রাসিক নির্বাচন থেকে বুলবুলের সরে দাঁড়ানোর ইঙ্গিত!

  রাজশাহী ব্যুরো ০২ জুন ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বর্তমান মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল
বর্তমান মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল

আসন্ন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন (রাসিক) নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করার ইঙ্গিত দিলেন বর্তমান মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল। বুলবুল নিজের প্রার্থিতা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন।

তিনি অভিযোগ করেছেন, এখন পর্যন্ত নির্বাচনের কোনো পরিবেশ নেই। এ অবস্থার উত্তরণ না ঘটলে তিনি নির্বাচন করবেন না।

নগর ভবনের সম্মেলন কক্ষে বৃহস্পতিবার বিকালে ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেট ঘোষণা শেষে উপস্থিত গণমাধ্যমকর্মীদের এ ধরনের কথা বলেন বুলবুল।

এ সময় বর্তমান মেয়র বলেন, কয়েক দিন আগে আমার ব্যানার সরিয়ে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর ব্যানার টাঙানো হলো। এর প্রতিবাদে আমি রাস্তায় বসলাম। কিন্তু অবস্থার উন্নতি হয়নি।

এর পরেও আমার ৮০টি ফেস্টুন তুলে ফেলা হয়েছে। সেখানে নির্বাচনের প্রার্থী সাবেক মেয়রের (আওয়ামী লীগ প্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন) ফেস্টুন শোভা পাচ্ছে।

বুলবুল বলেন, রাজশাহীতে সব দলের যে সম্প্রীতি দীর্ঘদিন ধরে রয়েছে; আওয়ামী লীগ সেই জায়গায় আঘাত করেছে। এ রকম একটি পরিবেশ সৃষ্টি করে আগামীতে যে নির্বাচন হবে; তাতে আমি দাঁড়াব কী দাঁড়াব না- তা নিয়ে সংশয় রয়েছে।

ভোটে যদি আমি ভোটারদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পারি, তাহলেই দাঁড়াব। তা না হলে আপনাদের (সাংবাদিকদের) সঙ্গে ক্যামেরা নিয়ে ছবি তুলে বেড়াব।

বুলবুল নির্বাচিত হওয়ার পর সরকার মেয়রদের প্রতিমন্ত্রীর মর্যাদা বাতিল করে। ক্ষুব্ধ হয়ে বুলবুল ওই দিন বলেছিলেন, প্রতিমন্ত্রীর মর্যাদা ও জাতীয় পতাকা ছাড়া গাড়ি নেব না। এরপর ১৯ মাস তিনি রাসিকের গাড়িতে ওঠেননি।

এ প্রসঙ্গ তুলে ধরে বুলবুল বলেন, ১৯ মাস আমি সিটি কর্পোরেশনের গাড়ি ব্যবহার করিনি। অটোরিকশা কিংবা মোটরসাইকেলে চড়ে অফিসে এসেছি।

আমি এর প্রতিবাদ করেছি। কিন্তু সহকর্মীদের অনুরোধে অবশেষে গাড়ি নিয়েছি। সে গাড়িতে শুধু অফিসে এসেছি। পরিবারের কেউ ব্যবহার করেনি।

শুধু রাজনৈতিক কারণে সরকার আমার প্রতি অবিচার করেছে। রাজশাহীবাসীকে অসম্মান করেছে।

মেয়র বলেন, নির্বাচিত হওয়ার পর একটি প্রস্তাবিত বাজেট ও একটি সম্পূরক বাজেট ঘোষণা করেছি। এরপর ক্ষমতার বাইরে ২২ মাস।

সব মিলিয়ে দায়িত্বে আছি ২৭ মাস। এই সময়ের মধ্যে নিজের সবটুকু চেষ্টা দিয়েই কাজ করেছি। আগামী নির্বাচনে প্রার্থী হলে এসব বিচারের দায়িত্ব নগরবাসীর।

রাজশাহীসহ দেশের তিন সিটির নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হয়েছে মঙ্গলবার। এই তফসিল ১৩ জুন কার্যকর হবে। ভোট হবে ৩০ জুলাই। এর আগে ২০১৩ সালের ১৫ জুন অনুষ্ঠিত হয় রাসিক নির্বাচন।

ওই নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনকে পরাজিত করেন রাজশাহী মহানগর বিএনপির বর্তমান সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল। আগামী ৫ অক্টোবর তার মেয়াদ শেষ হবে। তবে আসন্ন নির্বাচনে অংশ নিতে হলে তাকে আগেই পদত্যাগ করতে হবে।

ঘটনাপ্রবাহ : রাজশাহী-বরিশাল-সিলেট সিটি নির্বাচন ২০১৮

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter