জুলাইয়ে সড়কে প্রাণহানি বেড়েছে ৩৬ শতাংশ
jugantor
রোড সেফটি ফাউন্ডেশনের তথ্য
জুলাইয়ে সড়কে প্রাণহানি বেড়েছে ৩৬ শতাংশ
৬৩২ দুর্ঘটনায় ৭৩৯ জন নিহত হয়েছেন

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

০৭ আগস্ট ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

আগের মাসের চেয়ে জুলাইয়ে সড়ক দুর্ঘটনা প্রায় ৩১ শতাংশ ও প্রাণহানি ৩৬ দশমিক ৪৮ শতাংশ বেড়েছে। এ মাসে দেশে সড়ক দুর্ঘটনা ঘটেছে ৬৩২টি। এতে নিহত হন ৭৩৯ জন এবং আহত হন ২০৪২ জন। নিহতের মধ্যে নারী ১০৫ জন ও শিশু ১০৯ জন। রোড সেফটি ফাউন্ডেশনের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এতে উল্লেখ করা হয়েছে, এর আগে জুন মাসে প্রতিদিন গড়ে ১৫.৫৬টি দুর্ঘটনায় ১৭ দশমিক ৪৬ জন নিহত হয়েছিল। জুলাই মাসে প্রতিদিন গড়ে নিহত হয়েছে ২৩.৮৩ জন, অর্থাৎ ২৪ জন। এই হিসাবে জুলাই মাসে দুর্ঘটনা বেড়েছে ৩০ দশমিক ৯৭ শতাংশ এবং প্রাণহানি বেড়েছে ৩৬ দশমিক ৪৮ শতাংশ।

শনিবার জুলাই মাসের প্রতিবেদন গণমাধ্যমে পাঠায় রোড সেফটি ফাউন্ডেশন। বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদের ভিত্তিতে দুর্ঘটনা সংক্রান্ত এ প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে বলে এতে জানানো হয়। প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, জুলাই মাসে দুর্ঘটনায় নিহত ৭৩৯ জনের মধ্যে ৫৮১ জনের বয়স ১৮ থেকে ৬৫ বছর। অর্থাৎ নিহতদের ৭৮.৬১ শতাংশ কর্মক্ষম মানুষ। সবচেয়ে বেশি মানুষ মারা গেছেন মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায়। ওই মাসে ২৯৮টি মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় নিহত ২৫১ জন, যা মোট নিহতের ৩৩.৯৬ শতাংশ। মোটরসাইকেল দুর্ঘটনার হার ৪৭.১৫ শতাংশ। এছাড়া দুর্ঘটনায় ১১৮ জন পথচারী নিহত হয়েছে, যা মোট নিহতের ১৫.৯৬ শতাংশ। যানবাহনের চালক ও সহকারী নিহত হয়েছেন ১৩৭ জন, অর্থাৎ ১৮.৫৩ শতাংশ। একই সময়ে ১৪টি নৌ-দুর্ঘটনায় ১৮ জন নিহত এবং ৭ জন নিখোঁজ রয়েছেন। ২৬টি রেলপথ দুর্ঘটনায় (রেলক্রসিং দুর্ঘটনাসহ) ৪১ জন নিহত এবং ৩৩ জন আহত হয়েছেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ঢাকা বিভাগে সবচেয়ে বেশি ১৯৯টি দুর্ঘটনায় ২২৮ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। সিলেট বিভাগে সবচেয়ে কম ৩১টি দুর্ঘটনা ঘটেছে। রাজধানী ঢাকায় ৪১টি দুর্ঘটনায় ২৯ জন নিহত ও ৫৮ জন আহত হয়েছে। দুর্ঘটনার জন্য বেপরোয়া গতি, ত্রুটিপূর্ণ যানবাহন, চালকদের বেপরোয়া মানসিকতা ও অদক্ষতাসহ ১০টি কারণ চিহ্নিত করা হয়েছে। দুর্ঘটনা রোধে ‘সড়ক পরিবহণ আইন-২০১৮’ বাধাহীনভাবে বাস্তবায়নসহ ১০টি সুপারিশও করা হয়েছে।

রোড সেফটি ফাউন্ডেশনের তথ্য

জুলাইয়ে সড়কে প্রাণহানি বেড়েছে ৩৬ শতাংশ

৬৩২ দুর্ঘটনায় ৭৩৯ জন নিহত হয়েছেন
 যুগান্তর প্রতিবেদন 
০৭ আগস্ট ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

আগের মাসের চেয়ে জুলাইয়ে সড়ক দুর্ঘটনা প্রায় ৩১ শতাংশ ও প্রাণহানি ৩৬ দশমিক ৪৮ শতাংশ বেড়েছে। এ মাসে দেশে সড়ক দুর্ঘটনা ঘটেছে ৬৩২টি। এতে নিহত হন ৭৩৯ জন এবং আহত হন ২০৪২ জন। নিহতের মধ্যে নারী ১০৫ জন ও শিশু ১০৯ জন। রোড সেফটি ফাউন্ডেশনের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এতে উল্লেখ করা হয়েছে, এর আগে জুন মাসে প্রতিদিন গড়ে ১৫.৫৬টি দুর্ঘটনায় ১৭ দশমিক ৪৬ জন নিহত হয়েছিল। জুলাই মাসে প্রতিদিন গড়ে নিহত হয়েছে ২৩.৮৩ জন, অর্থাৎ ২৪ জন। এই হিসাবে জুলাই মাসে দুর্ঘটনা বেড়েছে ৩০ দশমিক ৯৭ শতাংশ এবং প্রাণহানি বেড়েছে ৩৬ দশমিক ৪৮ শতাংশ।

শনিবার জুলাই মাসের প্রতিবেদন গণমাধ্যমে পাঠায় রোড সেফটি ফাউন্ডেশন। বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদের ভিত্তিতে দুর্ঘটনা সংক্রান্ত এ প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে বলে এতে জানানো হয়। প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, জুলাই মাসে দুর্ঘটনায় নিহত ৭৩৯ জনের মধ্যে ৫৮১ জনের বয়স ১৮ থেকে ৬৫ বছর। অর্থাৎ নিহতদের ৭৮.৬১ শতাংশ কর্মক্ষম মানুষ। সবচেয়ে বেশি মানুষ মারা গেছেন মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায়। ওই মাসে ২৯৮টি মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় নিহত ২৫১ জন, যা মোট নিহতের ৩৩.৯৬ শতাংশ। মোটরসাইকেল দুর্ঘটনার হার ৪৭.১৫ শতাংশ। এছাড়া দুর্ঘটনায় ১১৮ জন পথচারী নিহত হয়েছে, যা মোট নিহতের ১৫.৯৬ শতাংশ। যানবাহনের চালক ও সহকারী নিহত হয়েছেন ১৩৭ জন, অর্থাৎ ১৮.৫৩ শতাংশ। একই সময়ে ১৪টি নৌ-দুর্ঘটনায় ১৮ জন নিহত এবং ৭ জন নিখোঁজ রয়েছেন। ২৬টি রেলপথ দুর্ঘটনায় (রেলক্রসিং দুর্ঘটনাসহ) ৪১ জন নিহত এবং ৩৩ জন আহত হয়েছেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ঢাকা বিভাগে সবচেয়ে বেশি ১৯৯টি দুর্ঘটনায় ২২৮ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। সিলেট বিভাগে সবচেয়ে কম ৩১টি দুর্ঘটনা ঘটেছে। রাজধানী ঢাকায় ৪১টি দুর্ঘটনায় ২৯ জন নিহত ও ৫৮ জন আহত হয়েছে। দুর্ঘটনার জন্য বেপরোয়া গতি, ত্রুটিপূর্ণ যানবাহন, চালকদের বেপরোয়া মানসিকতা ও অদক্ষতাসহ ১০টি কারণ চিহ্নিত করা হয়েছে। দুর্ঘটনা রোধে ‘সড়ক পরিবহণ আইন-২০১৮’ বাধাহীনভাবে বাস্তবায়নসহ ১০টি সুপারিশও করা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন