রাঙ্গাবালীতে আ.লীগ ও শ্রমিক লীগের সংঘর্ষে আহত ১০
jugantor
খাল নিয়ে বিরোধ
রাঙ্গাবালীতে আ.লীগ ও শ্রমিক লীগের সংঘর্ষে আহত ১০

  রাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি  

০২ জুলাই ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালীতে আওয়ামী লীগ ও শ্রমিক লীগের সংঘর্ষে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়নের নয়াভাঙ্গুনী খাল দখল নিয়ে এই সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনায় ছয়জনকে আটক করা হয়েছে।

জানা যায়, দুই বছর ধরে নয়াভাঙ্গুনী খালটি উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি রওশন মৃধার লোকজনের ভোগদখলে রয়েছে। তাদের দাবি জেলা প্রশাসন থেকে খালটি তিন বছরের জন্য তরা ইজারা নিয়েছেন। আরও এক বছর তাদের মেয়াদ আছে। কিন্তু কিছুদিন ধরে উপজেলার ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি কামরুজ্জামান শিবলীর লোকজন খালটি দখল করে মাছ ধরার চেষ্টা করছিল। এ নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে।

প্রত্যক্ষদর্শী কয়েকজন জানান, শ্রমিক লীগ নেতা রওশন ও আওয়ামী লীগ নেতা শিবলীর লোকজনের মধ্যে এক ঘণ্টাব্যাপী সংঘর্ষে দুই পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে পাঁচজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য পটুয়াখালী নেওয়া হয়েছে।

উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি রওশন মৃধা বলেন, তিন বছরের জন্য খালটি লিজ (ইজারা) নিয়েছি। এখনো এক বছর বাকি। কিন্তু ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শিবলীর লোকজন খালটি দখলের জন্য লাঠিসোঁটা নিয়ে শ্রমিক লীগের নেতাকর্মীদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। এতে আমাদের বেশ কয়েজন আহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে রনি মুন্সী, মিরাজ মুন্সি, রেজাউল মৃধা, রুমান মাতুব্বর ও কলি বেগমকে চিকিৎসার জন্য পটুয়াখালী পাঠানো হয়েছে।’ এ প্রসঙ্গে কামরুজ্জামান শিবলী বলেন, ‘আমি অসুস্থ। চিকিৎসার জন্য ঢাকায় আছি। শুনেছি নয়াভাঙ্গুনিতে ঝামেলা হয়েছে। এখন এ বিষয়ে কিছুই বলতে পারছি না।’

এ ব্যাপারে রাঙ্গাবালী থানার ওসি নুরুল ইসলাম মজুমদার বলেন, সংঘর্ষে জড়িত ছয়জনকে আটক করা হয়েছে। এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

খাল নিয়ে বিরোধ

রাঙ্গাবালীতে আ.লীগ ও শ্রমিক লীগের সংঘর্ষে আহত ১০

 রাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি 
০২ জুলাই ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালীতে আওয়ামী লীগ ও শ্রমিক লীগের সংঘর্ষে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়নের নয়াভাঙ্গুনী খাল দখল নিয়ে এই সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনায় ছয়জনকে আটক করা হয়েছে।

জানা যায়, দুই বছর ধরে নয়াভাঙ্গুনী খালটি উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি রওশন মৃধার লোকজনের ভোগদখলে রয়েছে। তাদের দাবি জেলা প্রশাসন থেকে খালটি তিন বছরের জন্য তরা ইজারা নিয়েছেন। আরও এক বছর তাদের মেয়াদ আছে। কিন্তু কিছুদিন ধরে উপজেলার ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি কামরুজ্জামান শিবলীর লোকজন খালটি দখল করে মাছ ধরার চেষ্টা করছিল। এ নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে।

প্রত্যক্ষদর্শী কয়েকজন জানান, শ্রমিক লীগ নেতা রওশন ও আওয়ামী লীগ নেতা শিবলীর লোকজনের মধ্যে এক ঘণ্টাব্যাপী সংঘর্ষে দুই পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে পাঁচজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য পটুয়াখালী নেওয়া হয়েছে।

উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি রওশন মৃধা বলেন, তিন বছরের জন্য খালটি লিজ (ইজারা) নিয়েছি। এখনো এক বছর বাকি। কিন্তু ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শিবলীর লোকজন খালটি দখলের জন্য লাঠিসোঁটা নিয়ে শ্রমিক লীগের নেতাকর্মীদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। এতে আমাদের বেশ কয়েজন আহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে রনি মুন্সী, মিরাজ মুন্সি, রেজাউল মৃধা, রুমান মাতুব্বর ও কলি বেগমকে চিকিৎসার জন্য পটুয়াখালী পাঠানো হয়েছে।’ এ প্রসঙ্গে কামরুজ্জামান শিবলী বলেন, ‘আমি অসুস্থ। চিকিৎসার জন্য ঢাকায় আছি। শুনেছি নয়াভাঙ্গুনিতে ঝামেলা হয়েছে। এখন এ বিষয়ে কিছুই বলতে পারছি না।’

এ ব্যাপারে রাঙ্গাবালী থানার ওসি নুরুল ইসলাম মজুমদার বলেন, সংঘর্ষে জড়িত ছয়জনকে আটক করা হয়েছে। এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন