আনসার-সুইপার সংঘর্ষে সাতজন আহত
jugantor
সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ
আনসার-সুইপার সংঘর্ষে সাতজন আহত

  কিশোরগঞ্জ ব্যুরো  

০৬ অক্টোবর ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মোবাইল চুরির ঘটনাকে কেন্দ্র করে কিশোরগঞ্জের শহিদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সুইপার ও আনসার সদস্যদের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ হয়েছে। এতে উভয়পক্ষের অন্তত ৭ জন আহত হয়েছে।

এ সময় চিকিৎসা নিতে আসা রোগী ও তাদের স্বজনদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। তারা দিগি¦দিক ছোটাছুটি করে আত্মরক্ষার চেষ্টা করেন। খবর পেয়ে পুলিশ, র?্যাব ও পিবিআই এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। বুধবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচ্ছন্নতার কাজ করার সময় এক সুইপারের মোবাইল সেট কে বা কারা নিয়ে যায়। এ ঘটনায় সুইপাররা দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগ এনে আনসারদের সঙ্গে কথাকাটাকাটিতে জড়িয়ে পড়ে। স্থানীয় মেম্বারসহ আশপাশের লোকজন চেষ্টা করেন বিষয়টি নিষ্পত্তি করার জন্য। কিন্তু তারা ব্যর্থ হন। একপর্যায়ে ক্যাম্পের সব আনসার একসঙ্গে জড়ো হয়ে কয়েকজন সুইপারকে নিচতলার গণশৌচাগার কক্ষে আটকে রাখে।

এ খবর জানাজানি হলে শহরের সুইপার কলোনির লোকজন লাঠিসোঁটা নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল সহকারে মেডিকেল ক্যাম্পাসে আনসারদের মুখোমুখি হলে দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। এ সময় সুইপাররা আনসারদের লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। আর আনসাররা গুলি ছুড়ে ও লাঠিচার্জ করে। ঘণ্টাব্যাপী চলা এ সংঘর্ষে গোটা হাসপাতাল চত্বর রণক্ষেত্রে পরিণত হয়।

শহিদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. হাবিবুর রহমান জানান, তুচ্ছ ঘটনা থেকে সুইপার ও আনসারদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে আনসারসহ বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে। আনসার ক্যাম্প ও অস্ত্রাগারের সামনে এ ঘটনাটি ঘটায় ৮ রাউন্ড গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করা হয়েছে বলে আনসাররা জানিয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ, র?্যাব ও সিবিআই এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। দুপক্ষকে আলোচনায় বসিয়ে বিষয়টি নিষ্পত্তির চেষ্টা চলছে। আলোচনার মাধ্যমে সমাধান না হলে তদন্ত কমিটি গঠন করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ

আনসার-সুইপার সংঘর্ষে সাতজন আহত

 কিশোরগঞ্জ ব্যুরো 
০৬ অক্টোবর ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মোবাইল চুরির ঘটনাকে কেন্দ্র করে কিশোরগঞ্জের শহিদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সুইপার ও আনসার সদস্যদের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ হয়েছে। এতে উভয়পক্ষের অন্তত ৭ জন আহত হয়েছে।

এ সময় চিকিৎসা নিতে আসা রোগী ও তাদের স্বজনদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। তারা দিগি¦দিক ছোটাছুটি করে আত্মরক্ষার চেষ্টা করেন। খবর পেয়ে পুলিশ, র?্যাব ও পিবিআই এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। বুধবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচ্ছন্নতার কাজ করার সময় এক সুইপারের মোবাইল সেট কে বা কারা নিয়ে যায়। এ ঘটনায় সুইপাররা দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগ এনে আনসারদের সঙ্গে কথাকাটাকাটিতে জড়িয়ে পড়ে। স্থানীয় মেম্বারসহ আশপাশের লোকজন চেষ্টা করেন বিষয়টি নিষ্পত্তি করার জন্য। কিন্তু তারা ব্যর্থ হন। একপর্যায়ে ক্যাম্পের সব আনসার একসঙ্গে জড়ো হয়ে কয়েকজন সুইপারকে নিচতলার গণশৌচাগার কক্ষে আটকে রাখে।

এ খবর জানাজানি হলে শহরের সুইপার কলোনির লোকজন লাঠিসোঁটা নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল সহকারে মেডিকেল ক্যাম্পাসে আনসারদের মুখোমুখি হলে দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। এ সময় সুইপাররা আনসারদের লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। আর আনসাররা গুলি ছুড়ে ও লাঠিচার্জ করে। ঘণ্টাব্যাপী চলা এ সংঘর্ষে গোটা হাসপাতাল চত্বর রণক্ষেত্রে পরিণত হয়।

শহিদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. হাবিবুর রহমান জানান, তুচ্ছ ঘটনা থেকে সুইপার ও আনসারদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে আনসারসহ বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে। আনসার ক্যাম্প ও অস্ত্রাগারের সামনে এ ঘটনাটি ঘটায় ৮ রাউন্ড গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করা হয়েছে বলে আনসাররা জানিয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ, র?্যাব ও সিবিআই এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। দুপক্ষকে আলোচনায় বসিয়ে বিষয়টি নিষ্পত্তির চেষ্টা চলছে। আলোচনার মাধ্যমে সমাধান না হলে তদন্ত কমিটি গঠন করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন