয়ে বলেছে, নাগরিকদের টিকা কার্ড দেখানো বাধ্যতামূলক বলে কোনো নির্দেশিকা জারি করা হয়নি। দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বলছে, জনগণকে টিকা নিতে বিভিন্ন প্রিন্ট এবং সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে যথাযথভাবে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

ভারতে ওমিক্রন ঠেকাতে আসছে আরএনএ টিকা : ভারতে তাণ্ডব চালাচ্ছে করোনাভাইরাসের ওমিক্রন ধরন। ওমিক্রন ঠেকাতে মেসেঞ্জার আরএনএ টিকাতেই বেশি ভরসা রাখা হচ্ছে। ভারতে প্রথম জেনোভা বায়োফার্মাসিউটিক্যালস আরএনএ প্রযুক্তিতে টিকা বানিয়েছে। ওমিক্রন শুধু নয়, করোনাভাইরাসের যে কোনো সংক্রামক প্রজাতিকে এই টিকা নিষ্ক্রিয় করতে পারবে বলে দাবি করা হচ্ছে।

সেরাম ইনস্টিটিউটের মতোই পুনের জনপ্রিয় টিকা প্রস্তুতকারক সংস্থা জেনোভা বায়োফার্মাসিউটিক্যালস। মার্কিন ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি এইচডিটি বায়োটেক করপোরেশনের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে টিকা বানিয়েছে জেনোভা। ল্যাবরেটরিতে এই টিকার প্রি-ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে সাফল্যের পর তিন পর্যায়ের ট্রায়ালের অনুমতি দেয় ওষুধ নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ।

করোনায় বিপর্যস্ত সৌদি আরব : সৌদি আরবে করোনায় আক্রান্তের হার দ্রুত বাড়ছে। চলতি বছরের শুরু থেকে আক্রান্তের সংখ্যা দ্বিগুণ হয়েছে। রোববার এক সংবাদ সম্মেলনে সৌদি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ডা. মোহাম্মদ আল-আবদ আল-আলাই বলেন, কোভিড-১৯ মোকাবিলায় আমাদের কঠিন পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যেতে হচ্ছে। লোকজনের করোনার পূর্ণ ডোজ ও বুস্টার নেওয়া দরকার বলেও মন্তব্য করেন তিনি। এছাড়া নাগরিকদের মাস্ক পরা, নিয়মিত হাত ধোয়া ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে আহ্বান জানিয়েছেন। রোববার সৌদি আরবে ৫ হাজার ৪৭৭ জনের করোনা পজিটিভ এসেছে। মারা গেছেন একজন।

বিশ্বে ফের কমল করোনার দৈনিক সংক্রমণ

 যুগান্তর ডেস্ক 
১৮ জানুয়ারি ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বিশ্বে টানা ছয় দিন পর রোববার আবারও ২০ লাখের নিচে নামল করোনাভাইরাসের দৈনিক সংক্রমণ। ওমিক্রনের হানায় গেল বছরের শেষ দিকে হু-হু করে বাড়তে থাকে করোনা। চলতি বছরের শুরুতে তা ‘সুনামিতে’ রূপ নেয়। ৪ জানুয়ারি থেকে টানা পাঁচ দিন ২০ লাখের ওপরে ছিল দৈনিক সংক্রমণ। ৯ জানুয়ারি সংক্রমণ কমে ১৮ লাখে নামে। এরপর আবারও রুদ্রমূর্তি ধারণ করে করোনা। ছাড়িয়ে যায় বিশ লাখের ঘর। এমনকি ১৩ জানুয়ারি অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে দৈনিক সংক্রমণ সাড়ে ৩৩ লাখে পৌঁছে। করোনাভাইরাস ঠেকাতে দেশে দেশে টিকা প্রয়োগ জোরদার হয়েছে। তবে ভারতের সুপ্রিমকোর্ট বলেছে, টিকা প্রয়োগে কারও ওপর জোর করা যাবে না। খবর বিবিসি ও এএফপিসহ বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের।

ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্যানুযায়ী, সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় (রোববার) বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৯ লাখ ৪২ হাজার ১০৬ জন। এর মধ্যে ইউরোপের দেশগুলোয় ৭ লাখ ৯৩ হাজার রোগী শনাক্ত হয়েছে। আমেরিকা মহাদেশে প্রায় সাড়ে পাঁচ লাখ, এশিয়ায় পাঁচ লাখ ২৪ হাজার, আফ্রিকায় ১৭ হাজার ও ওশেনিয়ায় ৮৭ হাজার মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে বিশ্বে মোট করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ৩২ কোটি ৯০ লাখের বেশি, মোট মৃত্যু ৫৫ লাখ ৫৯ হাজার জনের। রোববার বিশ্বে সবচেয়ে বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে এদিন ২ লাখ ৮৭ হাজার মানুষের করোনা শনাক্ত হয়। এ সময়ে দেশটিতে মারা গেছেন ৩৪৬ জন। ফ্রান্সে একদিনে ২ লাখ ৭৮ হাজার রোগী শনাক্ত হয়েছে, এদিন দেশটিতে মারা গেছেন ৯১ জন। এছাড়া যুক্তরাজ্যে ৭০ হাজার, জার্মানিতে ৪৫ হাজার এবং ইতালিতে ১ লাখ ৪৯ হাজার করোনা শনাক্ত হয়েছে। এছাড়া ভারতে একদিনে ২ লাখ ৫৮ হাজার মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এদিন দেশটিতে মারা গেছেন ৩৮৮ জন।

‘কাউকে জোর করে টিকা দেওয়া যাবে না’ : কাউকে জোর করে টিকা দেওয়া যাবে না বলে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারকে নির্দেশনা দিয়েছেন দেশটির সুপ্রিমকোর্ট। এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় সরকার শীর্ষ আদালতে হলফনামা দিয়ে বলেছে, নাগরিকদের টিকা কার্ড দেখানো বাধ্যতামূলক বলে কোনো নির্দেশিকা জারি করা হয়নি। দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বলছে, জনগণকে টিকা নিতে বিভিন্ন প্রিন্ট এবং সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে যথাযথভাবে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

ভারতে ওমিক্রন ঠেকাতে আসছে আরএনএ টিকা : ভারতে তাণ্ডব চালাচ্ছে করোনাভাইরাসের ওমিক্রন ধরন। ওমিক্রন ঠেকাতে মেসেঞ্জার আরএনএ টিকাতেই বেশি ভরসা রাখা হচ্ছে। ভারতে প্রথম জেনোভা বায়োফার্মাসিউটিক্যালস আরএনএ প্রযুক্তিতে টিকা বানিয়েছে। ওমিক্রন শুধু নয়, করোনাভাইরাসের যে কোনো সংক্রামক প্রজাতিকে এই টিকা নিষ্ক্রিয় করতে পারবে বলে দাবি করা হচ্ছে।

সেরাম ইনস্টিটিউটের মতোই পুনের জনপ্রিয় টিকা প্রস্তুতকারক সংস্থা জেনোভা বায়োফার্মাসিউটিক্যালস। মার্কিন ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি এইচডিটি বায়োটেক করপোরেশনের সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে টিকা বানিয়েছে জেনোভা। ল্যাবরেটরিতে এই টিকার প্রি-ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে সাফল্যের পর তিন পর্যায়ের ট্রায়ালের অনুমতি দেয় ওষুধ নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ।

করোনায় বিপর্যস্ত সৌদি আরব : সৌদি আরবে করোনায় আক্রান্তের হার দ্রুত বাড়ছে। চলতি বছরের শুরু থেকে আক্রান্তের সংখ্যা দ্বিগুণ হয়েছে। রোববার এক সংবাদ সম্মেলনে সৌদি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ডা. মোহাম্মদ আল-আবদ আল-আলাই বলেন, কোভিড-১৯ মোকাবিলায় আমাদের কঠিন পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যেতে হচ্ছে। লোকজনের করোনার পূর্ণ ডোজ ও বুস্টার নেওয়া দরকার বলেও মন্তব্য করেন তিনি। এছাড়া নাগরিকদের মাস্ক পরা, নিয়মিত হাত ধোয়া ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে আহ্বান জানিয়েছেন। রোববার সৌদি আরবে ৫ হাজার ৪৭৭ জনের করোনা পজিটিভ এসেছে। মারা গেছেন একজন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন