রাজপথে নামার হুঁশিয়ারি চা শ্রমিকদের
jugantor
রাজপথে নামার হুঁশিয়ারি চা শ্রমিকদের

  যুগান্তর প্রতিবেদন ও হবিগঞ্জ প্রতিনিধি  

২০ আগস্ট ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রাজপথে নামার হুঁশিয়ারি চা শ্রমিকদের

হবিগঞ্জের ২৪টি চা বাগানে মজুরি বৃদ্ধির দাবিতে আন্দোলন অব্যাহত আছে। শুক্রবার সকাল থেকে বিভিন্ন বাগানে শ্রমিকরা বিক্ষোভ করেন। বেলা ১১টায় চুনারুঘাট উপজেলার চানপুর চা বাগানে সমাবেশ করে তারা। দু’এক দিনের মধ্যে দাবি মানা না হলে রাজপথে আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন শ্রমিকরা। এদিকে চা শ্রমিকদের আন্দোলনের প্রতি সংহতি জানিয়েছে বিএনপি।

বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়ন সংগ্রাম পরিষদের উপদেষ্টা কাঞ্চন পাত্র বলেন, দৈনিক মজুরি ১২০ টাকা থেকে ৩০০ টাকা করার দাবিতে আমরা টানা আন্দোলন করে চলেছি। কয়েক দফা বৈঠক করেও চা শ্রমিকদের ভাগ্য উন্নয়নে কোনো সুরাহা হয়নি। তাই শ্রমিকরা নিজ নিজ বাগানে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে। তারা আর বাগানে থাকতে চায় না। রাজপথে যাওয়ার জন্য আমাদের বলছে। আগামী দু’এক দিনের মধ্যে যদি সমাধান না হয় তবে আমরা রাজপথে যেতে বাধ্য হব।

এদিকে চা শ্রমিকদের আন্দোলনে স্থবির হয়ে পড়েছে হবিগঞ্জের বাগান ও কারখানাগুলো। মেশিন বন্ধ থাকায় পচে গেছে উত্তোলিত প্রায় দুই লাখ কেজি কাঁচা চা পাতা।

চা শ্রমিকদের আন্দোলনে বিএনপির সংহতি : চা বাগানের শ্রমিকদের আন্দোলনের প্রতি সংহতি জানিয়েছে বিএনপি। শুক্রবার গণমাধ্যমে এক বিবৃতিতে সংহতি জানিয়ে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, চা শ্রমিকদের দাবি আদায়ের আন্দোলন যৌক্তিক। তাদের ন্যায়সঙ্গত দাবি মেনে নেওয়ার আহ্বানও জানান বিএনপি মহাসচিব। তিনি বলেন, চা শ্রমিকদের বর্তমান মজুরি ১২০ টাকা। এই স্বল্প মজুরিতে মানবেতর জীবন-যাপন করা ছাড়া কোনো উপায় নেই। চা শ্রমিকদের ক্ষুধা, দারিদ্র্য ও ভোগান্তি নিরসনে এই মুহূর্তে ন্যায়সঙ্গত মজুরি বৃদ্ধির উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে।

রাজপথে নামার হুঁশিয়ারি চা শ্রমিকদের

 যুগান্তর প্রতিবেদন ও হবিগঞ্জ প্রতিনিধি 
২০ আগস্ট ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
রাজপথে নামার হুঁশিয়ারি চা শ্রমিকদের
ফাইল ছবি

হবিগঞ্জের ২৪টি চা বাগানে মজুরি বৃদ্ধির দাবিতে আন্দোলন অব্যাহত আছে। শুক্রবার সকাল থেকে বিভিন্ন বাগানে শ্রমিকরা বিক্ষোভ করেন। বেলা ১১টায় চুনারুঘাট উপজেলার চানপুর চা বাগানে সমাবেশ করে তারা। দু’এক দিনের মধ্যে দাবি মানা না হলে রাজপথে আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন শ্রমিকরা। এদিকে চা শ্রমিকদের আন্দোলনের প্রতি সংহতি জানিয়েছে বিএনপি।

বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়ন সংগ্রাম পরিষদের উপদেষ্টা কাঞ্চন পাত্র বলেন, দৈনিক মজুরি ১২০ টাকা থেকে ৩০০ টাকা করার দাবিতে আমরা টানা আন্দোলন করে চলেছি। কয়েক দফা বৈঠক করেও চা শ্রমিকদের ভাগ্য উন্নয়নে কোনো সুরাহা হয়নি। তাই শ্রমিকরা নিজ নিজ বাগানে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে। তারা আর বাগানে থাকতে চায় না। রাজপথে যাওয়ার জন্য আমাদের বলছে। আগামী দু’এক দিনের মধ্যে যদি সমাধান না হয় তবে আমরা রাজপথে যেতে বাধ্য হব।

এদিকে চা শ্রমিকদের আন্দোলনে স্থবির হয়ে পড়েছে হবিগঞ্জের বাগান ও কারখানাগুলো। মেশিন বন্ধ থাকায় পচে গেছে উত্তোলিত প্রায় দুই লাখ কেজি কাঁচা চা পাতা।

চা শ্রমিকদের আন্দোলনে বিএনপির সংহতি : চা বাগানের শ্রমিকদের আন্দোলনের প্রতি সংহতি জানিয়েছে বিএনপি। শুক্রবার গণমাধ্যমে এক বিবৃতিতে সংহতি জানিয়ে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, চা শ্রমিকদের দাবি আদায়ের আন্দোলন যৌক্তিক। তাদের ন্যায়সঙ্গত দাবি মেনে নেওয়ার আহ্বানও জানান বিএনপি মহাসচিব। তিনি বলেন, চা শ্রমিকদের বর্তমান মজুরি ১২০ টাকা। এই স্বল্প মজুরিতে মানবেতর জীবন-যাপন করা ছাড়া কোনো উপায় নেই। চা শ্রমিকদের ক্ষুধা, দারিদ্র্য ও ভোগান্তি নিরসনে এই মুহূর্তে ন্যায়সঙ্গত মজুরি বৃদ্ধির উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন