মাশরাফিদের ‘ফাইনাল’আজ

  স্পোর্টস রিপোর্টার ২৮ জুলাই ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

মাশরাফি বিন মুর্তজা

ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে এখন পর্যন্ত মাত্র একবারই ওয়ানডে সিরিজ জিতেছে বাংলাদেশ। ২০০৯ সালের সেই সুখস্মৃতি ফিরে আসতে পারত গত বুধবারই। প্রথম ওয়ানডেতে ৪৮ রানের দাপুটে জয়ের পর দ্বিতীয় ম্যাচেও বাংলাদেশের দৃষ্টিসীমায় চলে এসেছিল জয়। কিন্তু একদম শেষ অঙ্কে তালগোল পাকিয়ে মুঠোয় থাকা জয়টা ওয়েস্ট ইন্ডিজকে উপহার দিয়ে একরাশ হতাশা নিয়ে গায়না ছেড়েছেন মুশফিকুররা।

শেষ ১৩ বলে ১৪ রানের সহজতম সমীকরণ মেলাতে ব্যর্থ হয়ে তিন রানে হেরে বসায় এখন শেষ ম্যাচে ফাইনালের চাপ নিয়ে নামতে হবে বাংলাদেশকে। তিন ম্যাচ সিরিজের শেষ ওয়ানডেটি দু’দলের জন্যই অলিখিত ফাইনালে রূপ নিয়েছে। গায়নার পাট চুকিয়ে আজ সেন্ট কিটসে বাঁচা-মরার লড়াইয়ে নামবেন মাশরাফিরা।

হারলে সিরিজও হাতছাড়া। নিজেদের প্রিয় ফরম্যাটে প্রথম দুই ম্যাচে দারুণ প্রভাব বিস্তার করেছে বাংলাদেশ। ভুল-ত্রুটি শুধরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজ জয়ের লক্ষ্যেই আজ শেষ ওয়ানডেতে মাঠে নামবেন মাশরাফি মুর্তজারা। সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিসের বাসেতেরেতে বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় শুরু হবে ম্যাচটি। দ্বিতীয় ম্যাচে হারের কোনো ব্যাখ্যা খুঁজে পাননি অধিনায়ক মাশরাফি। তার মতে অকারণে আতঙ্কিত হয়ে হেরেছে বাংলাদেশ।

বারবার একই পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়েও শিক্ষা নিচ্ছে না বাংলাদেশ, অধিনায়কের ক্ষোভ সেখানেই। তবে সিরিজ জয়ের সুযোগ এখনও হাতছাড়া হয়নি। মাশরাফি বলেন, ‘আমাদের হাতে এখনও একটি সুযোগ আছে। আগের ম্যাচের ভুলত্রুটি শুধরে নামতে হবে। আশা করি শেষ ম্যাচে আমরা ঘুরে দাঁড়াব।’ ব্যাটিং-বোলিং দুই বিভাগেই বাংলাদেশ দারুণ ছন্দে আছে। সমস্যা শুধু ফিনিশিংয়ে।

প্রথম ওয়ানডেতে বাংলাদেশ বড় জয় পেলেও শেষ উইকেটে ওয়েস্ট ইন্ডিজ বড় জুটি গড়েছিল। আবার দ্বিতীয় ম্যাচে পুরোটা সময় আধিপত্য বিস্তার করেও তীরে এসে তরী ডুবেছে। দুই ম্যাচে টস ভাগ্যও সহায় ছিল বাংলাদেশের। এখন নতুন ভেন্যুতে নিজেদের নতুন করে প্রমাণের চ্যালেঞ্জ। সাব্বির রহমান বা মোসাদ্দেক হোসেনের জায়গায় লিটন কুমার দাসকে শেষ ম্যাচে সুযোগ দিতে পারে টিম ম্যানেজমেন্ট। ফিনিশিংয়ে সাব্বির ও মোসাদ্দেকের উপর আস্থা রাখলেও তারা দুই ম্যাচেই ব্যর্থ হয়েছেন।

লিটন প্রস্তুতি ম্যাচে ভালো করেছেন, তার আগে টেস্ট সিরিজেও কিছু রান পেয়েছেন। ব্যাটিংয়ের মতো বোলিংয়েও শেষটা নিয়ে ভয়। প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশ দ্রুত নয় উইকেট তুলে নিলেও মোস্তাফিজ ও রুবেল মিলে উন্ডিজের শেষ জুটি ভাঙতে পারেননি। দ্বিতীয় ম্যাচে শেষ নয় বলে হজম করতে হয়েছে ২৯ রান। রুবেল সর্বোচ্চ তিন উইকেট নিলেও ৪৯তম ওভারে দিয়েছিলেন ২২ রান।

বাংলাদেশ যেখানে শুরুটা ভালো করেও শেষে পারছে না, সেখানে ওয়েস্ট ইন্ডিজ শুরুতে পিছিয়ে থেকেই এগিয়ে যাচ্ছে। জেসন হোল্ডার দ্বিতীয় ম্যাচের প্রথম ওভারেই দিয়েছিলেন ২০ রান। অথচ শেষ ওভারে চার রান দিয়ে দলকে জেতালেন। আগের ম্যাচে বাংলাদেশ হেরেছে মূলত ২১ বছর বয়সী শিমরন হেটমায়ারের কাছে। বাংলাদেশ দ্রুত ক্যারিবীয়দের টপ-অর্ডারে ধস নামালেও এক প্রান্ত আগলে রাখেন হেটমায়ার।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের সর্বকনিষ্ঠ ব্যাটসম্যান হিসেবে করেছেন সেঞ্চুরিও। ক্রিস গেইল ও এভিন লুইসের চেয়েও তাই হেটমায়ারকে নিয়ে বেশি ভয়ে সফরকারীরা। সেন্ট কিটসের ওয়ার্নার পার্কে এর আগে বাংলাদেশ দুটি ওয়ানডে খেলেছে। তাতে সমান একটি করে জয় ও হার রয়েছে। এছাড়া দুটি টি ২০ ম্যাচে বাংলাদেশ একটিতে হেরেছে, অন্যটি পরিত্যক্ত হয়। এই মাঠে ২০০৯ সালের ওয়ানডে জয়ের স্মৃতি আজ আবারও ফিরিয়ে আনতে চাইবে বাংলাদেশ।

ঘটনাপ্রবাহ : বাংলাদেশ ট্যুর অব ওয়েস্ট ইন্ডিজ-২০১৮

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.