নির্বাচন পরিচালনায় আরও দুই কমিটি করবে আওয়ামী লীগ

  মাহবুব হাসান ২৪ জুলাই ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন
ছবি: সংগৃহীত

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন পরিচালনায় আরও দুটি কমিটি করবে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। এর একটি হবে ছোট আকারের। নাম হবে কোর কমিটি। অপরটি বিভাগীয় নির্বাচন পরিচালনা কমিটি। কোর কমিটি সার্বিক নির্বাচনী কর্মকাণ্ড সমন্বয় ও পরিচালনা করবে।

আর বিভাগীয় কমিটি দলের আটটি সাংগঠনিক বিভাগের নির্বাচন পরিচালনার সমন্বয় করবে। এ মাসেই কমিটি দুটি গঠনের সম্ভাবনা আছে। আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটি সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়। প্রসঙ্গত, দলের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী পরিষদ এবং উপদেষ্টা পরিষদের সমন্বয়ে ইতিমধ্যে ‘নির্বাচন পরিচালনা কমিটি’ গঠন করা হয়েছে।

১৩৩ সদস্যবিশিষ্ট এ কমিটির চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। কো-চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পেয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এবং দলের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য এইচটি ইমাম। এ কমিটির সদস্য সচিব হিসেবে রয়েছেন সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। আওয়ামী লীগ সূত্র জানায়, নির্বাচন পরিচালনা এবং এ সংক্রান্ত কাজে অভিজ্ঞদের নিয়ে গঠিত হবে কোর কমিটি।

যারা নির্বাচনের জন্য এজেন্ট প্রশিক্ষণ, দলের বিজয় নিশ্চিত করতে সার্বিক পরিকল্পনা ও কৌশল প্রণয়ন করবেন। এতে নির্বাচন এবং প্রচার সংশ্লিষ্ট নেতারা অন্তর্ভুক্ত থাকবেন। এ কমিটির আকার হবে সর্বোচ্চ ২০ থেকে ৩০ জনের। যারা ৩০০ আসনের ওপর আলাদাভাবে ফোকাস করবেন।

নৌকার ভোট, বর্তমান প্রেক্ষিতে নৌকার অবস্থান, দলীয় নেতাদের কার কী অবস্থান, প্রার্থীর জন্য কী কী প্রতিবন্ধকতা, প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর শক্তিশালী ও দুর্বল দিক, প্রতিটি আসনের অতীত নির্বাচনী পরিসংখ্যান পর্যালোচনা হবে এ কমিটির কাজ। বিভাগভিত্তিক হবে বিভাগীয় কমিটি। দলের একজন প্রেসিডিয়াম সদস্যকে আহ্বায়ক এবং সংশ্লিষ্ট বিভাগীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদককে সদস্য সচিব করে এ কমিটি গঠন করা হবে।

এতে বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদকসহ সংশ্লিষ্ট অন্য নেতারা সদস্য হিসেবে থাকবেন। এ কমিটি স্ব স্ব বিভাগের নির্বাচন পরিচালনার কাজ সমন্বয় করবে। তথ্য ও ডাটা সংগ্রহ এবং সরবরাহ, বিশ্লেষণ ও পর্যালোচনার পাশাপাশি বিভাগীয় পর্যায়ে প্রয়োজনীয় নির্দেশনাও যাবে এ কমিটির মাধ্যমে।

জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী জাফর উল্ল্যাহ যুগান্তরকে বলেন, নির্বাচন পরিচালনার জন্য দলের পক্ষ থেকে মূল কমিটি গঠন করা হয়েছে। যে কমিটি সার্বিক বিষয় দেখভাল ও কৌশল প্রণয়ন করবে। তবে প্রয়োজন হলে বিভিন্ন বিষয়ে আরও কমিটি করা হতে পারে। আর যেহেতু দলের আটটি সাংগঠনিক বিভাগ রয়েছে, এগুলোর দায়িত্বে নিয়োজিত নেতারাই স্ব স্ব বিভাগের নির্বাচনী দায়িত্ব পালন করবেন।

সূত্র জানায়, চলতি জুলাই মাসের মধ্যে নির্বাচন পরিচালনা কমিটির বৈঠক আয়োজনের চেষ্টা চলছে। এ বৈঠক থেকে নির্বাচনী সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা ও সিদ্ধান্ত আসতে পারে। গঠন করা হতে পারে এ দুই কমিটি। রীতি অনুযায়ী আগস্ট মাসে আওয়ামী লীগ শোকের মাসের কর্মসূচি ছাড়া অন্য কোনো কর্মসূচি পালন করে না, তাই ৩১ জুলাইয়ের মধ্যেই এ বৈঠক করতে চান সংশ্লিষ্টরা। তবে বৈঠকের দিনক্ষণটি নির্ভর করছে দলের সভাপতির মতামতের ওপর।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক নেতা যুগান্তরকে বলেন, নির্বাচন পরিচালনা কমিটির বৈঠকে কোর কমিটি এবং বিভাগীয় কমিটি গঠনের প্রস্তাব তোলা হতে পাারে। প্রতি জাতীয় নির্বাচনের আগেই একটি নির্বাচন পরিচালনা কমিটি গঠন করে থাকে আওয়ামী লীগ। এ ধারাবাহিকতায় এবারও কমিটি গঠন করা হয়েছে। কিন্তু নির্বাচনের মৌলিক কাজগুলোর জন্য একটি কোর কমিটি গঠনের চিন্তা দলটির নীতিনির্ধারকরা শক্তভাবে বিবেচনা করছেন।

ঘটনাপ্রবাহ : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.