দুর্বৃত্তদের হামলায় আহত দলীয় কর্মীদের দেখতে হাসপাতালে প্রধানমন্ত্রী

প্রয়োজনে উন্নত চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে পাঠানোর নির্দেশ

  যুগান্তর রিপোর্ট ০৮ আগস্ট ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

দুর্বৃত্তদের হামলায় আহত দলীয় কর্মীদের দেখতে হাসপাতালে প্রধানমন্ত্রী

নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকালে আওয়ামী লীগ অফিসে দুর্বৃত্তদের হামলায় দলের আহত কর্মীদের দেখতে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় শেরেবাংলা নগর চক্ষুবিজ্ঞান ইন্সটিটিউটে যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

দুর্বৃত্তদের হামলায় এক চোখ বিকল হয়ে যাওয়া স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা আরাফাতুল ইসলাম বাপ্পিসহ চারজন শিক্ষার্থীর চিকিৎসার সার্বিক খোঁজখবর নেন প্রধানমন্ত্রী। উন্নত চিকিৎসার জন্য আহতদের প্রয়োজনে বিদেশ পাঠাতে নির্দেশ দেন তিনি। এ সময় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. রুহুল হক, ডা. হাবিবে মিল্লাত ও দলের সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন।

উল্লেখ্য, ৪ ও ৫ আগস্ট বিকালে ঝিগাতলা ও ধানমণ্ডিতে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের কর্মীদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়। এসময় দুর্বৃত্তরা আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে হামলা চালালে কয়েকজন আহত হন।

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাক্ষাৎ : রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশ থেকে ফিরিয়ে নেয়ার বিষয়ে মিয়ানমারকে রাজি করানোর জন্য জাপানসহ আন্তর্জাতিক সংস্থার প্রতি আবার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের অবশ্যই তাদের দেশে ফিরিয়ে নিয়ে যেতে হবে।’ সফররত জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তার সরকারি বাসভবন গণভবনে সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে গেলে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, গত বছরের আগস্ট থেকে এ পর্যন্ত বহুসংখ্যক রোহিঙ্গা এসে এদেশে আশ্রয় গ্রহণ করেছে। সংখ্যায় তারা কক্সবাজারের স্থানীয় জনগোষ্ঠীকেও ছাড়িয়ে যাওয়ায় নানাবিধ সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে।

কক্সবাজারের স্থানীয় জনগণ এ কারণে ব্যাপক সমস্যার মুখোমুখি হয়েছে কারণ তাদের চাষাবাদের জমিগুলোতে পর্যন্ত রোহিঙ্গারা আশ্রয় নিয়েছে। তিনি বলেন, তাই আমরা স্থানীয় জনগণকেও সহায়তা প্রদান করছি। রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের বিষয়ে মিয়ানমারের সঙ্গে চুক্তি সম্পাদনের কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, যদিও নাইপিদো রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়ার বিষয়ে সম্মত হয়েছিল তথাপি তারা এ বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি।

জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বলেন, সম্প্রতি আমি মিয়ানমার সফরে দেশটির প্রেসিডেন্ট উইস মিন্ট এবং স্টেট কাউন্সিলর অং সান সু চি’র সঙ্গে রোহিঙ্গা সমস্যা নিয়ে আলোচনা করেছি। মিয়ানমারের নেতারা আমাকে জানান, তারা রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের বিষয়ে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করেছেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ থেকে ফিরে যাওয়ার পর যাতে ভালো পরিবেশে তারা বসবাস করতে পারে সেজন্য রাখাইন স্টেটে ঘরবাড়ি এবং স্কুল নির্মাণ কর্মসূচি দ্রুত সম্পন্ন করার জন্য আমি তাদেরকে বলেছি।

ঘটনাপ্রবাহ : বিমানবন্দর সড়কে দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যু

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter