বিএনপির লবিস্ট নিয়োগের কপি যাচ্ছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকে: পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী
jugantor
বিএনপির লবিস্ট নিয়োগের কপি যাচ্ছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকে: পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৯ জানুয়ারি ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

‘বর্তমান সরকার ও দেশবিরোধী প্রচারণায়’ বিএনপি-জামায়াত যেসব লবিস্টের সঙ্গে চুক্তি করেছে, তার কপি বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নরের কাছে পাঠানো হচ্ছে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের বিরুদ্ধে প্রচার চালাতে বিদেশি লবিস্টের সঙ্গে বিএনপি-জামায়াতের করা চুক্তির কপি আজই (মঙ্গলবার) বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নরের কাছে পাঠাব।

প্রতিমন্ত্রী মঙ্গলবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে এ নিয়ে কথা বলছিলেন। শাহরিয়ার আলম এসময় বলেন, এই চুক্তি করতে বিদেশে যে অর্থ তারা পাঠিয়েছে, বাংলাদেশ ব্যাংকের তাতে অনুমোদন রয়েছে কিনা তা যাচাই করা হবে। এছাড়া প্রতিটি রাজনৈতিক দলকে আয়-ব্যয়ের হিসাব নির্বাচন কমিশনে দাখিল করতে হয়। নির্বাচন কমিশনে বিএনপি-জামায়াত এই অর্থের হিসাব দিয়েছে কিনা, কমিশনও নিশ্চয়ই খতিয়ে দেখবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বিএনপি-জামায়াত বিদেশি লবিস্ট নিয়োগে আটটি চুক্তি করেছে। এর মধ্যে তিনটি চুক্তি করেছে বিএনপি। এই তিন চুক্তিতে বিএনপি ৩.৭৫ মিলিয়ন ডলার ব্যয় করেছে। বিএনপি অফিসের ঠিকানাও চুক্তির কপিতে উল্লেখ করা হয়েছে। জামায়াতের চুক্তির কপিতে প্রতিষ্ঠানটির ঠিকানা দেওয়া নেই। তবে চুক্তির কপিতে তাদের নাম রয়েছে। শাহরিয়ার আলম জানান, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন লবিস্ট ফার্মের সঙ্গে তারা চুক্তি করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের আইনে এসব চুক্তির অনুমোদন রয়েছে। তবে এই চুক্তির অর্থ কীভাবে এলো, আমরা সে বিষয়ে খতিয়ে দেখার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি আহ্বান জানাই। এর আগে সোমবার জাতীয় সংসদ অধিবেশনে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বিএনপি-জামায়াতের লবিস্ট নিয়োগে অর্থ ব্যয়ের বিষয়টি তুলে ধরেন।

বিএনপির লবিস্ট নিয়োগের কপি যাচ্ছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকে: পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৯ জানুয়ারি ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

‘বর্তমান সরকার ও দেশবিরোধী প্রচারণায়’ বিএনপি-জামায়াত যেসব লবিস্টের সঙ্গে চুক্তি করেছে, তার কপি বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নরের কাছে পাঠানো হচ্ছে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের বিরুদ্ধে প্রচার চালাতে বিদেশি লবিস্টের সঙ্গে বিএনপি-জামায়াতের করা চুক্তির কপি আজই (মঙ্গলবার) বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নরের কাছে পাঠাব।

প্রতিমন্ত্রী মঙ্গলবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে এ নিয়ে কথা বলছিলেন। শাহরিয়ার আলম এসময় বলেন, এই চুক্তি করতে বিদেশে যে অর্থ তারা পাঠিয়েছে, বাংলাদেশ ব্যাংকের তাতে অনুমোদন রয়েছে কিনা তা যাচাই করা হবে। এছাড়া প্রতিটি রাজনৈতিক দলকে আয়-ব্যয়ের হিসাব নির্বাচন কমিশনে দাখিল করতে হয়। নির্বাচন কমিশনে বিএনপি-জামায়াত এই অর্থের হিসাব দিয়েছে কিনা, কমিশনও নিশ্চয়ই খতিয়ে দেখবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বিএনপি-জামায়াত বিদেশি লবিস্ট নিয়োগে আটটি চুক্তি করেছে। এর মধ্যে তিনটি চুক্তি করেছে বিএনপি। এই তিন চুক্তিতে বিএনপি ৩.৭৫ মিলিয়ন ডলার ব্যয় করেছে। বিএনপি অফিসের ঠিকানাও চুক্তির কপিতে উল্লেখ করা হয়েছে। জামায়াতের চুক্তির কপিতে প্রতিষ্ঠানটির ঠিকানা দেওয়া নেই। তবে চুক্তির কপিতে তাদের নাম রয়েছে। শাহরিয়ার আলম জানান, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন লবিস্ট ফার্মের সঙ্গে তারা চুক্তি করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের আইনে এসব চুক্তির অনুমোদন রয়েছে। তবে এই চুক্তির অর্থ কীভাবে এলো, আমরা সে বিষয়ে খতিয়ে দেখার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি আহ্বান জানাই। এর আগে সোমবার জাতীয় সংসদ অধিবেশনে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বিএনপি-জামায়াতের লবিস্ট নিয়োগে অর্থ ব্যয়ের বিষয়টি তুলে ধরেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন