বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যু

নৌমন্ত্রীর বক্তব্যে বাণিজ্যমন্ত্রীর দুঃখ প্রকাশ

প্রকাশ : ৩১ জুলাই ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  সাংস্কৃতিক রিপোর্টার

বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থীর নিহতের ঘটনায় দেয়া নৌমন্ত্রীর বক্তব্যের জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। তিনি বলেন, এ ঘটনা নিয়ে যদি কেউ বিরূপ মন্তব্য করেন তাহলে আমি দুঃখিত, ব্যথিত ও মর্মাহত। প্রধানমন্ত্রীও এ বিষয়ে দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি অধ্যাপক ড. হারুন-অর-রশিদের গবেষণা গ্রন্থ ‘বঙ্গীয় মুসলিম লীগ পাকিস্তান আন্দোলন : বাঙালির রাষ্ট্রভাবনা ও বঙ্গবন্ধু’র প্রকাশনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

জাতীয় জাদুঘরের কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে সোমবার এ অনুষ্ঠানে আলোচনা করেন অধ্যাপক ড. রওনক জাহান, লেখক-গবেষক সৈয়দ আবুল মকসুদ, অধ্যাপক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম। সভাপতিত্ব করেন জাতীয় অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলাম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন অন্যপ্রকাশের প্রধান নির্বাহী মাজহারুল ইসলাম।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, বাসচাপায় রোববার দু’জন শিক্ষার্থী নিহত হন। আমিও বাবা, আমারও সন্তান আছে। আমি এটি সহ্য করতে পারিনি। তিনি বলেন, আমি জানলাম নিহত মেয়ে শিক্ষার্থীর বাবা একজন চালক। তার স্বপ্ন ছিল মেয়েকে মানুষ করবেন। তার সারা জীবনের স্বপ্ন সড়ক দুর্ঘটনায় শেষ হয়ে গেছে।

এটি নিয়ে আমি আর কিছু বলতে চাই না। তোফায়েল আহমেদ বলেন, হাইকোর্ট দুর্ঘটনায় নিহতদের ৫ লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দিতে একটি নির্দেশনা দিয়েছেন। তবে জীবনের মূল্য ক্ষতিপূরণ দিয়ে হয় না। তবুও পরিবারের সহযোগিতার জন্য এ টাকা দেয়া হবে।

তিন সিটি নির্বাচন প্রসঙ্গে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, একটি মহল সব সময় নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে কারচুপির অভিযোগ করে। পরাজয় জেনে নির্বাচন বর্জন করে। দু-একটি কেন্দ্রে গোলযোগ হয়েছে, নির্বাচন কমিশন এটির ব্যবস্থা নেবে।

বর্ষীয়ান এ রাজনীতিবিদ বলেন, স্বাধীন বাংলাদেশই ছিল বঙ্গবন্ধুর রাষ্ট্রভাবনা। জাতির জনক শেখ মুজিবুর রহমান শুধু মহান নেতাই নন দূরদৃষ্টিসম্পন্ন মানুষ ছিলেন। লক্ষ্য নির্ধারণ করে যদি কেউ রাজনীতি করে, সেই লক্ষ্যে যদি কেউ অবিচল থাকে তবে তিনি লক্ষ্যে অবশ্যই পৌঁছাবেন। বঙ্গবন্ধু ছিলেন তার সবচেয়ে বড় উদাহরণ।

পাকিস্তান আন্দোলনেও বঙ্গবন্ধু যুক্ত হয়েছিলেন, তবে তার রাষ্ট্রভাবনায় ছিল বাঙালির স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা। ১৯৭১ সালে তারই নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে সেই রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা লাভ করে।

বইটির লেখক হারুন-অর-রশিদ বলেন, পাকিস্তান প্রতিষ্ঠার পর ২৩ বছরেই বাংলাদেশ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠিত হয়নি। এ রাষ্ট্রের আকাক্সক্ষা বাঙালি জাতির মনে আরও বহু আগে থেকেই পুঞ্জীভূত হয়েছে। বঙ্গবন্ধু সেই সুদীর্ঘকালের প্রত্যাশাকে বাস্তবে রূপ দিয়েছিলেন। তিনি বাঙালির স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠায় ‘কালের কাণ্ডারী’ হিসেবে আবির্ভূত হয়েছিলেন বাঙালি জাতির জীবনে।

বইটি দুটি ভাগে বিভক্ত। প্রথম ভাগে রয়েছে ‘ভারত বিভাগ : পূর্ব বাংলার রাজনীতি ও বঙ্গবন্ধু।’ এতে তিনি নয়টি পর্বে বিস্তারিত ব্যাখ্যা করেছেন। দ্বিতীয় ভাগে রয়েছে ‘পাকিস্তান পর্বের রাজনীতি : বাঙালির জাতীয় মুক্তির স্বপ্নপূরণ।’

এখানে আটটি পর্বে বিভক্ত করে ব্যাখ্যা করেছেন। বইটি প্রকাশ করেছে অন্যপ্রকাশ। প্রচ্ছদ এঁকেছেন হাশেম খান। মূল্য ২৫০ টাকা।