অর্থনীতি স্থিতিশীল রাখতে বিলাসী পণ্য কম কিনতে হবে: ভোক্তা অধিদপ্তর
jugantor
অর্থনীতি স্থিতিশীল রাখতে বিলাসী পণ্য কম কিনতে হবে: ভোক্তা অধিদপ্তর

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২২ মে ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দেশের স্বার্থে এবং অর্থনীতি স্থিতিশীল রাখতে ক্রেতাদের বিলাসী পণ্য কম কেনার অনুরোধ করেছেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের পরিচালক মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার। এ সময় অতিরিক্ত পণ্য কেনা থেকে বিরত থাকাতে বলা হয়েছে। নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের বাজার নিয়ন্ত্রণ রাখতে শনিবার অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে রাজধানীর কাওরান বাজারের বিভিন্ন দোকানে অভিযান চালানো শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

অভিযান শেষে মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার সাংবাদিকদের আরও বলেন, অনেক ভোক্তা প্যানিক বায়িং করেন। ব্যবসায়ীরা বলেছেন, একজন ভোক্তা ৫ লিটারের ৪টি বোতল নিয়ে গেছেন। এটি যেন না হয়। আমাদের পরিমিতিবোধ বজায় রাখতে হবে। যেসব ফল আমদানি করতে হয়, সেগুলো কম খেয়ে আমরা দেশি ফল বেশি খেতে পারি। দেশে এখন আম, কাঁঠাল, লিচু আছে। আমরা আমাদের আচরণের মাধ্যমে সার্বিকভাবে দেশের অর্থনীতিকে স্থিতিশীল রাখতে পারি। এজন্য আমরা ব্যক্তিপর্যায়ে নিজ উদ্যোগে এটা শুরু করতে পারি।

সারা দেশে ভোক্তা অধিকারের কার্যক্রম নিবিড়ভাবে চলছে জানিয়ে তিনি বলেন, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের পর সব পণ্যের দাম বেড়েছে। আমদানি করা পণ্যের দাম বেড়েছে। জাহাজ ভাড়া বেড়েছে। এ কারণে অনেক পণ্যের দাম বেড়েছে। গুটিকয়েক অসাধু ব্যবসায়ী এটার সুযোগ নেওয়ার চেষ্টা করছে। রোজার আগে থেকে আমরা কাজ করছি। এখন বলতে পারি তেলের বাজার স্থিতিশীল আছে। আটা থেকে শুরু করে যেসব পণ্য আমদানি করতে হয়, সেগুলোর দাম বেড়েছে। কিন্তু পেঁয়াজের দাম বাড়তি দেখছি।

তিনি বলেন, এবার বাংলাদেশে পেঁয়াজের ফলন অনেক বেড়েছে। কৃষক যেন ন্যায্যমূল্য পান, সেজন্য সরকারের পক্ষ থেকে সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি আপাতত বন্ধ রয়েছে। তারপরও দাম বাড়ছে। তাই অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে ব্যবসায়ীদের বারবার বলছি, পাকা রসিদ দিতে হবে। পণ্যের মূল্যতালিকা ঝোলাতে হবে। পেঁয়াজের যারা বড় পাইকার, তারা আজও পাকা রসিদ দিচ্ছে না। এটা না দিলে কারসাজি করার সুযোগ থাকে। একদিনে দুই-তিন টাকা দাম বাড়িয়ে দিচ্ছে। সেজন্য আমরা জরিমানা করেছি। তিনি বলেন, জরিমানা করাই আমাদের মূল লক্ষ্য নয়। আমাদের লক্ষ্য ব্যবসায়ীদের মধ্যে শুদ্ধতা আনা। আমরা তাদের বারবার সচেতন করব। সংশোধনের উদ্যোগ নেব।

অর্থনীতি স্থিতিশীল রাখতে বিলাসী পণ্য কম কিনতে হবে: ভোক্তা অধিদপ্তর

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২২ মে ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দেশের স্বার্থে এবং অর্থনীতি স্থিতিশীল রাখতে ক্রেতাদের বিলাসী পণ্য কম কেনার অনুরোধ করেছেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের পরিচালক মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার। এ সময় অতিরিক্ত পণ্য কেনা থেকে বিরত থাকাতে বলা হয়েছে। নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের বাজার নিয়ন্ত্রণ রাখতে শনিবার অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে রাজধানীর কাওরান বাজারের বিভিন্ন দোকানে অভিযান চালানো শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

অভিযান শেষে মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার সাংবাদিকদের আরও বলেন, অনেক ভোক্তা প্যানিক বায়িং করেন। ব্যবসায়ীরা বলেছেন, একজন ভোক্তা ৫ লিটারের ৪টি বোতল নিয়ে গেছেন। এটি যেন না হয়। আমাদের পরিমিতিবোধ বজায় রাখতে হবে। যেসব ফল আমদানি করতে হয়, সেগুলো কম খেয়ে আমরা দেশি ফল বেশি খেতে পারি। দেশে এখন আম, কাঁঠাল, লিচু আছে। আমরা আমাদের আচরণের মাধ্যমে সার্বিকভাবে দেশের অর্থনীতিকে স্থিতিশীল রাখতে পারি। এজন্য আমরা ব্যক্তিপর্যায়ে নিজ উদ্যোগে এটা শুরু করতে পারি।

সারা দেশে ভোক্তা অধিকারের কার্যক্রম নিবিড়ভাবে চলছে জানিয়ে তিনি বলেন, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের পর সব পণ্যের দাম বেড়েছে। আমদানি করা পণ্যের দাম বেড়েছে। জাহাজ ভাড়া বেড়েছে। এ কারণে অনেক পণ্যের দাম বেড়েছে। গুটিকয়েক অসাধু ব্যবসায়ী এটার সুযোগ নেওয়ার চেষ্টা করছে। রোজার আগে থেকে আমরা কাজ করছি। এখন বলতে পারি তেলের বাজার স্থিতিশীল আছে। আটা থেকে শুরু করে যেসব পণ্য আমদানি করতে হয়, সেগুলোর দাম বেড়েছে। কিন্তু পেঁয়াজের দাম বাড়তি দেখছি।

তিনি বলেন, এবার বাংলাদেশে পেঁয়াজের ফলন অনেক বেড়েছে। কৃষক যেন ন্যায্যমূল্য পান, সেজন্য সরকারের পক্ষ থেকে সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি আপাতত বন্ধ রয়েছে। তারপরও দাম বাড়ছে। তাই অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে ব্যবসায়ীদের বারবার বলছি, পাকা রসিদ দিতে হবে। পণ্যের মূল্যতালিকা ঝোলাতে হবে। পেঁয়াজের যারা বড় পাইকার, তারা আজও পাকা রসিদ দিচ্ছে না। এটা না দিলে কারসাজি করার সুযোগ থাকে। একদিনে দুই-তিন টাকা দাম বাড়িয়ে দিচ্ছে। সেজন্য আমরা জরিমানা করেছি। তিনি বলেন, জরিমানা করাই আমাদের মূল লক্ষ্য নয়। আমাদের লক্ষ্য ব্যবসায়ীদের মধ্যে শুদ্ধতা আনা। আমরা তাদের বারবার সচেতন করব। সংশোধনের উদ্যোগ নেব।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন