দুই হাজার ছাড়াল দৈনিক করোনা রোগী শনাক্ত
jugantor
দুই হাজার ছাড়াল দৈনিক করোনা রোগী শনাক্ত
দুজনের মৃত্যু

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২৮ জুন ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত রোগী দুই হাজার ছাড়িয়ে গেছে। এ সময় দুই হাজার ১০১ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে। এর আগে সর্বশেষ ১৯ ফেব্রুয়ারি এক দিনে এর চেয়ে বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছিল। সেদিন দুই হাজার ১৫০ জনের করোনা শনাক্তের কথা জানিয়েছিল স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এ হিসাবে ১৮ সপ্তাহ পর দৈনিক শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ফের দুই হাজার ছাড়িয়ে গেল। এ নিয়ে দেশে মোট করোনা রোগীর সংখ্যা বেড়ে ১৯ লাখ ৬৭ হাজার ২৭৪ জন হয়েছে। এছাড়া গত এক দিনে ভাইরাসটিতে আরও দুজনের মৃত্যু হয়েছে। ফলে করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৯ হাজার ১৪২ জন। সোমবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, রোববার সকাল থেকে সোমবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশ থেকে ১৩ হাজার ৯২০টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। এরপর ১৩ হাজার ৮২০টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এ নিয়ে মোট নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে এক কোটি ৪৩ লাখ পাঁচ হাজার ৮৭৯টি। সর্বশেষ নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার দাঁড়িয়েছে ১৫ দশমিক ২ শতাংশ। আগের দিন রোববার এই হার ছিল ১৫ দশমিক ৬৬ শতাংশ। এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৭৫ শতাংশ। তবে গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন আরও ১৭৯ জন করোনা রোগী। তাদের নিয়ে ১৯ লাখ ছয় হাজার ৮৬৭ জন সেরে উঠলেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, গত ২০ থেকে ২৬ জুন দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আট হাজার ৮৪৬ জন রোগী শনাক্ত হয়েছে, মৃত্যু হয়েছে ৯ জনের। আগের সপ্তাহে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ছিল দুই হাজার ২১২ জন, কারও মৃত্যুর খবর সে সময় আসেনি। এই হিসাবে এক সপ্তাহে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েছে ৩০০ শতাংশ; আর মৃত্যু বেড়েছে ৯০০ শতাংশ। বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়েছিল ২০২০ সালের ৮ মার্চ। ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের ব্যাপক বিস্তারের মধ্যে গত বছরের ২৮ জুলাই দেশে রেকর্ড ১৬ হাজার ২৩০ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়।

প্রথম রোগী শনাক্তের ১০ দিন পর ২০২০ সালের ১৮ মার্চ দেশে প্রথম মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। ২০২১ সালের ৫ আগস্ট ও ১০ আগস্ট ২৬৪ জন করে মৃত্যুর খবর আসে, যা মহামারীর মধ্যে এক দিনে সর্বোচ্চ সংখ্যা। বিশ্বে করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত মারা গেছে ৬৩ লাখ ২৯ হাজারের বেশি মানুষ। বিশ্বজুড়ে আক্রান্ত ছাড়িয়েছে ৫৪ কোটি ৩৬ লাখ।

জনস্বাস্থ্যবিদরা যুগান্তরকে বলেছেন, বর্তমানে করোনা সংক্রমণের চতুর্থ ঢেউ চলছে দেশে। এখনই মাস্ক পরা, ঘন ঘন সাবান পানি দিয়ে হাত ধোয়ার অভ্যাস, সামাজিক দূরত্ব মেনে চলা ও দ্রুত টিকা নিতে হবে। স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন না মানলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যেতে পারে।

দুই হাজার ছাড়াল দৈনিক করোনা রোগী শনাক্ত

দুজনের মৃত্যু
 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২৮ জুন ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত রোগী দুই হাজার ছাড়িয়ে গেছে। এ সময় দুই হাজার ১০১ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে। এর আগে সর্বশেষ ১৯ ফেব্রুয়ারি এক দিনে এর চেয়ে বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছিল। সেদিন দুই হাজার ১৫০ জনের করোনা শনাক্তের কথা জানিয়েছিল স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এ হিসাবে ১৮ সপ্তাহ পর দৈনিক শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ফের দুই হাজার ছাড়িয়ে গেল। এ নিয়ে দেশে মোট করোনা রোগীর সংখ্যা বেড়ে ১৯ লাখ ৬৭ হাজার ২৭৪ জন হয়েছে। এছাড়া গত এক দিনে ভাইরাসটিতে আরও দুজনের মৃত্যু হয়েছে। ফলে করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৯ হাজার ১৪২ জন। সোমবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, রোববার সকাল থেকে সোমবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশ থেকে ১৩ হাজার ৯২০টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। এরপর ১৩ হাজার ৮২০টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এ নিয়ে মোট নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে এক কোটি ৪৩ লাখ পাঁচ হাজার ৮৭৯টি। সর্বশেষ নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার দাঁড়িয়েছে ১৫ দশমিক ২ শতাংশ। আগের দিন রোববার এই হার ছিল ১৫ দশমিক ৬৬ শতাংশ। এ পর্যন্ত মোট শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৭৫ শতাংশ। তবে গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন আরও ১৭৯ জন করোনা রোগী। তাদের নিয়ে ১৯ লাখ ছয় হাজার ৮৬৭ জন সেরে উঠলেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, গত ২০ থেকে ২৬ জুন দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আট হাজার ৮৪৬ জন রোগী শনাক্ত হয়েছে, মৃত্যু হয়েছে ৯ জনের। আগের সপ্তাহে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ছিল দুই হাজার ২১২ জন, কারও মৃত্যুর খবর সে সময় আসেনি। এই হিসাবে এক সপ্তাহে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েছে ৩০০ শতাংশ; আর মৃত্যু বেড়েছে ৯০০ শতাংশ। বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়েছিল ২০২০ সালের ৮ মার্চ। ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের ব্যাপক বিস্তারের মধ্যে গত বছরের ২৮ জুলাই দেশে রেকর্ড ১৬ হাজার ২৩০ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়।

প্রথম রোগী শনাক্তের ১০ দিন পর ২০২০ সালের ১৮ মার্চ দেশে প্রথম মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। ২০২১ সালের ৫ আগস্ট ও ১০ আগস্ট ২৬৪ জন করে মৃত্যুর খবর আসে, যা মহামারীর মধ্যে এক দিনে সর্বোচ্চ সংখ্যা। বিশ্বে করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত মারা গেছে ৬৩ লাখ ২৯ হাজারের বেশি মানুষ। বিশ্বজুড়ে আক্রান্ত ছাড়িয়েছে ৫৪ কোটি ৩৬ লাখ।

জনস্বাস্থ্যবিদরা যুগান্তরকে বলেছেন, বর্তমানে করোনা সংক্রমণের চতুর্থ ঢেউ চলছে দেশে। এখনই মাস্ক পরা, ঘন ঘন সাবান পানি দিয়ে হাত ধোয়ার অভ্যাস, সামাজিক দূরত্ব মেনে চলা ও দ্রুত টিকা নিতে হবে। স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন না মানলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যেতে পারে।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন