বিরোধী দল দমনে আরও হিংস্ররূপে সরকার: মির্জা ফখরুল
jugantor
বিরোধী দল দমনে আরও হিংস্ররূপে সরকার: মির্জা ফখরুল

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২৯ জুন ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আওয়ামী দুঃশাসন টিকিয়ে রাখতে সরকার বিরোধী দল ও মতকে দমনে এখন আরও হিংস্র রূপ ধারণ করেছে। স্বৈরাচারী সরকারের ভয়াবহ দুঃশাসনের জাঁতাকলে দেশের মানুষ সর্বদা পিষ্ট হচ্ছে। অজানা আতঙ্ক আর ভয়াল পরিবেশ মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাপনকে করে তুলেছে বিপর্যস্ত। মঙ্গলবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল অভিযোগ করেন, পুলিশের গুলিতে পঙ্গুত্ব বরণকারী চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সহ-সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম সাইফ সোমবার চট্টগ্রাম আদালতে হাজিরা দিতে যান। সেখান থেকে পাঁচলাইশ থানা পুলিশ তাকে তুলে নিয়ে যায়; কিন্তু এখন পর্যন্ত সম্ভাব্য সব স্থানে খোঁজ নিয়েও তার কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি।

এ ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, সবার কাছে দৃশ্যমান যে, সাইফুল ইসলাম সাইফকে পাঁচলাইশ থানা পুলিশ তুলে নিয়ে যায়। সে পুলিশের কাছেই আছে। তাকে এভাবে নিখোঁজ করে রাখায় দলের সব পর্যায়ের নেতাকর্মী ও তার পরিবার গভীরভাবে উদ্বিগ্ন।

তিনি আরও বলেন, এই ঘটনা আতঙ্কজনক। এভাবে আটক ও গুম করে রাখা নির্মম মনুষ্যত্বহীনতা এবং ভয়ানক অশুভ সংকেত। এর আগেও তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে পুলিশ উঠিয়ে নিয়ে গিয়ে পায়ে অস্ত্র ঠেকিয়ে দুই রাউন্ড গুলি করে। তাতে সাইফুল ইসলাম চিরতরে পঙ্গু হয়ে যায়। আবারও তাকে একই কায়দায় আটক এবং তার কোনো সন্ধান না পাওয়া গভীর উদ্বেগজনক। এদিকে সাইফুল ইসলাম সাইফের সন্ধান এবং জনসম্মুখে হাজিরের দাবি জানিয়েছে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল। মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে সংগঠনটির কেন্দ্রীয় সভাপতি কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণ ও সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল বলেন, দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ ছাত্রদলের আদর্শিক রাজনীতির প্রতি সরকার ও তার পেটোয়া বাহিনীর এলার্জি দিনদিন বেড়েই চলেছে। যে সাইফুলকে তারা কিছুদিন আগে গুলি করে পঙ্গু বানিয়েছে, তাকে এখন আবারও গুম করে চিরতরে গায়েব করে দেওয়ার পাঁয়তারায় লিপ্ত হয়েছে।

দেশ এখন সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্য : এদিকে আরেক বিবৃতিতে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, দেশে আইনের শাসন নেই। দেশ এখন সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্য। আইনের শাসনের অনুপস্থিতি এবং সাজা পাওয়ার পরও সরকারের আনুকূল্যে পার পেয়ে যাচ্ছে বলেই সন্ত্রাসীরা বীরদর্পে দেশব্যাপী বিরোধী দলসহ প্রতিবাদী মানুষের রক্তে হাত রঞ্জিত করতে আরও উৎসাহিত হচ্ছে।

বিবৃতিতে বিএনপি মহাসচিব অভিযোগ করেন, ময়মনসিংহের পাগলা থানার পাঁচবাগে ছাত্রলীগের চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা থানা যুবদল নেতা তৌহিদুল ইসলাম এখলাসের ওপর হামলা চালিয়ে তার হাত ভেঙে দেয়। যুবদল নেতা শাকিল আহমেদ সজলকে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করে। তাদের মোটরসাইকেলও ভেঙে গুঁড়িয়ে দেয়।

এ ঘটনার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা এ হামলা করেছে।

বিরোধী দল দমনে আরও হিংস্ররূপে সরকার: মির্জা ফখরুল

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২৯ জুন ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আওয়ামী দুঃশাসন টিকিয়ে রাখতে সরকার বিরোধী দল ও মতকে দমনে এখন আরও হিংস্র রূপ ধারণ করেছে। স্বৈরাচারী সরকারের ভয়াবহ দুঃশাসনের জাঁতাকলে দেশের মানুষ সর্বদা পিষ্ট হচ্ছে। অজানা আতঙ্ক আর ভয়াল পরিবেশ মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাপনকে করে তুলেছে বিপর্যস্ত। মঙ্গলবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল অভিযোগ করেন, পুলিশের গুলিতে পঙ্গুত্ব বরণকারী চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সহ-সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম সাইফ সোমবার চট্টগ্রাম আদালতে হাজিরা দিতে যান। সেখান থেকে পাঁচলাইশ থানা পুলিশ তাকে তুলে নিয়ে যায়; কিন্তু এখন পর্যন্ত সম্ভাব্য সব স্থানে খোঁজ নিয়েও তার কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি।

এ ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, সবার কাছে দৃশ্যমান যে, সাইফুল ইসলাম সাইফকে পাঁচলাইশ থানা পুলিশ তুলে নিয়ে যায়। সে পুলিশের কাছেই আছে। তাকে এভাবে নিখোঁজ করে রাখায় দলের সব পর্যায়ের নেতাকর্মী ও তার পরিবার গভীরভাবে উদ্বিগ্ন।

তিনি আরও বলেন, এই ঘটনা আতঙ্কজনক। এভাবে আটক ও গুম করে রাখা নির্মম মনুষ্যত্বহীনতা এবং ভয়ানক অশুভ সংকেত। এর আগেও তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে পুলিশ উঠিয়ে নিয়ে গিয়ে পায়ে অস্ত্র ঠেকিয়ে দুই রাউন্ড গুলি করে। তাতে সাইফুল ইসলাম চিরতরে পঙ্গু হয়ে যায়। আবারও তাকে একই কায়দায় আটক এবং তার কোনো সন্ধান না পাওয়া গভীর উদ্বেগজনক। এদিকে সাইফুল ইসলাম সাইফের সন্ধান এবং জনসম্মুখে হাজিরের দাবি জানিয়েছে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল। মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে সংগঠনটির কেন্দ্রীয় সভাপতি কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণ ও সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল বলেন, দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ ছাত্রদলের আদর্শিক রাজনীতির প্রতি সরকার ও তার পেটোয়া বাহিনীর এলার্জি দিনদিন বেড়েই চলেছে। যে সাইফুলকে তারা কিছুদিন আগে গুলি করে পঙ্গু বানিয়েছে, তাকে এখন আবারও গুম করে চিরতরে গায়েব করে দেওয়ার পাঁয়তারায় লিপ্ত হয়েছে।

দেশ এখন সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্য : এদিকে আরেক বিবৃতিতে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, দেশে আইনের শাসন নেই। দেশ এখন সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্য। আইনের শাসনের অনুপস্থিতি এবং সাজা পাওয়ার পরও সরকারের আনুকূল্যে পার পেয়ে যাচ্ছে বলেই সন্ত্রাসীরা বীরদর্পে দেশব্যাপী বিরোধী দলসহ প্রতিবাদী মানুষের রক্তে হাত রঞ্জিত করতে আরও উৎসাহিত হচ্ছে।

বিবৃতিতে বিএনপি মহাসচিব অভিযোগ করেন, ময়মনসিংহের পাগলা থানার পাঁচবাগে ছাত্রলীগের চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা থানা যুবদল নেতা তৌহিদুল ইসলাম এখলাসের ওপর হামলা চালিয়ে তার হাত ভেঙে দেয়। যুবদল নেতা শাকিল আহমেদ সজলকে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করে। তাদের মোটরসাইকেলও ভেঙে গুঁড়িয়ে দেয়।

এ ঘটনার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা এ হামলা করেছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন