দক্ষিণ এশিয়ার উন্নয়নশীল দেশগুলো নানা সংকটে
jugantor
সিপিডির ওয়েবিনারে বক্তারা
দক্ষিণ এশিয়ার উন্নয়নশীল দেশগুলো নানা সংকটে

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সিপিডির ওয়েবিনারে বক্তারা বলেছেন, কোভিড-১৯ শুরুর পর থেকে বিশ্বের অর্থনৈতিক অবস্থা অনেকটা দুর্বল হয়েছে। এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ। এ অবস্থায় দক্ষিণ এশিয়ার পিছিয়ে পড়া ও উন্নয়নশীল দেশগুলোকে নানামুখী অর্থনৈতিক সংকট মোকাবিলা করতে হচ্ছে। শুক্রবার বিকালে সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি) আয়োজিত দক্ষিণ এশিয়ার বহুপাক্ষিক উন্নয়ন অর্থায়ন বিষয়ক ওয়েবিনারে বক্তারা এসব কথা বলেন।

বক্তারা বলেন, অর্থনৈতিক সংকটে পড়া দেশের জন্য ২০১৯ থেকে ২০২০ সালের চেয়ে ৩১ ভাগ আন্তর্জাতিক সহায়তা বাড়লেও পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছে না। এমন অবস্থায় জাতিসংঘের মানবিক সাহায্যের জন্য যে পরিমাণ সহায়তা দরকার ছিল এখন পর্যন্ত তার চেয়ে ৬৩ শতাংশ কম করা হয়েছে। আর উন্নয়ন কাজে অর্থায়নকারী সংস্থাগুলো অনুদাননির্ভর অর্থায়নের চেয়ে ঋণনির্ভর অর্থায়ন বেশি করছে। এ অবস্থায় অনুদাননির্ভর অর্থায়নের প্রয়োজন বেশি।

তারা আরও বলেন, দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে নেপাল, ভুটান ও বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হওয়ার পথে। এই উন্নতির পর এই দেশগুলোর ঋণ সুবিধা ও বাণিজ্যিক সহায়তা বিশ্ব বাজারে কমে যাবে। সেদিক থেকে এ দেশগুলোকে চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে হবে।

ওয়েবিনারে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তৃতা করেন, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ। সিপিডির নির্বাহী পরিচালক ড. ফাহমিদা খাতুনের সভাপতিত্বে ওয়েবিনারে সূচনা বক্তৃতা করেন, অর্গানাইজেশন ফর ইকোনমিক কো-অপারেশন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্টের (ওইসিডি) পলিসি অ্যানালাইসিস অ্যান্ড স্ট্র্যাটেজি ইউনিটের প্রধান অলিভিয়ার ক্যাটানিও, কারিগরি বক্তব্য উপস্থাপন করেন-ওইসিডির নীতি বিশ্লেষক জিউন কিম। এ ছাড়া আলোচনায় অংশ নেন, ভারতের রিসার্স অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেম ফর ডেভেলপিং কান্ট্রিজের (আরআইএস) মহাপরিচালক শচীন চতুর্বেদী, সিপিডির ফেলো ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য, ইনস্টিটিউট অব পলিসি স্টাডিজ অব শ্রীলংকা (আইপিএস) গবেষণা পরিচালক ড. নিশা অরুণাতিলকে, নেপালের সাউথ এশিয়া ওয়াচ অন ট্রেড, ইকোনমিকস অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টের (এসএডব্লিউটিইই) নির্বাহী পরিচালক পরস খারেল প্রমুখ।

সিপিডির ওয়েবিনারে বক্তারা

দক্ষিণ এশিয়ার উন্নয়নশীল দেশগুলো নানা সংকটে

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

সিপিডির ওয়েবিনারে বক্তারা বলেছেন, কোভিড-১৯ শুরুর পর থেকে বিশ্বের অর্থনৈতিক অবস্থা অনেকটা দুর্বল হয়েছে। এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ। এ অবস্থায় দক্ষিণ এশিয়ার পিছিয়ে পড়া ও উন্নয়নশীল দেশগুলোকে নানামুখী অর্থনৈতিক সংকট মোকাবিলা করতে হচ্ছে। শুক্রবার বিকালে সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি) আয়োজিত দক্ষিণ এশিয়ার বহুপাক্ষিক উন্নয়ন অর্থায়ন বিষয়ক ওয়েবিনারে বক্তারা এসব কথা বলেন।

বক্তারা বলেন, অর্থনৈতিক সংকটে পড়া দেশের জন্য ২০১৯ থেকে ২০২০ সালের চেয়ে ৩১ ভাগ আন্তর্জাতিক সহায়তা বাড়লেও পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছে না। এমন অবস্থায় জাতিসংঘের মানবিক সাহায্যের জন্য যে পরিমাণ সহায়তা দরকার ছিল এখন পর্যন্ত তার চেয়ে ৬৩ শতাংশ কম করা হয়েছে। আর উন্নয়ন কাজে অর্থায়নকারী সংস্থাগুলো অনুদাননির্ভর অর্থায়নের চেয়ে ঋণনির্ভর অর্থায়ন বেশি করছে। এ অবস্থায় অনুদাননির্ভর অর্থায়নের প্রয়োজন বেশি।

তারা আরও বলেন, দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে নেপাল, ভুটান ও বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হওয়ার পথে। এই উন্নতির পর এই দেশগুলোর ঋণ সুবিধা ও বাণিজ্যিক সহায়তা বিশ্ব বাজারে কমে যাবে। সেদিক থেকে এ দেশগুলোকে চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে হবে।

ওয়েবিনারে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তৃতা করেন, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ। সিপিডির নির্বাহী পরিচালক ড. ফাহমিদা খাতুনের সভাপতিত্বে ওয়েবিনারে সূচনা বক্তৃতা করেন, অর্গানাইজেশন ফর ইকোনমিক কো-অপারেশন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্টের (ওইসিডি) পলিসি অ্যানালাইসিস অ্যান্ড স্ট্র্যাটেজি ইউনিটের প্রধান অলিভিয়ার ক্যাটানিও, কারিগরি বক্তব্য উপস্থাপন করেন-ওইসিডির নীতি বিশ্লেষক জিউন কিম। এ ছাড়া আলোচনায় অংশ নেন, ভারতের রিসার্স অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেম ফর ডেভেলপিং কান্ট্রিজের (আরআইএস) মহাপরিচালক শচীন চতুর্বেদী, সিপিডির ফেলো ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য, ইনস্টিটিউট অব পলিসি স্টাডিজ অব শ্রীলংকা (আইপিএস) গবেষণা পরিচালক ড. নিশা অরুণাতিলকে, নেপালের সাউথ এশিয়া ওয়াচ অন ট্রেড, ইকোনমিকস অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টের (এসএডব্লিউটিইই) নির্বাহী পরিচালক পরস খারেল প্রমুখ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন