দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুতে মর্মাহত প্রধানমন্ত্রী

অবৈধ চালকদের ধরার নির্দেশ

আন্দোলনকারীদের শান্ত হতে বললেন ওবায়দুল কাদের * দুর্ঘটনা নয়, হত্যাকাণ্ড-মোহম্মদ নাসিম

  যুগান্তর রিপোর্ট ০১ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুতে মর্মাহত প্রধানমন্ত্রী
ফাইল ছবি

রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনা প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, ঘটনাটি দুঃখজনক, আমরা মর্মাহত। প্রধানমন্ত্রীও দুঃখ পেয়েছেন, কষ্ট পেয়েছেন। সে কারণে তিনি আমাকে পরিবারটির খোঁজখবর নেয়ার জন্য পাঠিয়েছিলেন।

এ ঘটনায় প্রধানমন্ত্রী মর্মাহত। তিনি খুবই কষ্ট পেয়েছেন। তাই এ বিষয়ে তিনি খুবই কঠোর। এদিকে দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনায় দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে এবং রাজধানীর অপ্রাপ্তবয়স্ক ও লাইসেন্সবিহীন চালকদের ধরার নির্দেশ দিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে মঙ্গলবার বলা হয়, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব নজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ, বিআরটিএ ও বিআরটিসিসহ সংশ্লিষ্ট সব প্রতিষ্ঠানকে নিয়ে একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে ঢাকা শহরের বর্তমান গণপরিবহনে অপ্রাপ্তবয়স্ক ও ড্রাইভিং লাইসেন্সবিহীন অবৈধ গাড়ি চালকদের বিরুদ্ধে এবং বিমানবন্দর সড়কে দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনায় দায়ীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বিআরটিএ ও ডিএমপিকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

রোববার বিমানবন্দর সড়কে বাসের জন্য অপেক্ষা করার সময় জাবালে নূর পরিবহনের দুই বাসের রেষারেষির পর একটি বাসের চাপায় নিহত হন শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের শিক্ষার্থী দিয়া আক্তার মিম ও আবদুল করিম রাজিব। এছাড়া আরও অন্তত ১৫ শিক্ষার্থী আহত হন। এরপর থেকে টানা ৩ দিন সড়কে বিক্ষোভ চালিয়ে আসছেন ঢাকার বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। এর মধ্যেই প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় রাজধানীর অপ্রাপ্তবয়স্ক ও অবৈধ চালকদের ধরার নির্দেশ দিল।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল মঙ্গলবার বাসচাপায় নিহত দিয়া খানম মিমের বাসায় গিয়েছিলেন তার পরিবারের সদস্যদের সান্ত্বনা জানাতে। সেখান থেকে ফিরে নিজ দফতরে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, গতি নিয়ন্ত্রণ করতে না পারা বা পাল্লাপাল্লি করা, যে কারণেই এ দুর্ঘটনা ঘটুক তা খুঁজে বের করা হবে। এ নৈরাজ্যের প্রতিকার হওয়া উচিত।

এক প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী বলেন, মিমের বাবা জাহাঙ্গীর আলম যে এলাকায় থাকেন এটি আমার নির্বাচনী এলাকা। তাই সেখানে গিয়েছিলাম। প্রধানমন্ত্রীও আমাকে যেতে বলেছিলেন। ঘটনা যারা ঘটিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন। ইতিমধ্যে গাড়ি জব্দ এবং চালক-হেলপারদের গ্রেফতার করা হয়েছে।

জাহাঙ্গীরের সঙ্গে কথা বলেছি। তিনি আমাকে বলেছেন, এটি অদক্ষ ড্রাইভারের কাজ। তাই আমি আবারও বলছি, অদক্ষ চালক হোক, ফিটনেসবিহীন গাড়ি হোক অথবা ট্রাফিক আইন অমান্য করে হোক, যে কারণেই এ দুর্ঘটনা ঘটেছে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেব। এজন্য দায়ীদের শাস্তি পেতেই হবে।

রাস্তায় ছাত্রদের বিক্ষোভ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এটি তারা করতেই পারে। কারণ, তারা তাদের সহপাঠীকে হারিয়েছে, বন্ধুকে হারিয়েছে। তাদের আবেগ আছে, তাই তারা বিক্ষোভ করছে। আমি ছাত্রদের এ বিক্ষোভ সমর্থন করি। প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা দিয়েছেন যেন ত্বরিতগতিতে এ দুর্ঘটনার বিচার হয়। তাই ছাত্রদের অনুরোধ করব যেন তারা বাসায় ফিরে যায়।

দুর্ঘটনার মামলা ৩০২ ধারায় করা হয় না কেন এমন প্রশ্নের উত্তরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমি আইন বিষয়ে ভালো জানি না। তবে ইচ্ছা করে হত্যা করলে তো ৩০২ ধারায় মামলা হয়।

বাসের প্রতিযোগিতা বন্ধের নির্দেশ দিয়ে তিনি বলেন, আমার স্বীকার করতে বাধা নেই, রাস্তায় এটি (বাসের প্রতিযোগিতা) হয়। ক্যান্সার ও কিডনি রোগে বছরে যত মানুষ মারা যান, দুর্ঘটনায় তারচেয়ে বেশি মানুষ মারা যান। ঢাকা শহরের এ দুর্ঘটনা বন্ধ করতে ‘সেইফ ঢাকা’ নামে একটি প্রজেক্ট হাতে নিয়েছি। ঢাকা শহরের সড়ক ব্যবস্থাপনায় নতুন নতুন ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। এগুলো বাস্তবায়ন হলে যানজট কমে যাবে। যানজট কমে গেলে সড়ক দুর্ঘটনাও অনেকাংশে কমে যাবে।

চালকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিলে তারা আন্দোলন করেন, এক্ষেত্রে এমন হলে কী করবেন- এ প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী বলেন, কেউই আইনের ঊর্ধ্বে নন। আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেব।

আন্দোলনকারীদের শান্ত হতে বললেন ওবায়দুল কাদের : বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় রাজপথে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আমি কোমলমতি তরুণদের প্রতি আহ্বান জানাব, প্লিজ তোমরা শান্ত হও। তোমরা লেখাপড়ায় মনোনিবেশ কর।

দলীয় সভাপতির ধানমণ্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে মঙ্গলবার তিনি এ আহ্বান জানান। ওবায়দুল কাদের বলেন, দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনায় আমরাও মর্মাহত। এটা সড়কের বিষয় নয়। সরকার চুপ করে বসে নেই।

ঘটনা ঘটার ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে জড়িতদের গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের বিচারের আওতায় আনা হয়েছে। সরকারের যা করণীয় সরকার তা করেছে। এ বিষয়ে সরকারের অবস্থান অত্যন্ত কঠোর। তোমরা রাজপথ ছেড়ে ঘরে ফিরে যাও, লেখাপড়ায় মন দাও।

হত্যাকাণ্ড বললেন মোহাম্মদ নাসিম : বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনাটিকে হত্যাকাণ্ড বলে মন্তব্য করেছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। সচিবালয়ে মঙ্গলবার এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ফুটপাতে অপেক্ষারত শিক্ষার্থীদের ওপর বাস উঠিয়ে দেয়া এক প্রকার হত্যাকাণ্ড। এ ঘটনা অত্যন্ত দুঃখজনক।

ইতিমধ্যে ঘাতকরা গ্রেফতার হয়েছে। তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হবে বলেও আশ্বস্ত করেন তিনি। আহত শিক্ষার্থীদের চিকিৎসার সব ব্যয়ভার সরকার বহন করবে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, আহতদের উন্নত চিকিৎসার জন্য সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ঘটনাপ্রবাহ : বিমানবন্দর সড়কে দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যু

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.